Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ :: ১২ বৈশাখ ১৪২৬ :: সময়- ৯ : ৫৭ পুর্বাহ্ন
Home / জাতীয় / বরেণ্য আলোকচিত্রি পাভেল রহমান- রতন সরকারের সঙ্গে আলাপচারিতা..”বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসতে দেশপ্রেম লাগে”

বরেণ্য আলোকচিত্রি পাভেল রহমান- রতন সরকারের সঙ্গে আলাপচারিতা..”বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসতে দেশপ্রেম লাগে”

 বঙ্গবন্ধুর জীবনের শেষ দুই বছরের ৯৯টি দূর্লভ ছবি নিয়ে তিন দিনের একটি আলোকচিত্র প্রদর্শনী হয়ে গেলো রংপুর জেলাস্কুল মাঠে। বরেণ্য ফটোসাংবাদিক পাভেল রহমানের তোলা এবং তার সংগৃহিত ছবিগুলোতে মূলত পারিবারিক আবহে, রাষ্ট্রাচারে আর বিশ্বপরিমন্ডলে কেমন ছিলেন বঙ্গবন্ধু তাই ফুটে উঠেছে।বঙ্গবন্ধুর ৯৯তম জন্মদিনে ১৭ এপ্রিল সকালে রংপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত এই প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন বিভাগীয় কমিশনার জয়নুল বারী।

ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাড়ি কিংবা বঙ্গভবন। সঙ্গে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারকে ঘিরে যতো ছবি তারপ্রায় সবই ভাবগাম্ভির্যপূর্ণ, রাজনীতিসংশ্লিষ্ট। প্রায় সাড়ে চার হাজার দিনের কারাজীবন আড়ালে রাখলে টালমাটাল ছিলো তার জীবনের প্রতিটি মুহুর্ত। কিন্তু পাভেল রহমানই সৌভাগ্যবান কোন ফটোগ্রাফার যিনি বাংলার এই ট্রাজিকহিরো ও তার পারিবারিক জীবনে আনন্দ-উদ্বেল একটি সময়কে ধারণ করতে পেরেছিলেন।

এই প্রদর্শনী উপলক্ষে প্রতিবেদন তৈরি করতে গিয়ে আমার সৌভাগ্য হয়েছিলো বরেণ্য আলোকচিত্র সাংবাদিকের সঙ্গে মোটামুটি একটি দীর্ঘ আলাপচারিতার।এই আলাপে উঠে আসে অনেক বিষয়। আবাহনি ক্লাবের ছবি তুলতে তুলতে শেখ কামালের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠা, স্যান্ড গেঞ্জি গায়ে থাকা অবস্থায় বঙ্গবন্ধুর ছবি তুলতে গিয়ে ধমক খাওয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হলেও কীর্তিমান বঙ্গবন্ধুর জীবনের শেষ দুটি বছর তাঁর ব্যাক্তিগত আলোকচিত্রি হিসাবে কাজের সুযোগ পাওয়াসহ অনেক বিষয় উঠে এলো তার কথায়।

পাভেল রহমান বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে অনেক কথা বলেন। বেশিটা জুড়ে আবেগঘণ স্মৃতিচারণ। ছিলো কঠিন সত্যের মুখোমুখি কী করতেন বঙ্গবন্ধু। বিষয়-বৈচিত্রভরা ছিলো আমাদের আলাপে। বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর ভালোবাসার কারণে কিছু কিছু প্রশ্ন করতে গিয়ে আমার যেমন গলা ধরে আসে বারবার, একই ভাবে কয়েকবার দেখলাম আবেগাপ্লুত হয়ে পড়তে।

দুই ছেলে কামাল ও জামালের বিয়ে,তাদের গায়ে হলুদ, পানচিনির অনুষ্ঠান ঘিরে বিশাল ব্যাক্তিত্বের বঙ্গবন্ধুকে শিশুর মতো উচ্ছ্বাসপ্রকাশ করতে, স্ত্রী-সন্তানদের সঙ্গে খুনসুটিতে মেতে উঠতে দেখেছিলেন। এই ঘটনার কয়েকটি ছবি রেখেছেন এবারের প্রদর্শনীতে।

পাভেল রহমান বললেন, শেখ কামালের বিয়ে নিয়ে যে গল্পপ্রচলিত আছ, এই ছবিগুলোর উচ্ছ্বাস প্রমান করে ওসব গল্প কতোখানি মিথ্যে ছিলো।

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে পরিচয় পর্বের কথা উঠতেই নস্টালজিক পাভেল রহমান নিজের গালে বঙ্গবন্ধুর স্নেহের পরশ অনুভব করেন। তারপ্রতি ভালোবাসার দায় থেকে পাভেল রহমান চান মহান মুজিবকে বাংলার প্রতিটি শিশুর কাছে নিয়ে যেতে।

পাভেল বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্য কিছু করতে হলে, তাকে ভালোবাসতে হলে রাজনীতি করার প্রয়োজন পড়ে না বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসতে শুধু দেশপ্রেম লাগে।
স্বাক্ষাতকার গ্রহণ : রতন সরকার, জেষ্ঠ সাংবাদিক, সময় সংবাদ।
অনুলিখন:হাসান আল সাকিব,প্রতিবেদক, উত্তর বাংলা.কম

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful