Today: 29 Jun 2017 - 03:04:08 pm

পঞ্চগড়ে নিখোঁজ শিশুর ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার

Published on Thursday, May 18, 2017 at 12:55 pm

পঞ্চগড় প্রতিনিধি: পঞ্চগড়ে তুলারডাঙ্গায় নিখোঁজের একদিন পর আশামনি নামে চার বছরের এক শিশুর ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে বাসায় খেলাধুলার এক পর্যায়ে নিখোঁজ হয় আশামনি। বুধবার বিকেলে প্রতিবেশী জাহাঙ্গীরের শোয়ার ঘরের পেছন থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানায়, মঙ্গলবার দুপুরে শহরের তুলারডাঙ্গা মহল্লার আশরাফুল ইসলামের একমাত্র মেয়ে আশামনি খেলার এক পর্যায়ে নিখোঁজ হয়। এরপর থেকে প্রতিবেশীসহ পরিবারের লোকজন বিভিন্ন স্থানে শিশুটির খোঁজ করে। রাতভর জগদল এলাকার এক ওঝাঁ ডেকে শুরু হয় তন্ত্রমন্ত্র। তন্ত্রমন্ত্রের মাধ্যমে সেই তান্ত্রিক বলে দেন সময়মতো শিশুটিকে পাওয়া যাবে।

পরে বুধবার বিকেলে প্রতিবেশী জাহাঙ্গীরের ছেলে সাজু (১৪) ঘরের পেছনে প্রস্রাব করতে গেলে কথিত জ্বিন তার সামনে শিশুটিকে উপর থেকে ফেলে দেয়। সঙ্গে সঙ্গেই সে চিৎকার দিয়ে জ্ঞান হারায়। তার চিৎকারে শিশুটির চাচা মো. আলম প্রথমে শিশুটিকে দেখতে পান। এক পর্যায়ে শিশুটির মা লিপি আক্তার তার একমাত্র মেয়ের মরদেহ কোলে তুলে নেন। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে নেয়।

এদিকে ময়নাতদন্ত ছাড়াই শিশুটির মরদেহ নিতে তার পরিবারের সদস্যসহ তুলারডাঙ্গা মহল্লার শতাধিক বাসিন্দা থানায় ভিড় করে। তবে রাত ১০টায় প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মরদেহ হাসপাতালেই ছিল।

নিহত আশামনির বাবা আশরাফুল ইসলাম এবং মা লিপি আক্তার বলেন, আমাদের মেয়েকে জ্বিন নিয়ে গেছে। সময়মতো জ্বিন ফেরত দিয়েছে। ওঝাঁ (তান্ত্রিক) ডেকে প্রতিবেশীসহ তারা নিশ্চিত হয়েছেন দাবি করে তারা বলেন, কারও প্রতি আমাদের কোনো প্রকার সন্দেহ বা অভিযোগ নেই। এ জন্য ময়নাতদন্ত না করেই শিশুটিকে দাফন করতে চাই।

সহকারী পুলিশ সুপার সুদর্শন রায় বলেন, পরিবারের কারও কোনো অভিযোগ নেই। তারা বলছেন এটা অবশ্যই জ্বিনের কাণ্ড। ময়নাতদন্তের জন্য শিশুটির মরদেহ মর্গে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। পাশাপাশি ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ নিহতের পরিবারের সদস্য এবং সংশ্লিষ্টদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

মতামত