Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৮ :: ২ কার্তিক ১৪২৫ :: সময়- ৭ : ০৭ পুর্বাহ্ন
Home / উত্তরবাংলা স্পেশাল / রংপুর বিভাগে দূর্গাপূজা উদযাপনে ৫২৬৫ মন্ডপ, শেষ মূহুর্তে চলছে রঙ তুলির ছোয়া

রংপুর বিভাগে দূর্গাপূজা উদযাপনে ৫২৬৫ মন্ডপ, শেষ মূহুর্তে চলছে রঙ তুলির ছোয়া

মমিনুল ইসলাম রিপন: সনাতন ধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ শারদীয় দূর্গোৎসবের রঙ ছড়িয়ে দিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎশিল্পের দক্ষ কারিগররা। তাদের হাতের নিপুন ছোয়া আর আর শেষ মূহুর্তে রঙ তুলির আচড়ে প্রাণবন্ত হয়ে উঠতে শুরু করেছে একেকটি প্রতিমা।
মাটির তৈরির প্রতিমার অঙ্গ জুড়ে শৈল্পিক কারুকার্যের অলঙ্কারে দেবী ফুটিয়ে উঠছে দেবী দূর্গার সৌন্দর্য্য। সোমবার মহা ষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শুরু হবে বৃহৎ এই দুর্গোৎসবের আনুষ্ঠানিকতা। এজন্য প্রতিমা সাজানোতে চলছে শেষ মূহুর্তের প্রস্তুতি। যেন দেবী দূর্গার আগমনে দম ফেলবার ফুসরত নেই মৃৎশিল্পীদের।
প্রকৃতির চারপাশ জুড়ে মৃদু হাওয়ায় গা ভাসিয়ে দোল খাচ্ছে কাশফুল। কাশবনের উচ্ছলতাই জানিয়ে দিয়েছে দূর্গার আগমনী বার্তা। এবছর দেবী দূর্গার ঘোটকে আগমন করে দোলায় করে গমন করবে।
এদিকে এবছর রংপুর বিভাগে গত বছরের চেয়ে পূজা মন্ডপ সংখ্যা বেড়েছে। রংপুর মহানগরসহ জেলার আটটি উপজেলায় প্রায় সহস্রাধিক পূজা মন্ডপে দুর্গোৎসবের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এখন মন্ডপ জুড়ে চলছে প্রতিমা স্থাপনসহ সাজসজ্জ্বার কাজ।
রংপুর পূজা উদযাপন পরিষদের সূত্র মতে, এবছর রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ৫ হাজার ২৬৫টি মন্ডপে দূর্গোৎসবের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে মেট্রোপলিটন এলাকা ব্যতিত রংপুর জেলায় ৭৩৪টি, গাইবান্ধায় ৬১০, কুড়িগ্রাম ৫২৫, লালমনিরহাট ৪৩২, নীলফামারী ৮৫৪, দিনাজপুরে ১২১৪, ঠাকুরগাঁও জেলাতে ৪৫৪ এবং পঞ্চগড়ে ২৭৫টি পূর্জা মন্ডপ থাকবে। এছাড়াও রংপুর মহানগরে ১৬৭টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এসব পূজা মন্ডপের মধ্যে অধিক গুরুত্বপূর্ণ ১২৯০টি এবং গুরুত্বপূর্ণ ১৩৭৮টি মন্ডপ।
সরেজমিনে নগরীর শ্রী শ্রী করুণাময়ী কালিবাড়ি, ধর্মসভা, গুপ্তপাড়া মন্দির, কলেজ রোড আনন্দময়অ সেবাশ্রমসহ বিভিন্ন এলাকার মন্দির ঘুরে দেখা গেছে, ছোট বড় সব মন্দিরেই এখন চলছে শেষ মূহুর্তের প্রস্তুতি। রঙ তুলির ছোয়ায় প্রতিমার আকর্ষণ বাড়ানোর পাশাপাশি দৃষ্টিনন্দন মÐপ তৈরিতে অঘোষিত প্রতিযোগিতায় নেমেছেন অনেকে।
আনন্দময়ী সেবাশ্রমে প্রতিমা তৈরির কাজ করছেন মৃৎশিল্পী মনোরঞ্জন পাল ও শ্যামল দত্তসহ কয়েকেজন। এসময় বার্তা২৪.কমের সাথে কথা হয় মনোরঞ্জন পালের। তিনি বলেন, গত বছরের তুলনায় এ বছর প্রতিমা তৈরির কাজ একটু বেশি। দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে এ মÐপে প্রতিমা তৈরির কাজ করছি। প্রতিমা যাতে দৃষ্টিনন্দন করতে দিনরাত কাজ হচ্ছে। এখন রঙ তুলির আচড়ে সাজানো হচ্ছে।
মনোরঞ্জন পালের মত এই জেলার অসংখ্য মৃৎশিল্পীর শৈল্পিক ছোঁয়ায় খড়, মাটি, পাট আর কাঁদায় তৈরি প্রতিমা উঠে দাঁড়াতে শুরু করেছে। এখন শেষ মূহুর্তে চলছে রঙের খেলায় পরিপাটি করে সাজানোর কাজটুকো।
উৎসবের প্রস্তুতি সম্পর্কে রংপুর জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ধীমান ভট্টাচার্য্যে জানান, প্রতিমা নির্মাণ শিল্পীরা রাতভর পরিশ্রম করছেন। রঙ তুলির আচড় শেষ হলে মোটামুটি কাজ শেষ হবে। এসময় তিনি বলেন, পূজায় সর্বোচ্চ নিরাপত্ত¡া নিশ্চিত করতে প্রতিটি মন্ডপে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি আনসার, কমিউনিটি পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবক নিয়োজিত থাকবে। এছাড়া সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে থাকবেন পুলিশ, র‌্যাবসহ সাদা পোষাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।
রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) কমিশনার মুহাম্মদ আব্দুল আলীম বলেন, প্রতিমা তৈরী কার্যক্রম শুরুর দিক থেকে নজরদারি রাখা হয়েছে। যাতে কোন ধর্মীয় সম্প্রীতি নষ্ট না হয়। শারদীয় দুর্গোৎসব আনন্দ মুখর পরিবেশে উদযাপন করার লক্ষ্যে প্রতিটি পূজা মন্ডপে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা  ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
অন্যদিকে বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য বলেন, দুর্গোৎসবকে ঘিরে কোনো ধরণের হামলার কিংবা অনাকাংখিত ঘটনা ঘটার আশংকা নেই। প্রতিটি পূজা মন্ডপের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইনশঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিটি সদস্যকে নির্দেশ দেয়া রয়েছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful