Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ :: ৩ পৌষ ১৪২৪ :: সময়- ২ : ৫০ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / খুলনাকে হারিয়ে শেষ চারে মাশরাফির রংপুর

খুলনাকে হারিয়ে শেষ চারে মাশরাফির রংপুর

 বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এবারের আসরে রংপুরে রাইডার্স অন্যতম শক্তিশালী দল। তবে ব্র্যান্ডন ম্যাককালাম, ক্রিস গেইলদের নিয়ে গড়া দলটা তাদের ম্যাচগুলো জিতেছে খুবই কষ্ঠে। শনিবার তো মাত্র ৯৭ রানে অলআউট হয়ে যায় কুমিল্লার বিপক্ষে। তাতে ৪ উইকেটে ম্যাচ হেরে শেষ চার নিয়ে শঙ্কায় পড়ে গিয়েছিল রংপুর। তবে রোববার খুলনা টাইটান্সকে ১৯ রানে হারিয়ে সেরা চার নিশ্চিত করে ফেলেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। খুলনা শেষ চার নিশ্চিত করেছিল আগেই।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে এদিন টস হেরে আগে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ১৪৭ রান করে রংপুর। ১৪৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতে পথেই ছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। কিন্তু রংপুরের বোলারদের দাপটে শেষ পর্যন্ত ম্যাচ হেরে গেল তারা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১২৮ রানে থেমেছে তাদের ইনিংস।

খুলনার শুধুটা ছিল সাবধানী। অন্যভাবে বললে রংপুরের রোলাররা খোলস ছেড়ে তাদের বের হতে দেয়নি। যদিও উদ্বোধনীয় জুটিতে ৬০ রান তুলেছিলেন নাজমুল হাসান শান্ত ও মাইকেল ক্লিঙ্গার।দলীয় ৬০ রানে ব্যক্তিগত ২০ রান করে ফেরেন শান্ত। এরপর আফিফও ফিরে যান দ্রুত। ৪৪ রানে করা ক্লিঙ্গারকে রবি বোপারা ফেরালে ম্যাচ জমে উঠে। ১২.৫ ওভারে ৩ উইকেটে ৮৩ রানে পরিণত হয় খুলনা।

এরপর রংপুরের সম্মিলিত বোলিংয়ে ভেঙ্গে পড়ে খুলনার ইনিংস। একে একে ফিরে যান মাহমুদউল্লাহ (৬), নিকোলাস পুরান (১), কার্লোস ব্র্যাথওয়েট (৬), আরিফুল হক (৬), জফরা আর্চার (১৯)। শেষ ২ ওভারে ২৫ রান প্রয়োজন ছিল খুলনার। ১৯ তম ওভারে মাত্র ১ রান নিতে পারে দলটি। শেষ ওভারে তাই ২৪ রান পয়োজন ছিল তাদের। খুলনা নিতে পারে মোটে ৪ রান। তাতে ১৯ রানের জয় রংপুরের।

রংপুর রোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ২ উইকেটে নেন রবি বোপারা। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন সোহাগ গাজী, উদানা, নাহিদুল ও নাজমুল।

এরআগে মোহাম্মদ মিথুনের অপরাজিত ফিফটিতে লড়াইয়ের পুঁজি পায় খুলনা। এদিন রংপুরের থীর গতির ব্যাটিংয়ে মনে হচ্ছিল খুব বেশি দূর এগুবে না তাদের ইনিংস। তবে চার নম্বরে ব্যাট করতে নামা মিথুন ঠিকই দলকে লড়ার পুঁজি এনে দেন। তার ৩৫ বলের অপরাজি ৫০ রানের ইনিংসে ছিল ৪টি ছক্কা ও ২টি চার।

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নামা রংপুর ১১ রানে হারায় প্রথম উইকেট। জিয়াউর রহমান ফিরে যান ৮ রান করে। এরপর গেইল-ম্যাককালাম জুটি বেশি দূর এগুতে পারেনি। ম্যাককালাম ব্যক্তিগত ১৫ রান করে ফিরে যান। ম্যাককালাম ব্যর্থ হলেও ছন্দে ছিলেন ক্রিস গেইল। তবে খুলনার বোলারদের তৃতীয় শিকার হন তিনি। ২৭ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় করেছেন ৩৮ রান।

চার নম্বরে নামা মিথুন প্রথমে সঙ্গী হিসেবে পাচ্ছিলেন না কাউকেই। একে একে ফিরে যান রবি বোপারা (১১), কাপুগেদেরা (২), নাহিদুল ইসলাম (৬)। তবে শেষে তাকে ভরসা দিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ১১ বলে ১৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন মাশরাফি।

খুলনার পক্ষে জফরা আর্চার সর্বাধিক ২ উইকেট নেন। এছাড়া ১টি করে উইকেট নিয়েছেন আবু জায়েদ, শফিউল ইসলাম, মোহাম্মদ ইরফান ও ব্র্যাথওয়েট। দারুণ ইনিংসের জন্য ম্যাচ সেরা হয়েছেন মিথুন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

রংপুর রাইডার্স : ২০ ওভারে ১৪৭/৬ (ক্রিস গেইল ৩৪, জিয়াউর ৮, ম্যাককালাম ১৫, মিথুন ৫০*, বোপারা ১১, কাপুগেদেরা ২, নাহিদুল ৬, মাশরাফি ১৫*; জায়েদ ১/১৪, আফিফ ০/১৮, আরচার ২/২৮, শফিউল ১/৪৮, ইরফান ১/২০, ব্র্যাথওয়েট ১/১০)।

খুলনা টাইটান্স : ২০ ওভারে ১২৮/৮ (শান্ত ২০, ক্লিঙ্গার ৪৪, আফিফ ৮, মাহমুদউল্লাহ ৬, পোরান ১, ব্র্যাথওয়েট ৬, আরিফুল ৬, আর্চার ১৯, ইরফান ১*, শফিউল ৪; গাজী ১/২৬, মাশরাফি ০/২১, উদানা ১/৩৭, নাহিদুল ১/১৬, নাজমুল ১/১৯, বোপারা ২/৪)।

ফল : খুলনা ১৯ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : মোহাম্মদ মিথুন (রংপুর)।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful