Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ১৭ অগাস্ট, ২০১৯ :: ২ ভাদ্র ১৪২৬ :: সময়- ৬ : ৪৮ অপরাহ্ন
Home / জাতীয় / ঈদ যাত্রায় উত্তরবঙ্গের মহাসড়কে শঙ্কা থাকছেই

ঈদ যাত্রায় উত্তরবঙ্গের মহাসড়কে শঙ্কা থাকছেই

ফাইল ছবি

ডেস্ক: আসন্ন ঈদুল ফিতরে মহাসড়কে যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে ব্যাপক পরিকল্পনা নিয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। এরইমধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছে ৩২ দফা নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। সে অনুযায়ী মহাসড়কে সংস্কার কাজও শুরু হয়েছে। এরপরও বিভিন্ন কারণে রাজশাহীসহ উত্তরের আট জেলার মহাসড়কে ঈদে নিরাপদে বাড়ি ফেরা নিয়ে শঙ্কা থাকছেই।

ঈদ এলেই উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার সিরাজগঞ্জের মহাসড়কগুলোতে বিভিন্ন দুর্ভোগের আশঙ্কার মধ্য দিয়েই ঘরে ফেরেন মানুষ। জেলার মহাসড়ক দিয়ে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের অন্তত ২০টি জেলার মানুষ ঢাকায় যাতায়াত করে। তবে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবারের ঈদে জেলার সব মহাসড়ক যানজটমুক্ত থাকার কথা দাবি করলেও পুলিশের আশঙ্কা অন্তত একটি মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, নলকা-কাছিকাটা ব্রিজ ৩০ কিলোমিটার ও চান্দাইকোনা বাঘাবাড়ি ব্রিজ ৫৮ কিলোমিটার মহাসড়কের মধ্যে বেশিরভাগই মেরামত কাজ শেষ হয়েছে। তবে শহরের মধ্য দিয়ে বয়ে চলা মুলিবাড়ী-নলকা মহাসড়কের নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। চারলেন ও দুইলেনের এ মহাসড়কটির বেশকিছু কাজও শেষ হয়েছে। অপরদিকে বিবিএ কর্তৃপক্ষের আওয়তাধীন বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম-নলকা মহাসড়ক সম্পূর্ণই স্বাভাবিক রয়েছে।

এদিকে হাটিকুমরুল হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের জিলানী বলেন, মহাসড়কের অবস্থা ভালো থাকলেও বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে হাটিকুমরুল পর্যন্ত যানজট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কড্ডার মোড় এলাকায় রোড ডিভাইডারের প্রতি লেনে একটির বেশি যানবাহন ঢুকতে পারবে না। ফলে যানজট সৃষ্টি হবে বলে দাবি করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

সরাসরি বগুড়ায় যুক্ত ১৪০ কিলোমিটার মহাসড়ক। এরমধ্যে ঢাকা-বগুড়া-রংপুর মহাসড়ক ৬৫ কিলোমিটার, বগুড়া-নাটোর মহাসড়ক ৩০ কিলোমিটার ও বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়ক ৪০ কিলোমিটার। এদিকে আবার ঢাকা-বগুড়া-রংপুর মহাসড়ক ৬ লেনে উন্নীত করতে এরইমধ্যে ঠিকাদার নিযুক্ত ও কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে।

তবে বিগত যেকোনো সময়ের চেয়ে মহাসড়কের এই অংশটুকুর অবস্থা অনেক ভালো বলে সংশ্লিষ্টদের দাবি। অবশ্য মহাসড়কের একাধিক স্থান সরেজমিন ঘুরে ও খোঁজখবর নিয়ে সংশ্লিষ্টদের দাবির সত্যতাও পাওয়া যায়। কিন্তু মহাসড়কের দীর্ঘ এই পথের মধ্যে একাধিক মোড় বা বাঁক দাঁড়িয়ে রয়েছে মরণের যমদূত হয়ে। এসব মোড়ের সিংহভাগ স্থানে বেশিরভাগ সময় ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটেই থাকে। এছাড়াও বাঁকা বা সরু সেতু রয়েছে মহাসড়কের একাধিক স্থান। মোড় বা সরু সেতু এলাকাগুলো এ অঞ্চলের মানুষের কাছে এরইমধ্যে ‘ডেথস্পট’ হিসেবে পরিচিত পেয়েছে।

এসব মোড় বা সরু সেতু নির্দেশ করে মহাসড়কের দু’পাশ দিয়ে সাইনবোর্ড দেওয়া হয়েছে। চালকদের সতর্ক করতে এসব সাইনবোর্ড দেওয়া।

বগুড়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান জানান, বগুড়া জোনের আওতাধীন মহাসড়কের অবস্থা যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক ভালো। তবে মহাসড়কের মোড় বা বাঁকা এলাকায় সব সময়ই দুর্ঘটনার ঝুঁকিটা অত্যন্ত বেশি থাকে।

এ প্রসঙ্গে সড়ক বিভাগের এই কর্মকর্তা জানান, ঢাকা-বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের ৬ লেনে উন্নীতকরণের জন্য এরইমধ্যেই ঠিকাদার নিযুক্ত করা ও কার্যাদেশ হয়েছে। এখন মহাসড়কের মোড় বা বাঁকা স্থান অথবা সরু সেতু বা ব্রিজের বিষয়গুলো তারাই দেখবেন। তবে মোড় ছাড়া মহাসড়কের ১৪০ কিলোমিটার অংশে তেমন একটা ঝুঁকি দেখছেন না প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful