Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ :: ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ :: সময়- ১১ : ৩১ অপরাহ্ন
Home / নীলফামারী / ডিমলায় পাথর ব্যবসায়ীর মৃত্যু নিয়ে অভিযোগ

ডিমলায় পাথর ব্যবসায়ীর মৃত্যু নিয়ে অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ১২ সেপ্টেম্বর॥ পাথর ব্যবসায়ী সামিউল ইসলাম(৩৫) গতকাল বুধবার(১১ সেপ্টেম্বর) রাতে নিজবাড়িতে মৃত্যুবরন করেছে। আজ বৃহস্পতিবার(১২ সেপ্টেম্বর) ওই ব্যবসায়ীর হটাৎ মৃত্যু নিয়ে নানান অভিযোগ করেছে সামিনুর ইসলামের স্ত্রী স্বপ্না আক্তার ও এলাকার পাথর ব্যবসায়ীরা। সামিউল নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের খগাখড়িবাড়ী ঝাড়পাড়া গ্রামের মঙ্গলু মামুদের ছেলে। হঠাৎ মৃত্যুতে সামিউল ইসলামের স্ত্রী ও দুই কন্যা সন্তান শাম্মি(৮) ও শিফাত(২) চোখে মুখে অন্ধকার দেখছে।
পারিবারের পক্ষে জানানো হয় সামিউল ও তার ব্যবসায়ী পার্টনার হারুন অর রশীদ দীর্ঘদিন থেকে বৈধভাবে পঞ্চগড়ের ভোজনপুর থেকে পাথর ক্রয় করে এনে ডিমলার সুটিবাড়ি এলাকায় ব্যবসা করে আসছিল। অভিযোগ মতে চলতি বছরের ১৯ আগস্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উপজেলায় সুটিবাড়ী এলাকার ৩১ জন পাথর ব্যবসায়ীর ক্রয়কৃত এক লাখ ৩০ হাজার ২০১ দশমিক ৫০ সিএফটি পাথর জব্দ করেন। সেখানে সামিউল ও তার পার্টনার হারুন-অর রশিদের ৪ হাজার পাথর থাকলেও উপজেলা প্রশাসন জব্দ তালিকায় তার পার্টনার হারুন অর রশিদের নামে ২ হাজার ৩৪০ সিএফটি পাথর দেখায়। ব্যবসায়ীরা জানায় তারা ওই এলাকার ৩১জনের মধ্যে দুই জন বুড়িমারী ও ২৯ জন পঞ্চগড় থেকে পাথর কিনে দীর্ঘদিন ব্যবসা চালিয়ে আসছিল।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কর্তৃক পাথর জব্দ করার পর তারা জেলা প্রশাসক, উপজেলা প্রশাসকের কাছে বৈধভাবে পাথর ক্রয়ের কাগজপত্র দাখিল করে। কিন্তু ঘটনার ২৫ দিন অতিবাহিত হলেও প্রশাসন ওই পাথর ছাড় দেয়নি। ফলে অনেক ব্যবসায়ী বিভিন্ন এনজিও ও স্থানীয় দাদন ব্যবসায়ী নিকট চরা সুদে টাকা নিয়ে চরম বিপদে পড়েছে। ব্যবসায়ীগন বলেন, সরকারী ভাবে ট্রেড লাইসেন্স মাধ্যমে সারাদেশে পাথর বিক্রির নিয়ম থাকলেও ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার ব্যবসায়ীদের হয়রানী করছে।
পাথর ব্যবসায়ী হারুন-অর রশিদ বলেন, পাথর বিক্রি করতে না পারায় তার পার্টিনার সামিউল মানিসকভাবে ভেঙ্গে পড়েছিল। উপজেলা প্রশাসনকে বার বার ধণা দিলেও পাথর বিক্রির অনুমতি পাওয়া যায়নি। পাথর ব্যবসায়ী রাসেল সরকার বলেন, বৈধভাবে পাথর কেনার পর ইউএনও কিভাবে তা জব্দ করেন সেটা বুঝতে পারছি না আমরা। ইউএনও কারনে আজ আমাদের পথে বসার উপক্রম হয়েছে। এনিয়ে মানষিক চাপ সহ্য করতে না পেরে সামিউল মারা গেল।
এ ব্যাপারে ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুন নাহারের সঙ্গে কথা বলার চেস্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful