Today: 24 Jun 2017 - 09:30:47 am

লালমনিরহাটে ইছালে ছওয়াব অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তার বিরুদ্ধে মামলা

Published on Thursday, April 20, 2017 at 8:32 pm

নিয়াজ আহমেদ সিপন, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: প্রতিবছরের ন্যায় লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দইখাওয়া এলাকায় দরবেশ সাহেবের ইছালে ছওয়াব উপলক্ষে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে সেখানকার আয়োজক কমিটি। ওই দরবেশ সাহেবের ইছালে ছওয়াবে দোয়া মাহফিলে উপস্থিত না হওয়ায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার(২০ এপ্রিল) বিকেলে বাদি পক্ষের আইনজীবি অ্যাডভোকেট আজিজুল ইসলাম দুলাল মামলার একমাত্র আসামি মাওলানা মুফতী আব্দুল ওয়াদুদ সিদ্দীকীকে আগামি ২২ মে লালমনিরহাট চিফ-জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেছে বলে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, প্রত্ছিরের ন্যায় চলতি বছর উপজেলার দইখাওয়া এলাকায় দরবেশ সাহেবের ইছালে ছওয়াব উপলক্ষে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে কমিটি। এতে ঢাকা তিতুমির কলেজের সাবেক আরবি শিক্ষক আলাহাজ্ব মাওলানা মুফতী আব্দুল ওয়াদুদ সিদ্দীকীকে প্রধান বক্তা হিসেবে মনোনীত করা হয়। সেই অনুযায়ী ওই প্রধান বক্তার দেয়া সময় অনুযায়ী গত ৩০ মার্চ ২০১৭ তারিখ ছিল ইছালে ছওয়াবের নির্ধারিত দিন। তবে ঢাকায় বসবাসকারী প্রধান বক্তার সম্মানি হিসেবে ১৫ হাজার টাকা চাওয়া হলে অনুষ্ঠানের আগেই বিকাশ নম্বরের মাধ্যমে দুই হাজার টাকা অগ্রীম হিসেবে পাঠানো হয়। বাকি টাকা ইছালে ছওয়াবের দোয়া মাহফিল শেষে পরিশোধের কথা ছিল। আর তাই কয়েকদিন ব্যাপি প্রচার-প্রচারণা শেষে নির্ধারিত দিনে ইছালে ছওয়াবের কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা শেষ পর্যন্ত অনুষ্ঠানে না আসায় ধর্মপ্রান মুসুল্লিদের তোপের মুখে পড়ে কমিটির লোকজন। পরে পার্শ্ববর্তী উপজেলা থেকে জনৈক মাওলানাকে এনে কোন রকমে ওইদিনের অনুষ্ঠান শেষ করা হলেও নানা সমালোচনার মুখে পড়েন আয়োজকরা।

গত মঙ্গলবার লালমনিরহাট চিফ-জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে ওই ইছালে ছওয়াব ও দোয়া মাহফিলের প্রধান বক্ত মাওলানা মুফতী আব্দুল ওয়াদুদ সিদ্দীকী‘র বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দায়ের করেন কমিটির সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আয়োজক কমিটির সা. সম্পাদক আমিনুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘ওই মাওলানা সাহেব বায়নাপত্র নিয়েও আমাদের অনুষ্ঠানে আসেননি। এজন্য আমরা এলাকার মানুষজনের তোপের মুখে পড়েছি। তাই বাধ্য হয়েই তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছি।’

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে মামলার আসামি মাওলানা মুফতী আব্দুল ওয়াদুদ সিদ্দীকী বলেন, ‘আমি ওইদিন ঢাকা থেকে রংপুর পর্যন্ত গিয়ে জাকির পার্টির সভাপতির নির্দেশে জরুরী প্রয়োজনে ফিরে এসেছি।’ এসময় তিনি নিজেকে জাকের পার্টির কেন্দ্রিয় নেতা বলে পরিচয় দেন। আর ওই ওয়াজ মাহফিলের জন্য দুই হাজার টাকা বায়না নেয়ার কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমি পরবর্তীতে ওই এলাকায় একটি ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করতে বলেছি। সেখানে আমি বক্তব্য দিবো বলেও কমিটির লোকজনকে জানিয়ে দিয়েছি।’

মতামত