Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট, ২০১৯ :: ৮ ভাদ্র ১৪২৬ :: সময়- ১২ : ০৫ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / রংপুরের দুটি আসনে জামায়াতকে ছাড় দিচ্ছে বিএনপি!

রংপুরের দুটি আসনে জামায়াতকে ছাড় দিচ্ছে বিএনপি!

সেন্ট্রাল ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ২০ দলীয় জোটের কৌশল ও আসন বণ্টন এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে রংপুরে বিএনপি ও জামায়াত ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচন করবে বলে জানিয়েছেন উভয় দলের স্থানীয় একাধিক নেতা। বিএনপি নেতাদের থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে রংপুরের ৬টি আসনের মধ্যে ২টি আসনে জামায়াতকে ছাড় দেওয়া হতে পারে। বাদবাকি আসনে বিএনপি প্রার্থীরা প্রচারণার পাশাপাশি ভোটকেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন শুরু করেছেন।

স্থানীয় বিএনপি নেতারা জানান, নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে হাইকমান্ড থেকে নির্দেশনা পাওয়া গেছে। সে মতেই নেতাকর্মীরা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। অন্যদিকে জামায়াতের নেতাকর্মীরাও বিএনপির সঙ্গে মিলিতভাবে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তবে সরাসরি ভোটে অংশগ্রহণ করতে পারবে না বলে জামায়াতের প্রার্থীরা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়বেন।

বিএনপি-জামায়াতের স্থানীয় নেতাদের থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে, আগামী নির্বাচনে রংপুরের ৬টি আসনে বিএনপি-জামায়াতের সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন- রংপুর-১ আসনে জামায়াতের অধ্যক্ষ আব্দুল গনি, রংপুর-২ আসনে বিএনপির মোহাম্মদ আলী অথবা পরিতোষ চক্রবর্তী, রংপুর-৩ আসনে বিএনপির কাওছার জামান বাবলা, রংপুর-৪ আসনে বিএনপির এমদাদুল হক ভরসা, রংপুর-৫ আসনে জামায়াতের গোলাম রব্বানী এবং রংপুর-৬ আসনে বিএনপির সাইফুল ইসলাম।

উভয় দলের স্থানীয় নেতারা জানান, রংপুরের ৬টি আসনের মধ্যে রংপুর ১ ও রংপুর ৫ আসন জামায়াতকে ছেড়ে দেওয়া হতে পারে। এ দুটো আসনে বিএনপি কোনও প্রার্থী দেবে না। বাকি ৪টি আসনে বিএনপি প্রার্থীরা নির্বাচন করবেন। নিজেদের মধ্যে ভাগ-বাটোয়ারা করা আসনে বিএনপি ও জামায়াত পরস্পরকে সমর্থন দেবে এবং প্রচারণায় অংশ নেবে বলেও জানিয়েছেন নেতারা।

রংপুর-৫ আসনটি মিঠাপুকুর উপজেলা নিয়ে গঠিত। বিএনপি এ আসনটি জামায়াতকে ছেড়ে দিতে পারে। এ আসনে জামায়াতের সম্ভাব্য প্রার্থী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম রব্বানী। ইতোমধ্যে তিনি ব্যাপক গণসংযোগ করছেন বলে জানা গেছে। প্রচারণার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জামায়াত প্রার্থী গোলাম রব্বানী।

তিনি বলেন, দলের হাইকমান্ড দলের ও জোটের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন নিশ্চিত করায় নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেছি। তবে যেহেতু জামায়াতের এখনও নিবন্ধন নেই, সে কারণে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে জানান। বিএনপির সব নেতাকর্মী তার পক্ষে কাজ করছেন বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে রংপুর-১ গঙ্গাচড়া আসনেও জামায়াতকে ছাড় দেওয়া হতে পারে বলে জানা গেছে। এ আসনে প্রার্থী হচ্ছেন অধ্যক্ষ আব্দুল গনি। ইতোমধ্যে জামায়াত প্রার্থী নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেছেন। গঙ্গাচড়া উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ওয়াহিদুজ্জামান মাবু বলেন, এ আসনে আমাদের দলের কেউ নির্বাচন করবেন না। এখানে জামায়াত নির্বাচন করবে। তিনিও স্বীকার করেন জামায়াতের প্রার্থী জোরেশোরে নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেছেন।
এদিকে রংপুর সদর-৩ আসনে প্রার্থী হিসেবে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী কাওছার জামান বাবলার নাম শোনা যাচ্ছে। তিনি মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। ইতোমধ্যে তিনি নির্বাচনি প্রচারণাও শুরু করেছেন।

বিএনপি নেতা কাওছার জামান বাবলা বলেন, বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে এটা ৯০ ভাগ নিশ্চিত। দলের হাইকমান্ড রংপুর সদর-৩ আসনে মনোনয়ন নিশ্চিত করায় নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেছি।
রংপুর-৬ আসনের সম্ভাব্য বিএনপি প্রার্থী ও জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম জানান, তিনি নির্বাচনি প্রচারণা অনেক আগে থেকেই শুরু করেছেন। ইতোমধ্যে তার নির্বাচনি এলাকা পীরগঞ্জে একশ’র বেশি ভোটকেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে জামায়াতের একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, তারা দলগতভাবে বিএনপির সঙ্গে ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচন করবেন এটা নিশ্চিত, এ নিয়ে কোনও শঙ্কা নেই। ফলে দুটি আসনে আমাদের প্রার্থীদের নির্বাচন করার বিষয়ে ২০ দলীয় জোট থেকে গ্রিন সিগনাল দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, তারা আরও একটি আসন দাবি করেছেন। সেটি হচ্ছে রংপুর-৪ আসন। এ আসনে তাদের দলের প্রার্থী আযম খান বলে জানান তিনি।

রংপুর জেলা জামায়াতের সাংগঠনিক সেক্রেটারি গোলাম রব্বানী জানান, তারা রংপুর ১, ৪ ও ৫ আসনে নির্বাচন করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান ২০ দলীয় জোট ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচন করবে এবং তাদের সঙ্গে জামায়াতও থাকবে। তিনি বলেন, ‘আমরা বিএনপির সঙ্গে আছি এবং থাকবো।’

আগামী নির্বাচনে জামায়াতের অংশগ্রহণের বিষয়টি শতভাগ নিশ্চিত উল্লেখ করে তিনি দাবি করেন,‘বিএনপিও শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে অংশ নেবে।’

তবে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা আসন বণ্টনের এসব তথ্যকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। গত ২১ সেপ্টেম্বর এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী বিএনপির আসন বণ্টন নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ প্রকাশকে সরকারের ষড়যন্ত্র ও দলীয় বিভেদ বাড়ানোর নীলনকশার অংশ হিসেবে উল্লেখ করে দলের নেতা-কর্মীদের এসবে বিশ্বাস না করার আহ্বান জানান। পরে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানও গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দেশের কোথাও বিএনপি ও শরিক দলগুলোর মধ্যে আসন বণ্টন হয়নি বলে উল্লেখ করেন।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful