Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ :: ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ :: সময়- ২ : ০৮ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / বেগম রোকেয়া দিবস আজ

বেগম রোকেয়া দিবস আজ

মমিনুল ইসলাম রিপন: আজ ৯ ডিসেম্বর রোববার। বেগম রোকেয়া দিবস। নারী জাগরণের পথিকৃৎ বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত আজকের দিনে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজলোর পায়রাবন্দের এক নিভৃত পল্লীতে জন্ম নেন। ১৮৮০ সালে জন্ম নেয়া মহিয়সী এই নারী ১৯৩২ সালের আজকের দিনটিতেই কোলকাতার সোদপুরে মৃত্যুবরণ করেন।
এদিকে নারী জাগরণের অগ্রদূতের জন্ম ও প্রয়াণ দিবসে নারী মুক্তির আন্দোলন বেগবান করার দৃপ্ত শপথে সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালনে নানান আয়োজন করেছে।
দিবসটি উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ বেগম রোকেয়ার জন্মস্থান রংপুরের পায়রাবন্দে এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, স্কুল-কলেজ ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে গভীর শ্রদ্ধায় রোকেয়ার নীতি ও আদর্শকে স্মরণ করবে।
নারীর ক্ষমতায়ন প্রতিষ্ঠার বেগম রোকেয়ার মতো নারী সমাজকে স্বনির্ভন জাতি গঠনে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম রওশন এরশাদ ও জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা রোকেয়ার চেতনা, নীতি-নৈতিকতা ও আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে নারীমুক্তি আন্দোলন বেগবান করার আহŸান জানান।
বাংলা তথা উপমহাদেশের বন্দি নারীদের শেকল ছিড়ে স্বমহিমায় আলোকিত জীবন গড়ার প্রদীপ জ্বালানিয়া রোকেয়া ১৮৮০ সালের ৯ ডিসেম্বর রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবন্দের নিভৃত পল্লী খোর্দ্দমুরাপুর গ্রামের বিখ্যাত সাবের পরিবারের জহির উদ্দিন মোহাম্মদ আবু আলী হায়দার সাবের ঔরসে ও রাহাতুন্নেসা সাবেরা চৌধুরানীর গর্ভে জন্মগ্রহন করেন। ১৮ বছর বয়সে খান বাহাদুর সাখাওয়াত হোসেন সাহেবের সাথে তার বিয়ে হয়। ২৮ বছর বয়সে স্বামী হারান তিনি। ১৯১০ সালের শেষ দিকে কোলকাতায় যান তিনি। এরপর তিনি দু পারেই নারী জাগরন ও উন্নয়নে কাজ করেছেন।
রাষ্ট্র, সমাজ ও পরিবার ব্যবস্থায় নারীর সমান অধিকারের জন্য মহিয়সী নারী বেগম রোকেয়া আমৃত্যু লড়াই করেছেন। রোকেয়া তার মতিচূর, সুলতানার স্বপ্ন, পদ্মরাগ, অবরোধবাসিনী ইত্যাদি কালজয়ী গ্রন্থে ক্ষুরধার লেখনীর মাধ্যমে ধর্মীয় গোঁড়ামি, সমাজের কুসংস্কার ও নারীর বন্দিদশার স্বরূপ উন্মোচন করেছেন। বাল্যবিবাহ, যৌতুক, পণ প্রথা, ধর্মের অপব্যাখ্যাসহ নারীর প্রতি অন্যায় আচরণের বিরুদ্ধে তিনি রুখে দাঁড়িয়েছেন। মৌলিক মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত রেখে নারীকে গৃহকোণে আবদ্ধ রাখার ধ্যান-ধারণা পাল্টাতে তিনি ছিলেন সদা সোচ্চার। তার দেখিয়ে দেওয়া পথ ধরেই নারীমুক্তি আন্দোলন চলছে। কিন্তু রোকেয়ার স্বপ্ন আজও অপূর্ণ রয়ে গেছে ।
এদিকে বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষ্যে আজ সকালে রংপুর জেলা প্রসাশনের উদ্যোগে জন্মস্থান পায়রাবন্দে বেগম রোকেয়ার স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষ্যে মিঠাপুকুর পায়রাবন্দে তিন দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন। এছাড়া রংপুর মহানগরীতে বিভিন্ন নারী সংগঠনের পক্ষ থেকে অলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন, কবিতা আবৃত্তি, নির্ধারিত বক্তৃতা, কুইজ প্রতিযোগিতাসহ সচেতনামূলক নাটিকা প্রদর্শনী, সম্মাননা স্মারক প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আয়োজন করেছে।

রংপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত তিন দিনের কর্মসূচী শুরু

সারাদেশের মতো রোকেয়া দিবসটি উপলক্ষে তিন দিনের কর্মসূচী গ্রহণ করেছে রংপুর জেলা প্রশাসন। দিবসের প্রথম প্রহরে রোকেয়ার জন্মস্থান মিঠাপুকুরের পায়রাবন্দের স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্যে দিয়ে তিন দিনের কর্মসূচীর আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।
আজ সকাল নয়টায় পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে দশটায় পায়রাবন্দ জামে মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন রয়েছে। সকাল সাড়ে দশটায় বেগম রোকেয়া স্মৃতিকেন্দ্রে প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী, এগারো থেকে দুপুর দুইটা পর্যন্ত স্বেচ্ছায় রক্তদান ও গ্রæপ পরীক্ষা এবং বিকেল চারটায় তিন দিনব্যাপী রোকেয়া মেলার অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ জয়নুল বারী। বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য। সভাপতি করবেন জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীব। আলোচনা সভা শেষে সন্ধ্যায় রয়েছে নাটিকা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।
১০ ডিসেম্বর সোমবার দ্বিতীয় দিনের আয়োজনে রয়েছে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃত্তি, রচনা ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা, প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী, আলোচনা সভা, নাটিকা ও সাংস্কৃতিক আয়োজন। এতে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি থাকবেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ। বিশেষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর জেলা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম, স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক রুহুল আমিন মিঞা। আলোচনা সভায় সভাপতি করবেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সৈয়দ এনামুল কবীর।
১১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সমাপনী দিনে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সংসদীয় বিতর্ক, বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ, আলোচনা সভা, গুণীজন পদক প্রদান, নাটিকা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি থাকবেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) আব্দুল্লাহ সাজ্জাদ, বিশেষ অতিথি অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) আবু তাহের মোঃ মাসুদ রানা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শরীফ মুহম্মদ ফয়েজুল আলম। এতে সভাপতিত্ব করবেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইটিসি-অ.দা.) রুহুল আমিন মিঞা।
এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে রংপুর মহানগরীসহ জেলা আট উপজেলাতে বিভিন্ন নারী সংগঠনের পক্ষ থেকে অলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন, কবিতা আবৃত্তি, নির্ধারিত বক্তৃতা, কুইজ প্রতিযোগিতাসহ সচেতনতামূলক নাটিকা প্রদর্শনী, সম্মাননা স্মারক প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful