Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ :: ৮ আশ্বিন ১৪২৫ :: সময়- ৮ : ১০ পুর্বাহ্ন
Home / লালমনিরহাট / লালমনিরহাটে ট্রেনে টিটি’র হাতে নারী ও পুরুষ যাত্রী লাঞ্চিত, পরিচালক অবরুদ্ধ

লালমনিরহাটে ট্রেনে টিটি’র হাতে নারী ও পুরুষ যাত্রী লাঞ্চিত, পরিচালক অবরুদ্ধ

নিয়াজ আহমেদ সিপন, লালমনিরহাট প্রতিনিধি॥ লালমনিরহাট-বুড়িমারী গামী করতোয়া এক্সপ্রেসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়কে কেন্দ্র করে ট্রেনের কর্তব্যরত টিটি’র হাতে ট্রেনযাত্রীকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে কয়কজন নারী যাত্রী ছিলেন বলে জানাগেছে।

বুধবার (১৫ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টার দিকে লালমনিরহাট-বুড়িমারী গামী করতোয়া এক্সপ্রেসে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিক্ষুপ্ত যাত্রীরা হাতীবান্ধা রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেন পরিচালককে কিছুক্ষণ অবরুদ্ধ করে রাখেন।

লাঞ্ছিত নারী ট্রেনযাত্রীর অভিযোগ থেকে জানা যায়, আদিতমারী ষ্টোশন মাষ্টার টিকেট না থাকার কথা বলে তিনি ট্রেনে টিকিট নিতে বলেন। কিন্তু ট্রেনের টিটি’র কাছে টিকিট চাইলে ১শত টাকা জরিমানা কথা বলেন। যাত্রীরা টাকা না দিতে চাইলে এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে যায় ট্রেনের টিটি। ওই ট্রেনে করে তার গ্রামের পাটগ্রামে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছিলেন।

ওই ট্রেনের কয়েকজন পুরুষ যাত্রী জানান, বুধবার দুপুরে লালমনিরহাটের আদিতমারী স্টেশনে টিকেটের জন্য গেলে স্টেশন মাস্টার জামিল আহম্মেদ জন টিকেট নেই বলে জানান। তিনি যাত্রীদের ট্রেনে টিকেট করার পরামর্শ দেন। কয়েকজন যাত্রী ট্রেনে উঠে টিটি’র কাছে টিকেটের জন্য যায়। টিটি জিয়াউর রহমান যাত্রীদের কাছে অতিরিক্তি ভাড়া আদায় করতে থাকে। এ নিয়ে যাত্রীদের সাথে টিটি’র বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। এ সময় টিটি নারীসহ কয়েকজন যাত্রীকে লাঞ্চিত করেন। একজন যাত্রীর গায়ে হাত তোলেন ট্রেনের টিটি। ট্রেনটি হাতীবান্ধা স্টেশনে এলে যাত্রীরা ট্রেনের পরিচালক বজলুর রহমানকে অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে তিনি বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

পাটগ্রামের নারী যাত্রী আরো বলেন,‘যদি লালমনিরহাট-বুড়িমারী গামী করতোয়া এক্সপ্রেসে ট্রেনে ৫০০ যাত্রী যায়, তার মধ্যে একশ’ যাত্রী যায় বিনাটিকিটে।, আদিতমারীর স্টেশন মাস্টারের সাথে টিটির অব্যশই কমিশন রয়েছে। আর কাউন্টারে তো টিকিট পাওয়া যায় না, তাহলে যাত্রীরা কী করবে?’ টিটি রসিদ দিতে পারে না। জরিমানা করলে টিটি’র একটি জরিমানা রসিদ দিতে হয় সেটি কোন যাত্রী হাতে দেয় না ট্রেনের টিটি। যাত্রী আরো বলেন, আদিতমারীর স্টেশন মাস্টারের কারণে ট্রেনের টিকিটে যাত্রীদের না নেওয়ার আগ্রহ না থাকায়, ট্রেনের টিটি ও গার্ডের পকেট ভারী হচ্ছে। ফলে লোকসান গুণছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

লালমনিরহাট রেলওয়ের সহকারী ট্রাফিক কর্মকর্তা সাজ্জাদ হোসেন জানান, বিষয়টি তিনি অবগত হয়েছেন। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবে বলে জানান তিনি।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful