Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯ :: ২ আষাঢ় ১৪২৬ :: সময়- ৩ : ১১ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / রংপুর মেডিকেলে হিমঘরে থাকা ১২ লাশের ঠিকানা হলো মুন্সিপাড়া কবরস্থানে

রংপুর মেডিকেলে হিমঘরে থাকা ১২ লাশের ঠিকানা হলো মুন্সিপাড়া কবরস্থানে

 মমিনুল ইসলাম রিপন: বেওয়ারিশ হিসেবে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে পড়ে থাকা ১২ লাশের সদগতি হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে এই লাশগুলোর দাফন করা হয়েছে নগরীর মুন্সিপাড়া করবস্থানে। এসব লাশের কোনটি সর্বোচ্চ ৫ বছর আবার কোনটি এক বছর থেকে হিম ঘরে ছিল। রমেক হাসপাতাল, জেলা প্রশাসন,পুলিশ ও সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে এই লাশ দাফনের ব্যবস্থা করা হয়।
জানাগেছে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ,পুলিশ প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের আন্তরিকতার অভাবে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে দীঘদিন ধরে ধরে ১২ টি বেওয়ারিশ লাশ পড়ে ছিল। এসব লাশের সদগতি বিষয়ে হাসপাতাল কর্তপক্ষ, জেলা প্রশাসন ,পুলিশ প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের মধ্যে এতদিন চিঠি চালাচালি ছিল। কিন্তু এতদিন কাজের কাজ কিছু হয়নি। এবিষয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় লেখালেখি হলে অবশেষে ৪ দপ্তর বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখে। হাসাপাতাল কর্তপক্ষ রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, জেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনকে এ বিষয়ে দ্রæত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করেন। এর ফলে পুলিশ প্রশাসন ও স্থানীয় কাউন্সিলর উদ্যোগি হয়ে লাশ দাফনের ব্যবস্থা করেন। দাফনের খরচের উল্লেখযোগ্য অংশ বহন করেন জেলা প্রশাসন।
রমেক হাসপাতাল ও কোতয়ালী থানা সূত্রে জানাগেছে, দীর্ঘদিন থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে ১২ টি মরদেহ পড়ে ছিল। এদের মধ্যে ৭ জন পুরুষ, ৩ জন নারী এবং ২টি শিশুর লাশ রয়েছে। প্রাপ্ত বয়স্কদের বয়স ২৫ থেকে ৪৫ বছর। সবগুলো মরদেহ বেওয়ারিশ। রংপুর বিভাগের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন সময়ে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে চিকিৎসা নিতে এসে এরা হাসপাতালেই মৃত্যু বরণ করেছে। লাশগুলোর কোন দাবিদার না থাকায় এতদিন এদের ঠাই হয়েছিল হিম ঘরে।
সূত্র জানায়, হাপাতাল কিংবা রাস্তাঘাটে কোন বেওয়ারিশ লাশ পাওয়া গেলে আঞ্জুমানে মফিদুল ইসলাম উদ্যোগি হয়ে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় লাশ দাফনের ব্যবস্থা করেন। কিন্তু রংপুরে আঞ্জুমানে মফিদুলে ইসলামের কার্যক্রম নেই। ফলে লাশগুলো এতদিন সৎকারের কোন ব্যবস্থা হয়নি।
রমেক হাসপাতালের পরিচালক ডা. অজয় রায় জানান,আইনগত জটিলতার কারণে এসব লাশ দাফনের বিষয়টি এতদিন আটকে ছিল। অবশেষে সব দপ্তরের সমন্বয়ে বেওয়ারিশ লাশগুলোর দাফন কাজ সম্পন্ন হয়েছে।
রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া সেলের সহকারী পুলিশ কমিশনার আলতাফ হোসেন জানান, ‘পুলিশ কমিশনারের উদ্যোগে ১২টি লাশ দাফন করা হয়েছে।’

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful