Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০ :: ১০ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৩ : ১২ পুর্বাহ্ন
Home / নীলফামারী / উত্তরাঞ্চলে বাজারে নতুন আলু ভরে গেছে

উত্তরাঞ্চলে বাজারে নতুন আলু ভরে গেছে

NILPHAMARI PIC 22.11.2013ইনজামাম-উল-হকনির্ণয়, নীলফামারী ২২ নভেম্বর ॥ নবান্নের মাস অগ্রহায়নে আমনের ধানে যেমন ভরে উঠছে কৃষকদের বাড়ী, তেমনি নীলফামারীর সহ উত্তরের বিভিন্ন স্থানে মৌসুমের আগাম চাষ করা নতুন আলুর আলোয় উদ্ভাসিত হয়ে উঠেছে। নতুন আলু চমক দেখিয়েছে। আর নতুন আলু স্বাদ গ্রহনে আলু রসিক ভোক্তারা নতুন আলু ক্রয়ে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে। এখন হাটবাজারে নতুন আলুর ছড়াছড়ি।

গত সপ্তাহে স্বল্প পরিমানের নতুন আলু বাজারে পাওয়া গেলেও চলতি সপ্তাহের শুক্রবার নীলফামারী সহ উত্তরের আট জেলার বিভিন্ন হাটবাজারে নতুন আলুতে ভরে উঠেছে। গত সপ্তাহে নতুন আলু ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও সেই আলুর দাম কমে এসে এখন পাওয়া যাচ্ছে ৩৫ টাকা কেজি দরে। তবে দাম যাই হোক নবান্নের আমেজে নতুন ধানের চালের ভাতের সাথে নতুন আলুর ভর্তা বা তরকারির এক নতুন স্বাদতো মিলছে। তাই নতুন আলু পেয়ে ভোক্তারাও বেশ খুশী।

শীতের সব্জী বলে কথা আছে। যেমন বাজারে নতুন ফুলকপি,পাতাকপি,ছিম,বরবটি পাওয়া যাচ্ছে ঠিক তেমনি নতুন আলু পাওয়া গেলো এবার। দুই ধরনের নতুন আলু পাওয়া যাচ্ছে। এরমধ্যে দেশী লাল ও হল্যান্ড জাতের বড় সাদা আলু। দুই ধরনের আলুর দাম প্রায় একই।

নীলফামারীর জেলা সদরের সিংদই,রামনগর,কচুকাটা,চড়াইখোলা,কিশোরীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ও পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ ভাউলাগঞ্জ থেকে ব্যবসায়ীরা কৃষকদের ক্ষেত থেকেই সরাসরি নতুন আলু ক্রয় করে বাজারে বিক্রি করছে। সেই আলু আবার স্থানীয় বাজার ছাড়াও ট্রাকে করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ঢাকার কাওরান বাজারে।

এদিকে ক্ষেত থেকে আগাম জাতের এই নতুন আলু উত্তোলনে ধুম পড়েছে। দলবেধে ক্ষেত থেকে আলু উত্তোলন করে তা বস্তায় ভরে বাজারজাত করা হচ্ছে।
জেলা সদরের সিংদই গ্রামের আলু কৃষক ইউনুছ আলী (৪৫) জানালেন ৩ বিঘা জমিতে তিনি আগাম আলু চাষ করেছেন। পাইকারের কাছে ক্ষেতেই আলুর কেজি তিনি গত সপ্তাহে বিক্রি করছেন ৫৫/৫৭ টাকা দরে। এখন বিক্রি করছেন ৩২ টাকা কেজি দরে। শুরুতেই এমন দাম পেয়ে তিনি বেজায় খুশী।
বাজারে যার আলু যত আগে উঠবে, তার লাভ তত বেশি। আগেভাগেই আলু আবাদ মানে নবান্নের বাজারটা ধরতে হবে।” নবান্নে নানা ধরনের সবজির সঙ্গে নতুন আলু মিশিয়ে বাহারি তরকারির কদরও বেশি।জানালেন নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ উপজেলার উত্তর দুরাকুটি গ্রামের আলু চাষী আলম হোসেন। তিনিও নতুন আলু বাজারে বিক্রি শুরু করে দিয়ে ভালই দাম পাচ্ছেন।

কচুকাটা গ্রামের আলু চাষী কালাম হোসেন (৪০) বললেন আলুর আগাম বাজার ধরতেই তিনি আগাম আলু চাষ করেছেন ৪ বিঘা জমিতে। অগ্রহায়নের শুরুতেই তার ক্ষেতের আলু উঠে এসেছে। তাকে ক্ষেত থেকে আলু তুলে বাজারে নিয়ে যেতে হচ্ছেনা। পাইকারা কাড়াকাড়া করে এসে ক্ষেতের আলু ক্ষেতেই ক্রয় করে নিয়ে যাচ্ছে ।
আলু ব্যবসায়ী রোস্তম আলু বললেন আগাম আলু চাষ কোন কোন এলাকার কৃষক করছেন তার খোঁজ তাদের কাছে রয়েছে। তাই ভোরে উঠেই আলূ ক্ষেতে দৌড় দিতে হয়। ক্ষেত থেকে আলু উঠিয়ে আলুর ওজন করে আলু চাষীকে নগদ টাকা বুঝিয়ে দিয়ে আলু বাজারে নিয়ে আসছেন। তিনি বললেন চাহিদা অনুযায়ী এখন প্রচুর আলু পাওয়া যাচ্ছে। তাই এই আলু ট্রাকে তুলে ঢাকা বা অন্য জেলায় পাঠানো সম্ভব হচ্ছে।
নীলফামারীর বড়বাজারে নতুন আলুর ভোক্তা আব্দুর রশিদ বললেন দাম যাই হোক। নতুন আলুর স্বাদ আলাদা। হিমঘরের আলু বেশী মিষ্টি হওয়ায় নতুন আলুর প্রতি কার না মনটানে।
উল্লেখ যে উত্তরাঞ্চলের কৃষকরা এখন কোন জমি আর পতিত ফেলে রাখছেন না। হাল আমলের আগাম ও স্বল্পমেয়াদী জাতের আমন ধান কর্তনের সঙ্গে সঙ্গেই কৃষকরা আলু রোপনে ব্যস্ত হয়ে পড়েছিল। মধ্য আশ্বিন ব্রি-৩৩, ব্রি-৩৯, ব্রি-৪৯, ব্রি-৫৬ ও বীণা-৭ জাতের ধান কেটে ঘরে তুলে সেই জমিতে আগাম আলুর বীজ বুনেছিল কৃষক । ৫৫ থেকে ৬০ দিনের মধ্যে এই আলু বাজারে আসার কথা থাকলেও তার আগেই চলে এসেছে এই আলু।
মজার বিষয়টি যে সব ক্ষেত থেকে আগাম আলু উঠে আসছে। সেই ক্ষেতেই আবার নতুন করে আলু রোপন শুরু করেছে কৃষক।
এবার রংপুর কৃষি আঞ্চলে আটটি জেলায় ১ লাখ ৫৪ হাজার ৯৪৮ হেক্টর জমিতে আলু আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আগাম ধানের ক্ষেতের আলু চাষের পর এবার শুরু হচ্ছে অগ্রহায়নের ধান তুলে নতুন উদ্দ্যমে আলু চাষের পালা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful