Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৬ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ১ : ৫০ অপরাহ্ন
Home / আলোচিত / জাপার হাজার কোটি টাকার মনোনয়ন বাণিজ্য!

জাপার হাজার কোটি টাকার মনোনয়ন বাণিজ্য!

JPডেস্ক: নির্বাচনী সরকারে যোগ দিয়েই ক্ষমতার স্বপ্ন দেখছেন পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। নির্বাচনকে পুজি করে রমরমা মনোনয়ন বানিজ্যে মেতেছে সাবেক এই রাষ্ট্রপতি। এবারে তার টার্গেট হাজার কোটি টাকা।

সিনিয়র নেতারা অভিযোগ করেছেন, মনোনয়নপত্র বিক্রি শুধু লোভ দেখানো। টাকা দিলেই মনোনয়ন মিলছে জাতীয় পার্টির । মূল্যায়ন পাচ্ছেন না ত্যাগী নেতারা। ফলে দলের মধ্যে একটি অংশ এরশাদের এই আচরণকে পছন্দ করতে পারছেন না। সেক্ষেত্রে এরশাদের একক মনোনয়ন বাণিজ্যে আবারো ভাঙনের মুখে পড়তে পারে জাতীয় পার্টি । এককভাবে নির্বাচন করায় এবার ২৯৯ আসনেই মনোনয়ন বাণিজ্যের সুযোগ পাচ্ছেন তিনি। ফলে এই বাণিজ্য থেকে তার হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হবে বলে ধারণা করছেন জাপার শীর্ষ নেতারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের একাধিক প্রেসিডিয়াম সদস্য এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

গত বুধবার থেকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মাঝে মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু করেছে জাপা। চলে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত। ২৬ নভেম্বরের মধ্যে ফরম জমা এবং ২৭ থেকে ৩০ তারিখ পর্যন্ত প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার শেষ হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

দলের সূত্র জানায়, আইসিএল গ্রুপের চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান কুমিল্লা-১৪ আসনে, নোয়াখালী-২ আসনে এস এ পরিবহনের চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন আহমেদ, শিল্পপতি সোলায়মান শেটকে চট্টগ্রামে, ঝিনাইদাহ-২ আসনে তামিম গ্রুপের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদকে, জামালপুর-৫ আসনে সদ্য জাপায় যোগদানকারী নেতা শিল্পপতি মির্জা খোরশেদ আলমকে, বরিশাল-৩ আসনে গোলাম কিবরিয়া টিপু। ঢাকা-৫ আসনে হাজী তুহিনুরকে প্রথমে মনোনয়ন দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পরে এ আসনে মনোনয়ন দেয়া হয় আব্দুস সবুর আসুদকে। নোয়াখালী-১ আসনে এ বি এম হারুন এল রশিদের স্থলে দিদারুর রহমানকে, কুড়িগ্রাম-৩ আসনে এ কে এম সাইদুল ইসলামের স্থলে গোলাম হাবিব দুলালকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। অভিযোগ আছে, টাকার বিনিময়ে এসব আসনে প্রার্থী বদল করেছেন দলটির চেয়ারম্যান।

এদিকে বরিশাল-১ আসনের সাবেক মন্ত্রী সুনীল গুপ্তের ছেলে অরাজনৈতিক ব্যক্তি সমীর গুপ্তকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে। এখবর ঐ এলকায় নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জাপার এক মহানগর নেতা বলেন, জাতীয় পার্টিতে ত্যাগের কোনো মূল্য নাই। টাকা ছাড়া এরশাদ (স্যার) কাউকে মনোনয়ন দিবেন না। টাকা হলে প্রার্থী নিশ্চিত করা সম্ভব।

মনোনয়ন পাওয়া শফিকুর রহমান বলেন, মনোনয়ন পেতে কিছু অর্থ খরচ হওয়া স্বাভাবিক। বশির হোসেন খান: এটিএন

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful