Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ২০ অগাস্ট, ২০১৭ :: ৫ ভাদ্র ১৪২৪ :: সময়- ৯ : ১৩ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / চোরাকারবারী গডফাদারদের সৈয়দপুর জিআরপি থানায় হামলা

চোরাকারবারী গডফাদারদের সৈয়দপুর জিআরপি থানায় হামলা

বিশেষ প্রতিনিধি ১৯ মে॥ চোরাকারবারীদের গডফাদাররা নীলফামারীর সৈয়দপুর রেলওয়ে থানায়(জিআরপি) হামলা চালিয়ে আটককৃত দুই চোরাকারবারী ও ও জব্দকৃত মালামাল লুট করেছে। এ সময় হামলাকারীদের আঘাতে তিনজন নারী সহ ৫ জন পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছে। তাদের সৈয়দপুর হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এই ঘটনা নিয়ে গোটা নীলফামারী জেলায় তোলপাড় সৃস্টি করেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (১৮ মে) রাত ৯টার দিকের এই ঘটনায় রাতেই জিআরপি থানার এটিএসআই হাফিজুর রহমান বাদী হয়ে ৮জন নামীয় সহ অজ্ঞাত ৪০/৫০ জনকে আসামী করে দন্ডবিধির ৯টি ধারা উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করে(মামলা নম্বর ১) । এ ছাড়া আটককৃত যে দুইজনকে হামলাকারীরা ছিনিয়ে নিয়ে যায় তাদের বিরুদ্ধে পৃথক আরেকটি মামলা করা হয়।
আহত জিআরপি থানার পুলিশ সদস্যরা হলো দারুল হুদা (কং নম্বর ৩১১), এমদাদুল ইসলাম (কং নম্বর ৮৫), লাভলী বাইন (কং নম্বর ১১৬৪), রোজিনা আক্তার (কং নম্বর ৫৭৬), ও নেহার আক্তার রিয়া (কং নম্বর ১১৬০)। এ ঘটনায় আসামীদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে। তবে এ রির্পোট লিখা পর্যন্ত কোন আসামী আটক হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।
আজ শুক্রবার সকালে ঘটনা সর্ম্পকে সৈয়দপুর রেলওয়ে (জিআরপি) থানার ওসি একেএম লুৎফর রহমান জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি সৈয়দপুর স্টেশনে আসে। গোপন সংবাদে রেলওয়ে পুলিশের একটি দল একটি কোচে তল্লাশী চালায়। তল্লাশীকালে  অবৈধ ভারতীয় পণ্যসহ সৈয়দপুর পৌর শহরের সাহেবপাড়া মহল্লার আব্দুল্লাহ ছেলে মোহাম্মল আলী হীরা (৫২) এবং একই মহল্লার শফিকুল ইসলামের স্ত্রী ফুলমতিকে (৫৫) আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছে পাওয়া যায় ২৪ পিস ভারতীয় অবৈধ ফতুয়া, ২২ পিস বিভিন্ন রংয়ের পায়জামা, ১৯টি বড় সাইজের ফ্রক, ১১টি বড় সাইজের পায়জামা, ২০ পিস বড় সাইজের ওড়না এবং ৮পিস বড় সাইজের গেঞ্জি। আটককৃতরা বিরামপুর রেলওয়ে স্টেশনে ওইসব অবৈধ ভারতীয় পণ্য নিয়ে সৈয়দপুরের উদ্দেশ্যে নীলসাগর ট্রেনটিতে ওঠেছিল। জব্দকৃত পণ্যগুলোর মূল্য প্রায় ৫০ হাজার টাকা। অবৈধ এই পণ্য সহ উক্ত দুইজনকে আটক করে জিআরপি থানায় রাখা হয় এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।
এ ঘটনার দায়েরকৃত মামলায় দেখা যায়, ওই (গতকাল বৃহস্পতিবার ) দিন রাত ৯টার দিকে  বিএনপি ও আওয়ামীলীগের বেশ কিছু নেতার নেতৃত্বে ৪০/৫০ জন  সৈয়দপুর রেলওয়ে (জিআরপি) থানায় ঢুকে অর্তকিতভাবে হামলা চালিয়ে জব্দকৃত পণ্য লুট ও আটককৃতদের ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যরা তাদের বাধা দিতে গেলে হামলাকারীদের আঘাতে উক্ত ৫ পুলিশ কনস্টেবলও আহত হয়।
উক্ত মামলার বাদী সৈয়দপুর জিআরপি থানার  এটিএসআই হাফিজুর রহমান বাদী হয়ে তার দায়েরকৃত মামলায় যে ৯জন নামীয় সহ অজ্ঞাত ৪০/৫০ জনকে আসামী করে। নামীয় আসামীরা হলো সৈয়দপুর বিএনপির নেতা ও সাবেক পৌর কাউন্সিলার ইকবাল হোসেন গুড্ডু ও কালু, সৈয়দপুর পৌর আঃলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়দুর রহমান শাহীন, সৈয়দপুর পৌর আঃলীগের সাধারন সম্পাদক মোজ্জামেল হক, সৈয়দপুর পৌর আঃলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু, সৈয়দপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি  টিটু, ছাত্রলীগে কর্মী শাহীন ও বাবু। মামলায় তাদের বিরুদ্ধে ৯টি ধারা আনা হয়। ধারাগুলো হলো ১৪৩/৪৪৭/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩/৩৭৯/২২৪/১০৯/১১৪।
সৈয়দপুর জিআরপি থানা পুলিশ সুত্র মতে আসামীদের গ্রেফতারে সৈয়দপুর থানা পুলিশ সহ অভিযান চলছে। তবে আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful