Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ :: ৮ কার্তিক ১৪২৬ :: সময়- ৩ : ১১ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / ইংল্যান্ডই জিতল, শেষে ভারত জেতার চেষ্টাই যে করল না!

ইংল্যান্ডই জিতল, শেষে ভারত জেতার চেষ্টাই যে করল না!

স্পোর্টস রিপোটার : শেষের অংক মেলাতে পারলো না ভারত। আরেকটু নির্দিষ্ট করে বললে-পারলেন না ধোনি! ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এজবাস্টনে এই ম্যাচ জেতার জন্য শেষের দিকে টি-টুয়েন্টি স্টাইলের ব্যাটিংয়ের প্রয়োজন ছিলো ভারতের। জিততে চাই শেষ ২৪ বলে ৬২ রান।

কঠিন সেই টার্গেট পার করতে পারলো না ভারত। পারলেন না ধোনি। আটকে গেলো ভারতের ইনিংস ৫ উইকেটে ৩০৬ রানে। ইংল্যান্ড ৩১ রানে ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখলো বেশ সতেজ ভাবেই।

আর ইংল্যান্ডের এই জয়ে এশিয়ার বাকি তিনদেশ বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সেমিফাইনাল স্বপ্ন আরেকটু ধুসর হয়ে গেলো! ইংল্যান্ডের জয়ে নীরব এজবাস্টন স্টেডিয়ামের হাহাকারের নিঃশ্বাস সেই সত্যই জানান দিলো!

টার্গেট যতোই কঠিন হোক না কেন-অন্তত জেতার চেষ্টা তো চালাতে হবে। কিন্তু এই ম্যাচে হারদিক পান্ডিয়ার আউটের পর শেষের কয়েক ওভারে মহেন্দ্র সিং ধোনি ও কেদার যাদবের ব্যাটিংয়ে সেই জয়ের তাড়নাই যে অনুপস্থিত!  মনে হচ্ছিলো ভারত এই ম্যাচে জেতার চেয়ে রান রেট ঠিক রাখতেই বেশি মনোযোগী!

শেষের পাঁচ ওভারে এই ম্যাচে ভারতের ব্যাটিং অনেক প্রশ্নের জন্ম রেখে দিলো ঠিকই! হাতে উইকেট জমা আছে কিন্তু এই সময়ে বাউন্ডারি এলো মাত্র তিনটি ! ছক্কা একটি, তাও শেষ শুধু শেষ ওভারে!

কেন?

জেতার তাড়াই যে দেখালো না ভারত শেষে এসে!

প্রথম ১০ ওভারে ভারতের স্কোরবোর্ডে রান জমা মাত্র ২৮ রান! অথচ জয়ের জন্য টার্গেট ৩৩৮। এতো বিশাল স্কোর তাড়া করতে নেমে শুরুর পাওয়ার প্লে’তে এমন ধীরগতির ব্যাটিং! কিন্তু রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলির পরের পাওয়ার প্লে’র ব্যাটিং ভারতকে এমন জায়গায় এনে দাড় করিয়ে দেয়- যেখান থেকে তখন ৩৩৮ রানের লক্ষ্যকে খুব অসম্ভব কোনোকিছু মনে হচ্ছিলো না!

ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই দলীয় ৮ রানে ওপেনার লোকেস রাহুলকে হারায় ভারত। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলি গড়লেন ‘বিরাট’ রানের জুটি; ১৩৮ রানের! বিরাট ৬৬ রান করে ফিরলেন। কিন্তু রোহিত শর্মা আরেকবার ঠিকই জানান দিলেন কেন তাকে বিশ্বসেরা ওপেনার বলা হয়। সেঞ্চুরি তুলে নিলেন মাত্র ১০৬ বলে। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এটি তার ২৫ নম্বর সেঞ্চুরি। আর চলতি বিশ্বকাপে তৃতীয়। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১২২ রান দিয়ে এবারের বিশ্বকাপ শুরু করেছিলেন। মাঝে পাকিস্তানের বিপক্ষে করলেন ১৪০ রান। এজবাস্টনে এই ম্যাচে খেললেন ১০২ রানের দুর্দান্ত ইনিংস।

চার নম্বরে ব্যাট করতে নামা রিসাভ পান্থের বিশ্বকাপ অভিষেকও মন্দ হলো না। ২৯ বলে ঝপপট ৩২ রান তুলে ফিরলেন তিনি।

ম্যাচ জেতানোর জন্য শেষের দায়িত্বটা গিয়ে পড়লো হারদিক পান্ডিয়া ও মহেন্দ্র সিং ধোনির ওপর। শেষ ১০ ওভারে ভারতের প্রয়োজন দাড়ায় ১০৪ রানের। পান্ডিয়া উইকেটে সেট। ধোনি মাত্র উইকেটে নামেন। পুরোদুস্তর টি-টুয়েন্টির আমেজ তখন এজবাস্টনে। বলাই যায় মঞ্চ তৈরি ধোনির জন্য। কিন্তু প্রতিদিন তো আর অভিনেতা মঞ্চ কাঁপাতে পারেন না!

পান্ডিয়া- ধোনি- কেদার যাদব এই ম্যাচে শেষের দিকের সেই ‘ব্যর্থ অভিনেতা’!

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ইংল্যান্ড: ৫০ ওভারে ৩৩৭/৭ (রয় ৬৬, বেয়ারস্টো ১১১, রুট ৪৪, মরগান ১, স্টোকস ৭৯, বাটলার ২০, ওকস ৭, প্লানকেট ১*, আর্চার ০*; সামি ৫/৬৯, বুমরাহ ১/৪৪, কুলদীপ ১/৭২)
ভারত: ৫০ ওভারে ৩০৬/৫ (রাহুল ০, রোহিত ১০২, কোহলি ৬৬, পান্ত ৩২, পান্ডিয়া ৪৫, ধোনি ৪২*, কেদার ১২*; ওকস ২/৫৮, প্লানকেট ৩/৫৫)
ফল: ইংল্যান্ড ৩১ রানে জয়ী
ম্যাচসেরা:  জনি বেয়ারস্টো

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful