Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ :: ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ :: সময়- ১১ : ৩৮ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল নীলফামারীর কমলের॥ অনার্সে ভর্তি হওয়ার স্বপ্ন ভেঙ্গে গেল

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল নীলফামারীর কমলের॥ অনার্সে ভর্তি হওয়ার স্বপ্ন ভেঙ্গে গেল

স্টাফ রিপোর্টার নীলফামারী ১ মে॥ বোরো ধান কাটার মজুরীর টাকা দিয়ে এবার অর্নাসে ভর্তি হবার কথা ছিল নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ধর্মপাল ইউনিয়নের গড় ধর্মপাল মাঝাপাড়া গ্রামের কমল কৃষ্ণ রায়ের(২২)। সে বাস্তবতার স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল। নিজ বাড়ি হতে টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার গোহাইলবাড়ী গ্রামে যাবার পথে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত হয় কমল। এ সময় তার সঙ্গে থাকা এই গ্রামের আরো ৫ জন আহত হয়েছে।
আহতরা হলো ছত্রধর রায়ের ছেলে ও নিহতের কাকা অবিনাশ ওরফে কালটু (৪৫), আব্দুল জব্বারের দুই ছেলে আবু সাইদ(২৭) ও লিটন ইসলাম(৩৫) শবীন্দ্র চন্দ্র রায়ের দুই ছেলে প্রবীর চন্দ্র রায় (৩০) ও প্রতাপ চন্দ্র রায়(৩০)। ওই ঘটনায় আহত হয় সিএনজিচালক। সে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা গ্রামের চান্দে ড্রাইভারের ছেলে আজিজুল (৪০)।
জানা যায় নীলফামারীর উক্ত গ্রামের ওই ৬ জন গতকাল মঙ্গলবার(৩০ এপ্রিল) রাতের কোচে গিয়ে আজ বুধবার (১ মে) ভোরে গিয়ে নামে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গায়। কালিহাতী থানার পুলিশ এসআই আব্দুল ওয়াহাব বলেন, মৌসুমী ধান কাটার ৬ জন শ্রমিক টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার গোহাইলবাড়ী গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এসএম আব্দুর রবের জমিতে ধান কাটার উদ্দেশ্যে এলেঙ্গা থেকে সিএনজি অটোরিকশাযোগে রওনা হয়। টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়কের কালিহাতী থানার পশ্চিম পাশে সড়কের উপর দাঁড়িয়ে থাকা পাথর বোঝাই ট্রাকের পিছনে সিএনজির ধাক্কায় ধান কাটার এক শ্রমিক নিহত হয়। এ ঘটনায় অন্তত ৬ জন আহত হয়।
পরে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শ্রমিক কমল (২৫)কে মৃত. ঘোষণা করেন। নীলফামারীর আহত ৫জন কে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। সেখানে তারা চিকিৎসাধীন রয়েছে।
ধর্মপাল ইউপি চেয়ারম্যান জামিনুর রহমান জানান নিহত কমলের মৃতদেহ আনতে ঘটনাস্থলে গ্রাম হতে লোক পাঠানো হয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন আহতদের খোঁজ খবর রাখা হয়েছে। তারা গরীব মানুষ। তাদের চিকিৎসার অর্থ সংকট রয়েছে। আমরা স্থানীয়ভাবে কিছু ব্যবস্থা করলেও আরো অর্থ প্রয়োজন।
এদিকে দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে কমলকে হারিয়ে পাগল হয়ে পড়েছে মা রানী বালা। তিনি কান্না বিজরিত কন্ঠে তার ছেলের অর্নাসে ভর্তির কথা বলছিলেন আর বুকচাপড়াচ্ছিলেন।
এলাকাবাসী নিহত ও আহত পরিবারদের সাহার্য সহযোগীতার জন্য জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful