Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট, ২০১৯ :: ৫ ভাদ্র ১৪২৬ :: সময়- ১০ : ০০ পুর্বাহ্ন
Home / নির্বাচন / নীলফামারীর ৪টি আসনে ১৩ প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

নীলফামারীর ৪টি আসনে ১৩ প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

বিশেষ প্রতিনিধি ১জানুয়ারী॥ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নীলফামারীর চারটি আসনের ২০ প্রার্থীর মধ্যে ১৩ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থী মোট প্রদত্ত ভোটের মধ্যে এক-অষ্টমাংশের চেয়ে কম ভোট পাওয়ায় নিয়ম অনুযায়ী তাদের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

নীলফামারী-১ (ডোমার-ডিমলা) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিল ৮ জন। এদের মধ্যে বিজয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থী আফতাব উদ্দিন সরকার (নৌকা) ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী রফিকুল ইসলাম (ধানের শীষ) ছাড়া প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী ৬ জন প্রার্থীই জামানত হারিয়েছেন। তারা হলেন-জাতীয় পার্টির জাফর ইকবাল সিদ্দিকী (লাঙ্গল), বাংলাদেশ ন্যাপের জেবেল গানী (গাভী), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম (হাতপাখা), জমিয়েতে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মঞ্জুরুল ইসলাম (খেজুরগাছ), বাসদের ইউনুছ আলী (মই) ও বিএনএফের সিরাজুল ইসলাম (টেলিভিশন)।

নীলফামারী -২ (সদর) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন ৫ জন। এদের মধ্যে বিজয়ী প্রার্থী আওয়ামী লীগের আসাদুজ্জামান নুর(নৌকা) ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ধানের শীষের মনিরুজ্জামান মন্টু ছাড়া বাকী ৩ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়। এরা হলো ন্যাশনাল পিপলস পার্টির রাবেয়া বেগম (আম), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী জহুরুল ইসলাম (হাতপাখা) ও স্বতন্ত্র এজানুর রহমান (ট্রাক)।

নীলফামারী -৩(সদর) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন ৩ জন। এদের মধ্যে মহাজোটের লাঙ্গল প্রতীকের মেজর (অবঃ) রানা মোঃ সোহেল ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের আজিজুল ইসলাম ছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী আমজাদ হোসের সরকার (হাতপাখা) জামানত বাজেয়াপ্ত হয়।

নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরীগঞ্জ) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন ৪ জন। এদের মধ্যে বিজয়ী প্রার্থী মহাজোটের লাঙ্গলপ্রার্থী আহসান আদেলুর রহমান আদেল ছাড়া তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সহ তিনজনের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়। এরা হলো ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী শহিদুল ইসলাম (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী সিংহ প্রতীকের মিনহাজুল ইসলাম মিনহাজ ও ন্যাশনাল পিপুলস পার্টির আম প্রতীকের আব্দুল হাই সরকার।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফজলুল করিম বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী কোনও প্রার্থী মোট প্রদত্ত ভোটের মধ্যে এক-অষ্টমাংশের চেয়ে কম ভোট পেলে তার জামানত বাজেয়াপ্ত হয়। নির্বাচনের নিয়মেই তাদের জামানতের টাকা বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful