Today: 25 Jun 2017 - 04:18:05 am

সাইবার আক্রমণে পুরো বিশ্ব বিপর্যস্ত

Published on Saturday, May 13, 2017 at 7:22 am

ডেস্ক: রেনসোমওয়্যারের মাধ্যমে ব্যাপক আকারে সাইবার আক্রমণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে পুরা বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন। মূলত এসব প্রতিষ্ঠানের অনলাইন ও কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক করার মাধ্যমে টাকা আদায় করতে এ কাজটি করা হয়েছে। রেনসমওয়্যার হচ্ছে হ্যাকিং’এর জন্য বানানো একধরণের সফটওয়্যার। অজানা স্থান থেকে এ ধরণের সফটওয়্যার সাইবার দুনিয়ায় ছড়িয়ে দিয়ে টাকা দাবি করা হয়।

কয়েক হাজার অবস্থানে কম্পিউটারগুলোর কার্যক্রম একটি প্রোগ্রাম দ্বারা লক করে দেয়া হয়েছে, যা উম্মুক্ত করে দেয়ার বিনিময়ে বিটকয়েনে ৩০০ ডলার দাবি করা হয়েছে। এক বিটকয়েন প্রায় দু'হাজার ডলারের কাছাকাছি। তবে হ্যাকারদের সম্পর্কে এখনো কিছু জানা যায়নি।

যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া, স্পেন, ইতালি,পর্তুগাল, তাইওয়ানসহ ৭৪ টি দেশ এ সাইবার আক্রমণের শিকার হয়েছে বলে জানা গেছে। নিরাপত্তা গবেষকরা ঘটনাগুলোকে একসঙ্গে অনুসন্ধান করে দেখছেন ।

একজন সাইবার-নিরাপত্তা গবেষক টুইটারে পোস্ট করেছেন যে, “তিনি এ ধরনের কয়েকহাজার সাইবার আক্রমণের ঘটনা সনাক্ত করেছেন, যেগুলো ওয়াননাক্রাই ও বিভিন্ন নামে দেখা গেছে।” সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান এভাস্টের গবেষক জ্যাকুব ক্রসটেক বলছেন, “ব্যাপক আকারে এ হামলা হয়েছে।”অন্যদিকে, সাইবার নিরাপত্তা সংস্থা ক্যাসপারস্কি বলছে, “৭৪ টি দেশে রেনসমওয়্যারটি সাইবার আক্রমণে সফল হয়েছে এবং এটি ক্রমান্বয়ে আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে”।

বিশেষজ্ঞরা রেনসমওয়্যার সংক্রমণের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও অনুসন্ধানের মাধ্যমে চেষ্টা করছেন এ হ্যাকিং থেকে মুক্তি পেতে। তবে তারা এমন একটি সিস্টেম ব্যবহার করছেন যা দ্য শাড ব্রোকার্স নামের এক গোষ্ঠী সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থা (এনএসএ) থেকে চুরি করা হয়েছিল বলে দাবী করা হয়।

মার্চে এরকম একটি ব্যবস্থা মাইক্রোসফট কোম্পানিও চালু করে কিন্তু কিন্তু অনেক সিস্টেম আপডেট করা না থাকতে পারে, যার কারণে রেনসমওয়্যারের আক্রমণের শিকার হওয়ার সুযোগ থেকে যায়। নিরাপত্তা গবেষকরা লক্ষ্য করেছেন যে, কম্পিউটারের ভিতরে একবার প্রবেশ করে নিজেই পুরা সিস্টেমে ছড়িয়ে যাচ্ছে।

টেলিকম খাতের বৃহৎ প্রতিষ্ঠান টেলিফোনিকা বলছে, তারা সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে সচেতন ছিলেন যার কারণে তাদের গ্রাহকসেবায় কোন ধরণের প্রভাব ফেলতে পারেনি।
পর্তুগাল টেলিকম রয়টার্সকে জানায় যে, “ এটি আমাদেরকেও আঘাত করেছে তবে আমাদের সেবাসমূহকে আক্রান্ত করতে পারেনি।”রাশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল কোম্পানি মেগাফন’র মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন যে, এ সমস্যা তাদের কিছু কম্পিউটারেও সংক্রমিত হয়েছে।

সাইবার প্রযুক্তিবিদ কেভিন বোমন্ট বলেন, “এটি অত্যন্ত গুরুতর একটা সাইবার আক্রমণ, ইউরোপ জুড়ে এভাবে সংক্রমিত হতে আগে কখনো দেখিনি।” সূত্র: বিবিসি

মতামত