Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ২০ জুলাই, ২০১৯ :: ৫ শ্রাবণ ১৪২৬ :: সময়- ১ : ১২ অপরাহ্ন
Home / ইতিহাস ও ঐতিহ্য / রংপুরে ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও দিবস উদ্যাপন

রংপুরে ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও দিবস উদ্যাপন

 স্টাফ রিপোর্টার: একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ২৮ মার্চ তীর-ধনুক, দা-বল্লম আর লাঠি-সোডা নিয়ে রংপুর ক্যান্টনমেন্ট দখল করতে আসা সাহসী বীর বাঙালী যোদ্ধাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ ও দিনব্যাপী নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদ্যাপন করা হয়েছে ঐতিহাসিক ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও দিবস। বৃহস্পতিবার সকালে রংপুর ক্যান্টনমেন্ট সংলগ্ন নিসবেতগঞ্জ এলাকার রক্ত গৌরব ভাষ্কর্যে পুষ্পার্ঘ্য অপর্ণের মাধ্যমে দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।
সকাল দশটায় রংপুরের জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীবের নেতৃত্বে রংপুর জেলা প্রশাসন শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি জানান। এরপর আওয়ামী লীগ, জাসদ, বাসদ, কমিউনিস্ট পার্টিসহ মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সংগঠন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।
এরআগে ১৯৭১ সালের ২৮ মার্চ ক্যান্টনমেন্ট আক্রমণ করতে এসে পাকিস্তানী সেনাবাহিনীদের হাতে শহীদ হওয়া ওরাও, সাওতাল আদিবাসী সহ সাহসী বীর সন্তানদের এক মিনিট নিরবতার মাধ্যমে স্মরণ করা হয়। পরে সমবেত কন্ঠে গাওয়া হয় জাতীয় সংগীত।
এদিকে দিবসটি উদ্যাপনে দিনব্যাপী রংপুরের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন দোয়া মাহফিল, রক্ত গৌরব স্মৃতি সৌধে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন, আলোচনা সভা, শিশু-কিশোরদের মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
বিকেলে দিবসটি উপলক্ষ্যে রংপুর মহানগরীর গণেশপুর-গুড়াতিপাড়া এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈয়বুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি এমপি। এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন রংপুর সিটি করপোরেশনের ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম।
অন্যদিকে সন্ধ্যায় নিসবেতগঞ্জে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও দিবস উদ্যাপন করা হয়। সেখানেও প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি এমপি। ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও দিবস উদ্যাপন কমিটির আহবায়ক শফিকুর ইসলাম যাদুর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন- সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ, জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীব, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু, মহানগরের সভাপতি সাফিউর রহমান সফি, সাধারণ সম্পাদক বাবু তুষার কান্তি মন্ডল প্রমুখ।
ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও দিবসের বিভিন্ন স্থানে আলোচনা অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের ঐতিহাসিক এই দিনটির গুরুত্ব তুলে ধরা হয়। একই সাথে রংপুর মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো ক্যান্টনমেন্ট আক্রমণে যারা প্রাণ ও নেতৃত্ব দিয়েছেন তাদের নামকরণে করার আহবান জানান। বিশেষ করে ওরাও সাওতালসহ আদিবাসীদের মূল্যায়ন এবং তাদের নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা বুদু ওরাও এর নামে একটি সড়কের নামকরণ করার জন্য মেয়রসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি জানান। এছাড়াও স্মৃতিবিজড়িত ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও এ নজির গড়েছিল রংপুরের মানুষ, তাদের স্মরণে টার্মিনাল-বদরগঞ্জ সড়কের পাশে একটি ভাষ্কর্য এবং রক্ত গৌরব স্মৃতি সৌধের পাদদেশ সংলগ্ন নিসবেতগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ভেটেরিনারী বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি দাবি জানানো হয়।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful