Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৬ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ১ : ৩৫ অপরাহ্ন
Home / আলোচিত / এরশাদের পথে বি চৌধুরী, অলি, রব!

এরশাদের পথে বি চৌধুরী, অলি, রব!

oli b choডেস্ক: আওয়ামী লীগের নির্বাচন পদ্ধতিতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিছুতেই অংশ নেব না, এমন ঘোষণা থেকে সরে যাচ্ছেন দেশের ছোট রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতারা। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের মতো ‘রাজনৈতিক ডিগবাজি’ খেয়ে আওয়ামী লীগের নির্বাচন পদ্ধতিতে আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা।

তাদের মধ্যে আছেন বিকল্পধারার সভাপতি ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল অলি আহমেদ। এর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এরশাদ তাদের সঙ্গে কয়েকবার বৈঠক করেন। নতুন জোট গঠন করে, বা জোট না হলে আলাদাভাবে আগামী সংসদ নির্বাচনে এসব দল অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত।

নির্বাচনের আগে জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে নতুন জোট গঠনের ঘোষণা এর মধ্যে দিয়েছেন এইচ এম এরশাদ। তার সম্ভাব্য জোটের তালিকায় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকির নামও আছে। তবে কাদের সিদ্দিকির দলের আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়া এখনো নিশ্চিত নয়। বিকল্পধারা, জেএসডি, এলডিপি এর মধ্যে সরকারের শীর্ষ পর্যায়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, আওয়ামী লীগের নির্বাচন পদ্ধতিতে দল তিনটি অংশ নেবে। নির্ভরযোগ্য বিভিন্ন সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করে।

অন্যদিকে মহাজোট ছাড়ার আজ সোমবার ‘আনুষ্ঠানিক’ ঘোষণা দিলেন এইচ এম এরশাদ। এর সঙ্গে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিলেন সাবেক স্বৈরাচারী এরশাদ। বিএনপি না এলে আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে না জাতীয় পার্টি, এমন ঘোষনাও গত কয়েক মাস ধরে দিয়ে আসছিলেন তিনি। তবে আজ সোমবার তিনি বিএনপিকেও আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, ‘তত্বাবধায়ক সরকার ছাড়াও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন সম্ভব।’ সূত্র জানায়, জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে নতুন জোটে বিকল্পধারা, এলডিপি, জেএসডিসহ আরো কয়েকটি দলের যোগ দেয়ার বিষয়টিতে নিশ্চিত হওয়ার পরই এরশাদ মহাজোট ছাড়ার ঘোষণা দেন।

সূত্রমতে, ‘রাজনৈতিক ডিগবাজি’ এরশাদের জন্য নতুন কিছু নয়। তবে তার সঙ্গে ‘রাজনৈতিক ডিগবাজি’ খাচ্ছেন ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী, আ স ম আবদুর রব, কর্নেল অলি প্রমুখ। এর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার টেলিফোনে এইচ এম এরশাদ গত ১৩ নভেম্বর রাতে তিনটি রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতার সঙ্গে বৈঠক করেন। জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে নতুন জোট গঠন করে আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়ার উদ্দেশ্যে ওই বৈঠক হয় বলে সূত্র জানায়।

১৩ নভেম্বর জাতীয় পার্টিসহ চার দলের নেতাদের বৈঠকটি হয় সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীর রাজধানীর বারিধারার বাসায়। এতে এরশাদের সঙ্গে মিলিত হন বি. চৌধুরীসহ কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকি, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, জোট গঠনে পরামর্শ দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তরফ থেকে গত ৭ নভেম্বর রাতে সংসদ ভবনে সাক্ষাতের জন্য টেলিফোনে আমন্ত্রণ জানানো হয়। ঠাণ্ডাজনিত অসুস্থতার কারণে এরশাদ সেদিন সংসদ ভবনে যেতে পারেননি।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এলডিপির চেয়ারম্যান অলি আহমদকে ‘নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারে’ যোগ দিতে বিশেষ বার্তা পাঠান টেলিফোনে! প্রধানমন্ত্রী গত ১৪ নভেম্বর দুপুরে শ্রীলংকা সফরে যাওয়ার আগে মহাজোটের প্রভাবশালী এক মন্ত্রীর মাধ্যমে অলিকে বিশেষ বার্তা পাঠান বলে সূত্র জানায়।

এর আগে ১৩ নভেম্বর বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে অলির রাজধানীর মহাখালীর ডিওএইচএসের বাসায় যান বন ও পরিবেশ মন্ত্রী হাছান মাহমুদ। তিনি অলির সঙ্গে সাক্ষাত করে ‘নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারে’ যোগ দিতে আমন্ত্রণ জানান। বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের জোটের অন্যতম শরিক অলি আহমদের এলডিপি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ এক মন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাচ্ছেন সব দল আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে। সর্বদলীয় সরকারে অংশ নেয়ার আমন্ত্রণ জানানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী গত বৃহস্পতিবার দুপুরে এক মন্ত্রীর মাধ্যমে অলিকে বিশেষ বার্তা পাঠান।’

আরাফাত আহমেদ, প্রিয়দেশ

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful