Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৬ মে, ২০২০ :: ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ :: সময়- ১২ : ২৫ পুর্বাহ্ন
Home / রংপুর / রংপুরে পুকুর ভরাট করে মার্কেট নির্মাণের প্রতিবাদে মানববন্ধন

রংপুরে পুকুর ভরাট করে মার্কেট নির্মাণের প্রতিবাদে মানববন্ধন

মমিনুল ইসলাম রিপন: ঐতিহ্যবাহী মন্থনা জমিদার বাড়ির পুকুর ভরাট করে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষের মার্কেট নির্মাণের পরিকল্পনায় ফুসে উঠেছে রংপুরের মানুষ। পুকুর ভারাটের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে নগরীর জি.এল.রায় রোডস্থ ফায়ার সার্ভিস অফিসের সামনে মানববন্ধন-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বক্তারা আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী জলাশয়-পুকুর সংরক্ষণের নির্দেশনা দিচ্ছেন অন্যদিকে সরকারের কর্মকর্তারা সেই নির্দেশ অমান্য করে পুকুর-জলাশয় ভরাট করে পরিবেশের ক্ষতি করছেন। মন্থনা পুকুর রংপুরের ঐতিহ্য। মুনাফার স্বার্থে কোনভাবেই রংপুরের এই ঐতিহ্যকে বিনষ্ট করা চলবে না। পরিবেশবান্ধব এই পুকুরটিকে ভরাট করে মার্কেট নির্মাণের কোন অশুভ তৎপরতা রংপুরবাসী মেনে নেবে না। যে কোন মূল্যে এই অশুভ তৎপরতা প্রতিহত করা হবে।

বক্তারা, অবিলম্বে রংপুর ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ঐতিহ্যবাহী মন্থনা পুকুর ভরাট করে মার্কেট নির্মাণের কার্যক্রম বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর নিকট জোর দাবি জানান। সেইসাথে সমাবেশ থেকে ঐতিহ্যবাহী মন্থনা পুকুর ভরাট করে মার্কেট নির্মাণের অশুভ তৎপরতা বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত ধারাবাহিক আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়।

ঐতিহ্যবাহী মন্থনা জমিদারের পুকুর রক্ষা সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক অ্যাডভোকট দীপক কুমার সাহার সভাপতিত্বে এবং রাজনীতিবিদ পলাশ কান্তি নাগ এর পরিচালনায় মানববন্ধন-সমাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রবীণ রাজনীতিবিদ জননেতা মোহাম্মদ আফজাল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি শাহাদাত হোসেন, রংপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি সদরুল আলম দুলু, অধ্যক্ষ খন্দকার ফকরুল আনাম বেন্জু, ডাঃ মাফিজুল ইসলাম মান্টু, সাংবাদিক নজরুল মৃধা, দেবদাস ঘোষ দেবু প্রমুখ।

মন্থনা পুকুর রক্ষা সংগ্রাম কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ১৩০৫ বঙ্গাব্দে থেকে ১৩৩০ বঙ্গাব্দ পর্যন্ত আর ভবতারিণী দেবী মন্থনা জমিদারী পরিচালনা করেন বর্তমান ফায়ার সার্ভিস অফিস থেকে। তাঁর মৃত্যুর পর দত্তকপুত্র ভবেন্দ্র নারায়ণ ছিলেন এই জমিদারীর শেষ জমিদার। রংপুর শহরের মন্থনা কাচারি বাড়ি যা বর্তমানে দমকল বাহিনীর আঞ্চলিক কার্যালয় হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে। এটি তিনি ব্যবহার করনে। এর পশ্চিম পাশেই রয়েছে বিশাল একটি পুকুর। পুকুরটি প্রজাদের সুবিধার্থে প্রায় সোয়া’শ বছর আগে খনন করা হয়। রংপুর শহরের অগ্নি নির্বাপণের একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে এই পুকুরটি। সম্প্রতি এই পুকুরটির পশ্চিমাংশ ভরাট করে সেখানে মার্কেট নির্মাণ পরিকল্পনা করেছে ফায়ারসার্ভিস কর্তৃপক্ষ। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে তারা পুকুরটির পশ্চিমাংশ ভরাট করে ফেলেছে। পুকুরে পূর্বপাশে ইট, বালু,ও পাথর এনে জমা করে রেখেছে। দুএকদিনের মধ্যে নির্মাণ কাজও শুরু হবে।

এদিকে রংপুর ফায়ারসার্ভিস সিভিল ডিফেন্সের উপ- পরিচালক ইউনুস আলী জানান, পুকুরে পশ্চিম পাশে মাটি ভরাট করে সেখানে ঘর নির্মাণ করা হবে। এত বড় পুকুরের প্রয়োজনীতা নেই। তাই এমনটা করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর কোন জলাশয় ভরাট করা যাবে না বলে নির্দেশনা দিয়েছেন তার পরেও কেন পুকুর ভরাট করা হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কোন মন্তব্য করেননি।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful