Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৮ :: ৮ কার্তিক ১৪২৫ :: সময়- ১০ : ৫৪ অপরাহ্ন
Home / নীলফামারী / সামান্য বষর্নে ডোমার পৌরবাসীর ভোগান্তি

সামান্য বষর্নে ডোমার পৌরবাসীর ভোগান্তি

  বিশেষ প্রতিনিধি ২০ এপ্রিল॥ সামান্য বৃষ্টিপাতে নীলফামারীর ডোমার পৌরবাসীদের জনজীবন বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে। জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে প্রধান সড়ক সহ প্রায় সড়ক গুলোতে। পৌরশহরের বাসা বাড়ি গুলোও তলিয়ে গেছে।
দূর্ভোগ কবলীত ভোগান্তির শিকার সাধারন পৌরবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।
এদিকে এ অবস্থার দায়ভার সড়ক বিভাগের উপর চাপিয়ে আজ শুক্রবার শহরে মাইকিং করে পৌর কর্তৃপ। সড়ক বিভাগ বলছে ড্রেন নির্মানের দায়িত্ব পৌরসভার আবার পৌর কর্তৃপ বলছে ড্রেন নির্মানের সামর্থ আমাদের নেই। তাহলে এ দায় কার?
ডোমারপৌরবাসী এই দুর্ভোগের জন্য সরাসরি দায়ি করেছে ডোমার উপজেলা বিএনপির সভাপতি পৌরমেয়র মনছুরুল ইসলাম দানুর ব্যর্থতাকে দায়ী করে আগামী ২৫ এপ্রিল বৃহৎ পরিসরে ডোমার শহরে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন ও সমাবেশের ডাক দিয়েছে পৌর নাগরিক ফোরাম।
জানা যায়, ডোমার পৌরশহরের ভেতর দিয়ে যে প্রধান সড়কটি পঞ্চগড় ও নীলফামারী গেছে সেটি সড়ক বিভাগের আওতায়। এই সড়কের উপর দিয়ে যে সব অটোবাইক ও ভ্যান চলাচলা করে তাদের কাছ হতে প্রতিদিন ১০টাকা করে চাঁদা তুলে ডোমার পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। গত বর্ষায় ডোমার ছিল নদী। সড়কটি ইতোমধ্যে সড়কবিভাগ কয়েক দফায় সংস্কার করলেও পৌরকর্তৃপক্ষ ড্রেনেজে ব্যবস্থাগড়ে তুলতে না পারায় প্রধান সড়কটি সহ বিভিন্ন পাড়া মহল্লার সড়কগুলো সামান্য বৃস্টিতে তলিয়ে যাচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরে এলাকায় বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় ডোমারবাসী পড়েছে চরম ভোগান্তিতে। বৃস্টির পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় রাস্তার উপর জলাবদ্ধতা ও খানা-খন্দে ভরে গেছে। ফলে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সাধারন মানুষের ভোগান্তি চরমে উঠেছে। অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা।
এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে। পাশাপাশি ডোমার থেকে ডিমলা ও জলঢাকা উপজেলা যাওয়ার একমাত্র সড়ক এটি। শহরের মাঝখান দিয়ে যাওয়া ডোমার হাইস্কুল থেকে ডোমার ফিলিং ষ্টেশন পর্যন্ত পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ যাওয়ার প্রধান সড়কটির বর্তমানে করুন অবস্থা বিরাজ করছে। সড়ক সংস্কারের ব্যাপারে সড়ক বিভাগ বলছে ডোমার পৌরসভা কর্তৃপক্ষ ড্রেনেজ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে পারেনি। ফলে সড়কের পাশ দিয়ে পানি নিস্কাসনের ব্যবস্থা না থাকায় সড়ক সংস্কার সম্ভব হচ্ছে না। আর ড্রেনেজ ব্যবস্থা না হওয়া পর্যন্ত সড়ক সংস্কার করলেও তা টিকবে না। তাই সড়কের পাশে জরুরী ভাবে ড্রেন নির্মান করা দরকার। ওই ড্রেন নির্মানের দায়িত্ব পৌরসভার।
অপর দিকে ডোমার পৌর কর্তৃপ বলছে ড্রেন নির্মানের মতো অর্থ আমাদের নেই। তাই ড্রেন নির্মান করা আমাদের পে সম্ভব নয়। সড়কের এ অবস্থার দায়ভার সড়ক বিভাগের উপর চাপিয়ে শহরে মাইকিং করে পৌর কর্তৃপ। এ ব্যাপারে পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোর্শেদ বিন তরুন জানান,শহরের রাস্তাটির ব্যাপারে পৌর মেয়র উদাসিন।এমনকি মাসিক মিটিংয়েও এ বিষয়ে আলোচনা হয়না।৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আখতারুজ্জামান সুমন জানান,পৌরসভার কোন বরাদ্দ না থাকায় ড্রেন নির্মান সম্ভব হচ্ছে না।
ডোমার পৌরনাগরিক ফোরামের পক্ষে জানানো, আমরা আর কতকাল ভোগান্তি পোহাবো। পৌরকর্তৃপক্ষ ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। তাই প্রধান সড়ক সংস্কারের আগে ড্রেনেজ ব্যবস্থ নির্মানের দাবি নিয়ে আগামী ২৫ এপ্রিল বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনের ডাক দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে ডোমার পৌর মেয়রের সঙ্গে কথা বলার চেস্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful