Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ২৩ মার্চ, ২০১৯ :: ৯ চৈত্র ১৪২৫ :: সময়- ৮ : ১৩ পুর্বাহ্ন
Home / জাতীয় / নীলফামারীতে চার ভ্রমনকন্যা॥ আনন্দে উচ্ছাসে গ্রামের স্কুলের বালিকারা

নীলফামারীতে চার ভ্রমনকন্যা॥ আনন্দে উচ্ছাসে গ্রামের স্কুলের বালিকারা

ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়, নীলফামারী ১৪ জানুয়ারি॥ “নারীদের চোখে বাংলাদেশ’” শ্লোগানকে সামনে রেখে সর্বউত্তরে জেলাগুলিতে মাথায় হেলমেট পরে, স্কুটার চালিয়ে, সঙ্গে কাঁধে ব্যাগ-ল্যাপটপ নিয়ে শত বাধা পেরিয়ে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে অবিরাম ছুটে চলছে ওরা চারজন। কান্তিকে ছুটি দিয়ে গন্তব্যে পৌঁছানো এবং শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা কৌশল শেখানোই তাদের লক্ষ্য। এরা হলেন ঢাকা মেডিকেলের কলেজের ডা. সাকিয়া হক, ডা. মানসী সাহা তুলি, ইডেন মহিলা কলেজের পদার্থ বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী নাজমুন নাহার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী সিলভী রহমান। তারা ভ্রমণকন্যা নামে পরিচিত। ট্রাভেলারস অব বাংলাদেশ ভ্রমণকন্যা-সংগঠনের ব্যানারে তারা ছুটে চলছেন দেশের এক জেলা থেকে অন্য জেলায়। শহর ও মফস্বলের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নারী শিক্ষার্থীদের আত্মরক্ষার কৌশল, নারীর মতায়ন, বয়ঃসন্ধিকালে সমস্যা-সমাধান, খাদ্য ও পুষ্টি এবং সুরক্ষার কৌশল শেখান তারা। এ ছাড়াও দেশের মুক্তিযুদ্ধ এবং পর্যটন স্পট নিয়েও মাল্টিমিডিয়া প্রদর্শন ও আলোচনা করছে। ভ্রমণের মাধ্যমে নারীদের সচেতন ও ভ্রমণ জগতে নারীদের সুস্থ পরিবেশ তৈরির লক্ষ্যে ইতোমধ্যে এই চারজন দেশের ৩৪টি জেলা অতিক্রম করার পর আজ সোমবার(১৪ জানুয়ারী) এসে প্রবেশ করে ৩৫তম জেলা নীলফামারীতে।
এসেই তারা নীলফামারীর একটি গ্রামের স্কুলতেই বেছে নিল। সকাল সাড়ে ৯টা। ডোমার উপজেলার হরিণচরা ইউনিয়ন। কাঁচা রাস্তার পথ ধরে এগিয়ে গিয়ে পেয়ে গেল হংসরাজ দ্বিমুখী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
চার ভ্রমনকন্যাকে কাছে পেয়ে আনন্দ-উচ্ছাসে আত্মহারা হয়ে উঠে গ্রামের এই স্কুলের একঝাক বালিকারা। তারা সহ স্কুলের প্রধান শিক্ষক হিরেন্দ্র চন্দ্র রায় তাদের বরন করে নেন। তাদের এই ভ্রমণের মাধ্যমে তারা নারীদের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছেন নিজের স্বাধীন ও সত্ত্বার অস্তিত্ব। তাদের মূল লক্ষ্য সমাজের যে সকল ক্ষেত্রে এখনো পুরুষের তুলনায় নারীরা পিছিয়ে আছে, এই স্বাধীন দেশে এখনো যারা সমাজের বাধা অতিক্রম করতে ভয় পায়, নিজের লালিত স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে আসতে পারছে না মূলত তাদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। যার জন্য দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তারা। নিজেদের অর্থায়নে ঘুরে বেড়ান ভ্রমণকন্যারা। প্রতিটি জেলার প্রশাসক ও সংবাদকর্মীরা সহযোগিতা করছেন তাদের। বিশেষ করে স্কুলের মেয়েরা তাদের খুব আগ্রহ নিয়ে গ্রহণ করায় তখন সব বাধা ও কান্তি তারা ভুলে গেছে।
গ্রামের হংসরাজ স্কুলের বালিকারা প্রশিক্ষণে উচ্ছ্বসিত। নিভৃত গ্রামের সেই স্কুলের সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী মনোয়ারা, অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী রাজিয়া আক্তার, নবম শ্রেনীর ছাত্রী রানী আক্তার ও দশম শ্রেনীর ছাত্রী রুবা আক্তার এই চার ভ্রমন কন্যাদের কাছে প্রশিক্ষণ শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তারা জানায়, আমরা আগে অনেক কিছুই জানতাম না। আজ এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অনেক কিছু শিখতে পারলাম, জানতে পারলাম। আমরা ধন্যবাদ জানাই এই আপুদের।
ভ্রমণকন্যা ডা. সাকিয়া হক বলেন, ট্রাভেলেটস অফ বাংলাদেশ থেকে আমরা এসেছি। এটি মেয়েদের ভ্রমণের জন্য প্রথম কোনো সংগঠন। আমরা স্কুটিতে ভ্রমণ করে প্রতিটি জেলায় একটি করে স্কুলে গিয়ে সেখানকার মেয়েদের সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের কর্মশালা করছি। আমরা চাই দেশের প্রতিটি নারী ট্রাভেলেটস অফ বাংলাদেশের হাত ধরে নিজেদের দেশকে জানুক এবং দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখুক।
তিনি জানান আমরা চারজন গত বছরের ৬ এপ্রিল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে যাত্রা শুরু করি। ইতোমধ্যে ৩৪টি জেলা পরিদর্শন করেছেন এই ভ্রমণকারীরা। স্থানগুলো হলো- নারায়ণগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, নড়াইল, যশোর, সাতীরা, খুলনা, বাগেরহাট, গোপালগঞ্জ, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, ভোলা, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, ফেনী ও চাঁদপুর, পঞ্চগড় ও ঠাকুরগাঁও ।
আজ সোমবার নীলফামারী ভ্রমন শেষে ধাপে ধাপে যাবে দিনাজপুর, রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, জয়পুরহাট, বগুড়া, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, নাটোর, পাবনা জেলায় ভ্রমণ করবেন। এছাড়া ১ ফেব্রুয়ারি জামালপুর থেকে গাজীপুরের উদ্দেশে ভ্রমণ করবেন এই ভ্রমণকন্যারা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful