Templates by BIGtheme NET
আজ- সোমবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৯ :: ৬ কার্তিক ১৪২৬ :: সময়- ৬ : ৪২ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / বিএনপিকে একঘরে করার কৌশল আওয়ামী লীগের

বিএনপিকে একঘরে করার কৌশল আওয়ামী লীগের

‍bnp a ligডেস্ক: ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে যোগাযোগকে কেন্দ্র করে বিএনপিকে একঘরে করতে চায় আওয়ামী লীগ। এ লক্ষ্যে ক্ষমতাসীন দলটির নেতারা ইসলামী দলগুলোকে বিএনপি জোট ছাড়ার প্রকাশ্য আহ্বান জানিয়েছেন।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, বিএনপি ইসলাম ও মুসলিম সেন্টিমেন্টকে ব্যবহার করে রাজনীতিতে ফায়দা লুটেছে মাত্র। কেননা মোসাদের সঙ্গে সম্পর্কের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে, তারা ইসলামী ভাবধারায় বিশ্বাসী নয়, মুসলিম সেন্টিমেন্টকে সম্মানও করে না। বিএনপির সঙ্গে শরিক থাকলে জোটভুক্ত অন্য ইসলামী দলগুলোর ওপরেও কমবেশি এর দায়-দায়িত্ব বর্তায়।

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ মনে করেন, যে ইসরাইলের সঙ্গে গোটা মুসলিম বিশ্বের বৈরী সম্পর্ক, ক্ষমতার মোহে তাদের সঙ্গে বিএনপি আজ সম্পর্ক স্থাপন করেছে। এ নিয়ে বিএনপি জোটভুক্ত ইসলামী দল ও অন্যান্য সংগঠনের প্রতিবাদ করা উচিত।

তিনি বলেন, এটা শুধু আওয়ামী লীগের একার দায়িত্ব নয়, সচেতন মুসলমান ও নাগরিক সমাজসহ সবাইকেই এর প্রতিবাদে সোচ্চার হতে হবে। যেখানে গোটা মুসলিম বিশ্ব ইসরাইলকে ইসলামের জন্য হুমকি মনে করে, সেখানে বিএনপি তাদের সঙ্গে বৈঠক করে এবং কূটনৈতিক সম্পর্ক ও ব্যবসা-বাণিজ্য দেয়ার আশ্বাস দিয়ে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করছে। তিনি মনে করেন, বিষয়টি নিয়ে ইসলামী দলগুলোর নিজে থেকেই সক্রিয় ভূমিকা পালন করা উচিত।

এদিকে আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, দলের নীতিনির্ধারকরা ইস্যুটি নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেছেন। প্রাথমিকভাবে বিশ্বের মুসলিম দেশগুলোর কাছে ইসরাইলের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্কের বিষয়টি তুলে ধরা হচ্ছে। এর পাশাপাশি দেশের অভ্যন্তরেও এ ইস্যুটি কাজে লাগানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কূটনৈতিক পর্যায়ে এরই মধ্যে বিষয়টি আন্তর্জাতিক মহলে তুলে ধরা হয়েছে। দেশের ইসলামী দলগুলোর কাছেও পৌঁছে দেয়া হয়েছে এ বার্তাটি। দলের পক্ষ থেকে বক্তৃতা-বিবৃতির মাধ্যমে ইসলামী দলগুলোকে বিএনপি জোট ছাড়ারও আহ্বান অব্যাহত রয়েছে।

ইসলামী দলগুলোকে এ বার্তা দেয়া হচ্ছে যে, মোসাদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে প্রকৃতপক্ষে বিএনপি ইসলামবিরোধী কাজ শুরু করেছে। তাই এর শরিক ইসলামী দলগুলোর উচিত হবে বিএনপির সঙ্গ ত্যাগ করা।

সূত্রমতে, প্রাথমিকভাবে কাজও শুরু হয়েছে। এখন ব্যক্তিগত পর্যায়ে যোগাযোগের প্রক্রিয়া চলছে। তবে ইসলামী শিক্ষাবিদ, মাওলানা ও মসজিদের ইমামদের মাধ্যমে ইসলামী দলগুলোর নেতাদের কাছে মোসাদের সঙ্গে বিএনপির যোগসূত্রের বিষয়টি নিয়ে বার্তা দেয়ারও পরিকল্পনা রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ আবদুল্লাহ বলেন, এরই মধ্যে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ অনেক নেতাই বিষয়টি সেমিনার-সিম্পোজিয়াম এবং সমাবেশে তুলে ধরেছেন। আমাদের বক্তব্য হল বিএনপি বা জামায়াত কোনো দলই ইসলামী দল নয় বা ইসলামী আদর্শে তারা বিশ্বাসীও নয়। তারা ইসলাম ধর্মের নামকে ব্যবহার করে রাজনৈতিক সুবিধা আদায় করতে চায়। ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে বিএনপি সেটা হাতেনাতে প্রমাণও করেছে। আমরা ইসলামী দলগুলোসহ সবার কাছে বিএনপির ইসরাইল সম্পর্কের বিষয়টিই তুলে ধরতে চাই। তবে, ব্যক্তিগত পর্যায়ে কোনো দলের সঙ্গে যোগাযোগ এখনও শুরু হয়নি বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম ও যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফও একাধিক বক্তব্যে এমন আহ্বান জানান। এর আগে বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে এমন আহ্বান জানান দলটির প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগের সমাবেশে এমন আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য এবং পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এবং সুজিত রায় নন্দী।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যেহেতু মোসাদ তথা ইসরাইলের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক প্রমাণিত, তাই যারা বিএনপির জোটের সঙ্গে রাজনীতি করেন তাদেরও এর দায়-দায়িত্ব বহন করতে হবে। কেননা মোসাদ ইহুদিদের গোয়েন্দা সংস্থা। বাংলাদেশ অন্যান্য মুসলিম দেশের মতোই ইসরাইলের সঙ্গে কোনো ধরনের সম্পর্ক রাখেনি। কিন্তু বিএনপি তাদের সঙ্গে বৈঠক করে প্রমাণ করেছে দলটি মুখে ইসলামের কথা বললেও প্রকৃত অর্থে তারা সুযোগ সন্ধানী। তারা ইসলামকেও অবমাননা করেছে। মোসাদের সঙ্গে বৈঠকের মাধ্যমে সারাবিশ্বের মুসলিমদেরও অপমান করেছে। বিএনপির কাছে মুসলিমদের সেন্টিমেন্ট গুরুত্বপূর্ণ নয় বরং আমেরিকা ও ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্কই তাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আসলাম চৌধুরীর সঙ্গে মোসাদ এজেন্ট ও লিকুদ পার্টির নেতা মেন্দি এন সাফাদির বৈঠকের ছবি ও খবর সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এ নিয়ে দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি হলে বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, এটি ছিল আসলামের ব্যক্তিগত বৈঠক। তবে, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ মনে করছে, মোসাদের সঙ্গে মিলে সরকার পতনের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful