Today: 20 Jul 2017 - 10:37:43 pm

দিনাজপুরে প্রমিলা ক্রিকেটারকে যৌন নিপীড়ন; কোচ জেল-হাজতে

Published on Tuesday, July 11, 2017 at 2:50 pm

শাহ্ আলম শাহী,স্টাফ রিপোর্টার,দিনাজপুর থেকেঃ অবশেষে দিনাজপুরে বহুল আলোচিত প্রমিলা ক্রিকেটারদের যৌন নিপীড়নে অভিযুক্ত ক্রিকেট কোচ আবু সামাদ মিঠুকে জেল-হাজতে প্রেরণ করেছে আদালত।
আজ মঙ্গলবার দুপুর একটায় যৌন নিপীড়নে অভিযুক্ত ক্রিকেট কোচ আবু সামাদ মিঠু দিনাজপুর অরিরিক্ত চীফ জুটিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বিশ্বনাথ মন্ডল তার জামিন না মঞ্জুর করে জেল-হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।
দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় ক্রিকেট কোচ আবু সামাদ মিঠু বিরুদ্ধে শনিবার রাতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে যৌন নিপীড়নের শিকার এক প্রমিলা ক্রিকেটারে পিতা এই মামলা দায়ের করেন।
মামলা দায়েরের কথা স্বীকার করে দিনাজপুর কোতয়ালী থানার ওসি রেদওয়ানুর রহিম জানান,যৌন হয়রানীর শিকার প্রমিলা ক্রিকেটারের পিতা এস.এ. নুরুজ্জামান মামলার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, আমার নাবালিকা মেয়ে গত ৩ বছর ধরে দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী সদস্য ও প্রচেষ্টা ক্রিকেট কোচিং সেন্টারের কোচ আবু সামাদ মিঠুর অধীনে দিনাজপুর গোর-ই শহীদ বড় মাঠে ক্রিকেট অনুশীলন করে আসছে। গত ১ জুন বৃহস্পতিবার বিকেলে অনুশীলন করার সময় আমার মেয়ে বাম পায়ে বলের আঘাত পায় ও পা ফুলে যায়। তখন অন্য এক প্রমিলা ক্রিকেটার আমার মেয়েকে বড়মাঠে অবস্থিত স্পোর্টস ভিলেজে নিয়ে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত পায়ে বরফ লাগিয়ে দেয়। এসময় ক্রিকেট কোচ আবু সামাদ মিঠু স্পোর্টস ভিলেজে এসে সহযোগী প্রমিলা ক্রিকেটারকে সুকৌশলে মাঠে চলে যেতে বলে। ওই প্রমিলা ক্রিকেটার মাঠে চলে গেলে আবু সামাদ মিঠু আমার মেয়েকে একাকী পেয়ে যৌন কামনা চরিতার্থ করার উদ্দেশে জড়িয়ে ধরে। এতে আমার মেয়ে বাধা দিলে তাকে বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকী প্রদান করে। এসময় আমার মেয়ে আঘাতপ্রাপ্ত পায়ের ব্যথায় ছটফট করে। এরপর ক্রিকেট কোচ আবু সামাদ মিঠু জোরপূর্বক আমার মেয়ের শ্লীলতাহানী ও যৌন নিপীড়ন করে।
আবু সামাদ মিঠুর হুমকি ও পারিবারিক, সামাজিক এমনকি নিজের ভবিষ্যতের কথা ভেবে উপস্থিত কাউকে কিছু না বলে আমার মেয়ে বাড়িতে চলে আসে এবং শারীরিক ও মানসিকভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। আমার মেয়ে বাড়িতে চলে আসার পর নীরব হয়ে যায় ও খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দেয় এবং মাঠে যেতে চায়না। তার এসব আচরনে আমি ভয় পাই এবং তার এক বিশ্বাসী ঘনিষ্ট সহযোগি প্রমিলা ক্রিকেটারের সাহায্যে ঘটনার বিষয় জানতে পাই।
এই ঘটনার বিষয় দিনাজপুর জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিতভাবে অবহিত করি। ইতিপূর্বেও আবু সামাদ মিঠু প্রমিলা ক্রিকেটারদের সাথে একই ধরনের আচরণ করে।
এজাহারে নির্যাতিতা প্রমিলা ক্রিকেটারের বাবা উল্লেখ করেন, মেয়ে শারীরিক ও মানসিকভাবে অসুস্থ্য থাকায় এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থা, বিসিবিসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ প্রদানের পর প্রতিকার না পাওয়ায় থানায় এজাহার প্রদানে বিলম্ব হলো।
উল্লেখ্য, আবু সামাদ মিঠু, দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী সদস্য এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবির দিনাজপুরের কোচ। দিনাজপুরবাসী’র আন্দোলনের তোপের মুখে ইতোমধ্যে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মিঠুকে বিসিবি এবং দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক গঠন করেছেন তদন্ত কমিটি।
এদিকে যৌন নিপীড়নকারী আবু সামাদ মিঠুর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবিতে বেশ কিছুদিন ধরেই আন্দোলন করে আসছে দিনাজপুর নারী নির্যাতন প্রতিরোধ সম্মিলিত জোটসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন।
এই আন্দোলনকে কেন্দ্র করে দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলমের সাথে আন্দোলকারীদের অনাকাংখিত ঘটনা ঘটে যায়। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের টেবিলের গ্লাসে চপেটাঘাত করে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম দেখে নেয়ার হুমকি প্রদানের অভিযোগে আন্দোলনকারী ৪ নেতার নাম উল্লেখসহ ২৫/৩০ জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে একটি মামলা দায়ের হয় কোতয়ালী থানায়। কাতয়ালী থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) রেদওয়ানুর রহিম জানান, জেলা প্রশাসকের পক্ষে সহকারী কমিশনার (গোপনীয়) আফতাবুজ্জামান আল ইমরান বাদী হয়ে দ্রুত বিচার আইনে কোতয়ালী থানায় বৃহস্পতিবার রাতে এই মামলা করেছেন। মামলা’র আসামীরা হলেন,দিনাজপুর নারী নির্যাতন প্রতিরোধ সম্মিলিত জোটের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, সদস্য সচিব নুরুল মতিন সৈকত, সদস্য সহিদুল ইসলাম ও ড. মারুফা বেগম ফেন্সিসহ আরও অজ্ঞাত ২৫/৩০ জন।
আবুল কালাম আজাদ-সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম দিনাজপুরের আহ্বায়ক ও দিনাজপুর নাগরিক উদ্যোগের সভাপতি, নুরুল মতিন সৈকত-কেন্দ্রীয় খেলাঘর দিনাজপুরের সাধারণ সম্পাদক ও দিনাজপুর সঙ্গীত মহাবিদ্যালয়ের প্রদর্শক, সহিদুল ইসলাম-জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল দিনাজপুরের সাধারণ সম্পাদক এবং ড. মারুফা বেগম-বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, দিনাজপুরের সাধারণ সম্পাদক ও দিনাজপুর সঙ্গীত মহাবিদ্যালয়ের উপাধ্যক্ষ।