Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ :: ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ :: সময়- ৩ : ০৫ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / যে কারণে আপনার ঠোঁট ফাটে

যে কারণে আপনার ঠোঁট ফাটে

ডেস্ক: শীত আসলেই অনেকের হাত-পা, মুখ, ঠোট শুষ্ক ও ফেটে যায়। যে কারণে নিভে যায় আপনার প্রাণবন্ত হাসি। আর ঠোঁট শুষ্ক হলে যন্ত্রণাও দিতে পারে আপনাকে। ঠোঁট ফাটতে পারে সূর্যরশ্মি থেকেও।

তবে ঠোঁটের এই খারাপ অবস্থা হওয়ার পেছনে রয়েছে আপনার কিছু অভ্যাস। যদিও ১০টি কারণ থেকে নিজেকে রক্ষা করেন তবেই সমাধান সম্ভব। জেনে নিন যে ১০ টি কারণে আপনার ঠোঁট ফেটে যায়:

ঠোঁট চাটা: সাধারণত, আপনি মনে করতে পারেন যে রুক্ষ ঠোঁট কিছুক্ষণ পর পর জিভ দিয়ে ভিজালে তা ঠোঁটের জন্য ভালো, কিন্তু সত্য হচ্ছে- নিজের ঠোঁট লেহনে ঠোঁট শুকিয়ে যায়। এ বিষয়ে নিউ ইয়র্ক সিটিতে অবস্থিত স্যাডিক ডার্মাটোলজির প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক ডা. নিল স্যাডিক বলেন, ‘লালাতে এনজাইম থাকে যা ঠোঁটকে শুষ্ক করে এবং ঠোঁটের ত্বককে ইরিটেট করে।’

ঘনঘন আকাশপথে ভ্রমণ করা: আমরা জানি, প্লেনের বায়ু মারাত্মক ডিহাইড্রেটিং হিসেবে পরিচিত। কিন্তু নিম্ন আর্দ্রতা ও উচ্চ উচ্চতার মধ্যে ঠোঁটের ত্বক থেকে ময়েশ্চার কমে যায়, যার ফলে ঠোঁট শুষ্ক হয় ও ফেটে যায়। আকাশপথে ভ্রমণের সময় আপনার সঙ্গে লিপ বাম রাখুন ও ঠোঁটকে হাইড্রেটেড রাখতে পুরো ফ্লাইট জুড়ে পর্যাপ্ত পানি পান করুন।

লিপস্টিকের ব্যবহার করা: অনেক সময় লিপস্টিকের ব্যবহারে আপনার ঠোঁট শুষ্ক হতে পারে। তবে দুশ্চিন্তা করবেন না, আপনি এখনো লিপস্টিক ব্যবহার করতে পারবেন, কিন্তু এর জন্য আপনাকে লিপস্টিক প্রয়োগের পূর্বে ময়েশ্চারাইজিং লিপ বাম ব্যবহার করতে হবে।

ভুল টুথপেস্টের ব্যবহার করা: সাধারণত, নিয়মিত দাঁত ব্রাশ ক্যাভিটি প্রতিরোধ করে এবং এটি মুখের স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয়, কিন্তু ভুল টুথপেস্টের ব্যবহারে আপনার ঠোঁট শুকিয়ে যেতে পারে। এ বিষয়ে নিউ ইয়র্ক সিটির ডার্মাটোলজিস্ট জার্ভেজ জারস্টনার বলেন, ‘নিশ্চিত হোন যে আপনার টুথপেস্ট আপনার ঠোঁটকে ইরিটেট করছে না। কখনো কখনো টার্টার (দাঁতের পাথর) নিয়ন্ত্রণ করে এমন টুথপেস্ট ঠোঁটকে ইরিটেট করতে পারে।’

এখন যদি আপনি ধারণা করেন যে আপনার টুথপেস্টের কারণে ঠোঁট শুকিয়ে যাচ্ছে, তাহলে যথা সম্ভব ভিন্ন উপাদানের অন্য ব্র্যান্ডের টুথপেস্ট ব্যবহার করুন।

ভুল লিপ বামের ব্যবহার করা: আমেরিকান অ্যাকাডেমি অব ডার্মাটোলজি অনুসারে, আপনার লিপ বামে লিপ প্লাম্পারের বৈশিষ্ট্য থাকা উচিত নয়, যেমন- হুল ফোটানোর অনুভূতি ও ঠোঁটে ফোলা ভাব আনা। এর পরিবর্তে ভালো অনুভূতি দেয় এমন লিপ বাম নির্বাচন করুন।

বিষয়টি নিয়ে ডা. স্যাডিক বলেন, ‘শুষ্কতার উপাদান আছে এমন লিপ বাম পরিহার করুন, যেমন- কৃত্রিম সুগন্ধি এবং নিশ্চিত হোন যে আপনার লিপ বামে শুষ্কতা কমানোর উপাদান আছে, যেমন- কোকোয়া বাটার বা কলোইডাল ওটমিল।’

হট শাওয়ারের আসক্তি: বিষয়টি নিয়ে ডা. স্যাডিক বলেন, ‘হট শাওয়ার ত্বকের প্রতিরক্ষামূলক তেল দূর করে এটিকে শুষ্ক, টাইট ও চুলকানিযুক্ত করে। এর পরিবর্তে ত্বকের শুষ্কতা এড়াতে কুসুম কুসুম গরম পানিতে গোসল করতে পারেন।’

সান প্রোটেকশন ব্যবহার না করা: সান প্রোটেকশন ব্যবহার না করা বিষয়ে ডা. রিজক বলেন, ‘অন্যতম বড় ভুল হচ্ছে আপনার ঠোঁটকে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে রক্ষা না করা। ঠোঁটের ত্বককে সুস্থ রাখতে ইনডোর ও আউটডোরে থাকাকালীন ইমোলিয়েন্ট ব্যবহার করুন এবং দিনে এসপিএফ ৩০ প্রয়োগ করুন। এছাড়া যেসব লোকের অসুরক্ষিত ঠোঁট সূর্যরশ্মির সংস্পর্শে বেশি আসে তাদের স্কিন ক্যানসার (ব্যাসাল সেল কার্সিনোমা এবং স্কোয়ামাস সেল কার্সিনোমা) হওয়ার উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে।’

এ বিষয়ে ডা. জারস্টনার বলেন, ‘ঠোঁটে প্রি-স্কিন ক্যানসার কমন। ঠোঁটের যেকোনো স্পট অথবা ছাল বা আঁশ ডার্মাটোলজিস্টের দ্বারা মূল্যায়ন করা উচিত। আমি সবসময় ঠোঁটের প্রিক্যানসারাস অ্যাকটিনিক কেরাটোসিসের বায়োপসি করি।’

মুখে শ্বাসকার্যের অভ্যাস: ডা. রিজক জানান, হাইড্রেশনের অভাবে ঠোঁট শুষ্ক হয়ে থাকে, কিন্তু নাকের পরিবর্তে মুখ দিয়ে শ্বাসকার্য চালালেও আপনার ঠোঁট শুষ্ক হতে পারে। তিনি আরও করেন, ‘আপনার নাসিকাপথ পরিষ্কার রাখতে ন্যাজাল স্যালাইন স্প্রে অথবা নেটি পট ব্যবহার করুন এবং বায়ুর শুষ্কতা হ্রাসের জন্য হিউমিডিফায়ার ব্যবহার করে ঘুমান। নাসিকাপথ দিয়ে পর্যাপ্ত বায়ু চলাচল করতে না পারলে নাকের শ্বাসকার্য ব্যাহত হয়। অবস্থা অত্যধিক খারাপ হলে সার্জারি প্রয়োজন হতে পারে।’

উষ্ণ ও আরামদায়ক বেডরুম: ডা. স্যাডিক বলেন, ‘শীতকালে ঠোঁট ফাটার অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে ইনডোর হিটিং, কারণ আর্দ্রতা হ্রাস পায়- বিশেষ করে ওয়ার্ম-রেগুলেটেড টেম্পারেচারে রাতে ঘুমানোর সময়। নিশ্চিত হোন রাতের রুটিন হিসেবে আপনার ঠোঁটে লিপ বাম ব্যবহার করেছেন।’

ওষুধের কারণেও মুখ শুষ্ক হতে পারে: এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেন বলেছেন যে, ওষুধ মুখ শুষ্ক করতে পারে সে ওষুধ ঠোঁটকেও শুষ্ক করতে পারে এবং ঠোঁট ফেটে যেতে পারে। ঠোঁটকে শুষ্ক করতে পারে এমন ওষুধের তালিকা লম্বা, যার মধ্যে অনেক ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধ ও প্রেসক্রিপশন ওষুধ রয়েছে।

যেমন: অ্যান্টি-ডিপ্রেস্যান্ট, অ্যান্টিহিস্টামিন, অ্যান্টি-অ্যানজাইটি ওষুধ, ডিকনজেস্ট্যান্ট, মাসল রিলাক্স্যান্ট ও ব্যথার ওষুধ, মায়ো ক্লিনিক অনুসারে। তাই কোন ওষুধ ঠোঁটকে শুষ্ক করে তা আপনার চিকিৎসক থেকে জেনে নিন, তিনি আপনাকে ময়েশ্চারাইজিং লিপ বাম ব্যবহার করতে পরামর্শ দিতে পারেন।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful