Templates by BIGtheme NET
আজ- সোমবার, ২৫ জুন, ২০১৮ :: ১১ আষাঢ় ১৪২৫ :: সময়- ৪ : ১৯ অপরাহ্ন
Home / বিশ্বকাপ ফুটবল / শেষ ষোলোতেই মুখোমুখি ব্রাজিল-জার্মানি, আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স!

শেষ ষোলোতেই মুখোমুখি ব্রাজিল-জার্মানি, আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স!

ডেস্ক রিপোর্ট: স্বপ্নের বিশ্বকাপ একেবারে দুয়ারে দাঁড়িয়ে। সব জল্পনা কল্পনার অবসান হবে রাশিয়ায়। আর সব দলকে পাশ কাটিয়ে শিরোপার আনন্দে নাচবে একটি মাত্র দল। কার হাতে উঠবে শিরোপা আর কে হতাশায় ভুগবে সেটা জানতে চোখ রাখতে হবে রাশিয়ায়। শিরোপার দৌঁড়ে ব্রাজিল, জার্মানি, ফ্রান্স, আর্জেন্টিনা, স্পেন ঘুরে ফিরে এই নামগুলোই আসছে সবার মনে। ফেরারিট দলগুলোকে অন্তত সেমিফাইনাল পর্যন্ত দেখতে চান ফুটবল প্রেমীরা। তবে এবারের আসরে তেমনটা নাও হতে পারে। মূহূর্তের ভুলে দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই ছিটকে যেতে হতে পারে ব্রাজিল-জার্মানি অথবা ফ্রান্স-আর্জেন্টিনার মধ্যে দুটি দলকে। রাশিয়া বিশ্বকাপের সূচি কিন্তু এমনটিই বলছে।

এবারের বিশ্বকাপে ‘সি’ গ্রুপ রয়েছে ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, পেরু ও ডেনমার্ক। সামর্থ্যের বিচারে ফ্রান্সকেই এই গ্রুপের সেরা ভাবা হচ্ছে। তবে চমকে দিতে পারে ডেনমার্ক, পেরু বা অস্ট্রেলিয়ার যে কেউ। প্রতিপক্ষ দলগুলোকে হারাতে বেশ পরিশ্রম করতে হবে ফরাসিদের। কোনোভাবে ফ্রান্স যদি গ্রুপ সেরা না হতে পারে তাহলে কিন্তু বিপদ। কারণ শেষ ষোলোতে ‘সি’ গ্রুপের রানার আপের খেলা হবে ‘ডি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন দলের সঙ্গে। ‘ডি’ গ্রুপে অনেকেই আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে রাখছেন। মেসিদের এড়াতে হলে ফ্রান্সের গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।

একই কথা আর্জেন্টিনার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। ‘ডি’ গ্রুপে আর্জেন্টিনার সঙ্গী আইসল্যান্ড, ক্রেয়েশিয়া এবং নাইজেরিয়া। বিশ্বকাপে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে মেসিদের হারের রেকর্ড না থাকলেও সম্প্রতি প্রীতি ম্যাচে সাদা-আকাশি জার্সিধারীদের হারের স্বাদ দিয়েছে সুপার ঈগলরা। এছাড়া রেকিটিচ-মডরিচের ক্রোয়েশিয়াও মাথা ব্যাথার কারন হতে পারে ডি মারিয়া-হিগুইনদের জন্য। এই গ্রুপে পা হড়কালেই বিপদ আর্জেন্টিনার। আর্জেন্টিনা যদি গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন না হতে পারে আর ‘সি’ গ্রুপ থেকে ফ্রান্স যদি সেরা হয়ে শেষ ষোলোয় ওঠে তাহলে কিন্তু দ্বিতীয় রাউন্ডেই ফান্সকে পেয়ে যাবে আর্জেন্টিনা। আর এমনটি হলে শিরোপা প্রত্যাশী দুটি দলের মধ্যে একদলের বিদায় তো নিশ্চিত।

এবারের বিশ্বকাপে ব্রাজিল রয়েছে ‘ই’ আর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জার্মানি রয়েছে ‘এফ’ গ্রুপে। শেষ ষোলোয় ‘ই’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন খেলবে ‘এফ’ গ্রুপের রানার আপের সঙ্গে। অন্যদিকে ‘এফ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন খেলবে ‘ই’ গ্রুপের রানার আপের সঙ্গে।

‘ই’ গ্রুপে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের সঙ্গী সুইজারল্যান্ড, কোস্টারিকা ও সার্বিয়া। সেলেসাওরা যে ফর্মে আছে তাতে করে ব্রাজিলকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ছাড়া আর কিছু ভাবতে নারাজ ফুটবলপ্রেমীরা। তবে ফুটবলে অসম্ভব বলে কিছু নেই। ১৯৯৮ সালের আসরে চ্যাম্পিয়ন দল ফ্রান্স পরের আসরে গ্রুপ পর্বের বাধাই পার হতে পারেনি। ২০১০ সালের শিরোপাজয়ী স্পেনও গত আসরে সবাইকে হতাশ করে দেশে ফিরে আসে। সেই অনুসারে, ব্রাজিল যদি এই গ্রুপে ভালো না করতে পারে বা গ্রুপ সেরা না হতে পারে তাহলে কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে জার্মানিকে পেতে পারে নেইমাররা। গত আসরে জার্মানদের কাছে ৭-১ গোলের হারের স্মৃতিটা নিশ্চিয় ভোলেননি মার্সেলো-লুইসরা। সেই কারণে যে কোনো মূল্যে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করতে চাইবে তিতের দল।

অন্যদিকে গ্রুপ ‘এফ’ এ জার্মানির প্রতিপক্ষ মেক্সিকো, সুইডেন ও দক্ষিণ কোরিয়া। টনি ক্রুস, মেসিুত ওজিলদের জয় পাওয়াটা কিন্তু সহজ হবে না। অন্তত সুইডেন ও মেক্সিকোর বিপক্ষে জয় না পেলে জার্মানদের কপালে কিন্তু দু:খ আছে। কারণ গ্রুপ রানার আর হলে ব্রাজিলের মুখোমুখি হতে পারে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের।

এতোক্ষণ ধরে যা কচকচানি শুনলেন, তার সবটুকুই ‘যদি’নির্ভর, শর্তসাপেক্ষ। তবে একটি শর্তও যদি অপূর্ণ থাকে তাহলে কিন্তু দ্বিতীয় রাউন্ডেই ফাইনালের আবহ পেতে পারেন ফুটবল ভক্তরা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful