Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০ :: ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ :: সময়- ১১ : ৩৯ পুর্বাহ্ন
Home / দিনাজপুর / অবরোধে অচল দিনাজপুর

অবরোধে অচল দিনাজপুর

DINAJPUR- 02 copyএস.এন.আকাশ: নির্বাচনী তফসিল বাতিল ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগের দাবীতে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা অবরোধ কর্মসূচী অব্যাহত রয়েছে। অবরোধের কারণে অচল হয়ে পড়েছে দিনাজপুর শহর সহ ১৩ উপজেলা। ৪ দিনের অবরোধে থমকে গেছে জনজীবন। কোন প্রকার লোকাল বাস বের হচ্ছে না, চলছে না ট্রেন। কারও মুখে হাসি নেই। চিন্তার ছাপ সকলের মুখেই।

গত ৪ দিনে দিনাজপুরে কোন প্রকার লোকাল ট্রেন সহ কোন ট্রেন দিনাজপুর থেকে ছেড়ে যায়নি কিংবা আসেনি। বলা হয়ে থাকে উত্তরাঞ্চলের প্রধান বাহন হচ্ছে ট্রেন। কিন্তু অবরোধের কারণে বিভিন্ন জেলা থেকে আগত যাত্রী সাধারণেরা আটকা পড়েছেন। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ব্যবসায়ীরা। মৌসুমী ব্যবসায়ীদের যেন কান্না থামছে না। চড়া সুদে এ সমস্ত ব্যবসায়ীরা মৌসুমী ব্যবসা করলেও তা বিক্রি করতে পারছেন না। বা তেমন ভাল দামও আসছে না। পন্য পরিবহন বন্ধ। এক ব্যবসায়ী সিরাজ জানান, দিনাজপুরে এই পর্যন্ত তাদের ক্ষতি হয়েছে কয়েক কোটি টাকা। কৃষকদের নবান্ন উৎসব যেন ম্লান হয়ে গেছে। পন্য পরিবহন না থাকায় ব্যবসায়ীরা দূর দূরান্ত থেকে আসতে পারছে না। ফলে ধানের তেমন দাম নেই। এবারে সরকারী মূল্য ৩০ টাকায় চাল কেনা হচ্ছে। কিন্তু কৃষক মোকলেছুর রহমান জানান, সরকারি মূল্য ৩০ টাকা চাল কিনলেও কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। কারণ হিসেবে জানা গেছে, বীজের দাম, সারের দাম বেশি। পরিশ্রম ও লোক খাটিয়ে তার ক্ষতি পুষিয়ে উঠছে পারছে না কৃষকরা। এ তো গেল কৃষকের কথা। দিনাজপুর পুলহাটের চাল ব্যবসায়ী মামুন জানান, ব্যাংক থেকে কয়েক কোটি টাকা লোন নিয়ে অটো রাইস মিল করেছি। কিন্তু রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে মাড়াই করা মিলের চাল মিলেই পড়ে আছে ক্রেতা না থাকায় বিক্রি করতে পারছি না এসব চাল। শুধু তাই নয় ব্যাংক লোনের সুদ প্রতি মাসে পরিশোধ করতে হচ্ছে আসল থেকে। কেননা ব্যবসা বন্ধ থাকলেও ব্যাংক সুদের টাকা নিতে বিরত থাকবে না। এভাবে চলতে থাকলে আমার মত অনেকেই নিঃস্ব হয়ে পথে বসবে।

এদিকে পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারি উপজেলার ক্রিস্টিনা বায়েন ও লিজা গত চার দিন আগে ছোট ছোট মিশুক ও ইজিবাইকে এসেছেন খ্রিষ্টান হাসপাতাল কসবায় নার্সিং পরীক্ষা দেবার জন্য। পরীক্ষা দেবার পরও এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তারা দু’জনই আটকা পড়েছেন দিনাজপুরে। কারণ ট্রেন ও বাস দুটোই অবরোধের জন্য বন্ধ।
অপরদিকে এক এনজিওর বীরগঞ্জ উপজেলার প্রেমবাজারে অবস্থিত একটি খ্রিষ্ট্রান এতিমখানার প্রধান কর্মকর্তা (বীরগঞ্জ) লিটন জন মন্ডল এ প্রতিনিধিকে জানান, আমাদের এতিমখানায় ৩টি শিশু গুরুতর অসুস্থ। তাদের চিকিৎসা সেবার জন্য পার্বতীপুর ল্যাম্ব হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া প্রয়োজন কিন্তু অবরোধের কারণে নিয়ে যেতে পারছেন না। শুধু তাই নয় বড় দিনের ছুটির জন্য সকল এতিম ছাত্র-ছাত্রীদের ছুটি দেওয়া হলেও অবরোধের কারণে কোন শিশুই দিনাজপুরের বাইরে যেতে পারছে না। চরম উৎকন্ঠায় ও উদ্বেগের মধ্যে আছেন তিনি। আশা করছেন শুক্রবার হয়তো তিনি সহ এতিম খানার সবাই নিজ নিজ বাসায় যেতে পারছেন এবং বড় দিনের আনন্দে শরীক হতে পারবেন। পরিবহন শ্রমিক নাজ এন্টার প্রাইজ এর সুপার ভাইজার খোকন জানান, তিনি ঢাকা গাবতলী থেকে দিনাজপুরে গাড়ি নিয়ে আসেন। অবরোধের কারণে বিগত ৪ দিন তার অপর এক পরিবহন শ্রমিকের বাসায় রয়েছেন। তার মেয়ের কান্না মোবাইল ফোনে শুনে তিনিও কেঁদে ফেলেন। বাবার আদর তার মেয়ে তিকলি পাচ্ছে না।
দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশনের চা দোকানদার লিটন জানান, আমার দোকান মাত্র ৪/ ৫ ঘন্টা খুলে রাখি। বাকি সময় বন্ধ রাখতে হচ্ছে কারণ ট্রেন চলাচল করছে না। যাত্রী নেই। বেচাকেনা হচ্ছে না। এমন অভিযোগ চা দোকানদারও পাশ্ববর্তী রানা’এর। তিনি বলেন, অবরোধের কারণে আমার ৬ হাজার টাকা লোকসান হয়ে গেছে।
অভিভাবকরা রয়েছেন নানা শঙ্কার মধ্যে। তিনিরা জানান, ছেলেমেয়ের পরীক্ষা নিয়ে চিন্তায় আছি। অনেক ঝুঁকি নিয়ে বাসা থেকে বের হই। জানি না কখন কি হয়। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী জানান, পরীক্ষা দিতে দিতে বুড়ি হয়ে গেলাম তার পরও পরীক্ষা পিছু ছাড়ছে না। একদিকে সেসন জোট অন্যদিকে অবরোধ হরতাল। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা কবে নাগাদ শেষ হবে আল্লাহই জানেন।
এদিকে কারিগরি বোর্ডের ৩ বছর মেয়াদী কিছু মেডিকেল ইনস্টিটিউটের ছাত্রছাত্রীরা জানান, তাদের পরীক্ষা ২ ডিসেম্বর হওয়ার কথা ছিল কিন্তু পরীক্ষা তো হলই না বরং কবে নতুন করে পরীক্ষার রুটিন দেবে এই চিন্তায় তাদের পড়ালেখার ক্ষতি হচ্ছে। এক কথায় নাভিশ্বাস হয়ে উঠেছে সবকিছুই।
দিনাজপুরে টানা ৪র্থ দিন অবরোধের কারণে দিনাজপুর জেলার ১৩ উপজেলার অফিস-আদালত- ব্যাংক-বীমা, স্কুল-কলেজ উপস্থিতি ও লোক সমাগম ছিল কম। অপরদিকে দিনাজপুর জেলা শহর থেকে বিভিন্ন উপজেলার অফিস-আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা টানা অবরোধের কারণে নিজ কর্মস্থলে যেতে পারছে না। তারা বাড়িতে বসেই অলস দিন কাটাচ্ছেন বলে জানা গেছে। বিশেষ করে ব্যাংকগুলোতে টাকা লেনদেন নেই বললেই চলে। অপরোধে নাশকতার আশঙ্কায় জেলা প্রশাসক, উপজেলা পরিষদ, জেলা পরিষদ সহ অন্যান্য অফিসগুলোর প্রধান গেট বন্ধ রেখে অফিস করছেন। জেলা নির্বাচনের অফিসের সামনে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে মনোনয়ন দাখিলের আগের দিন থেকে যা চোখের পড়ার মত।
অপরদিকে দৌড়ের উপরে রয়েছে পুলিশ। বরাবরের মত জামায়াত-অফিস, বিএনপি অফিস-এর সামনে বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন রয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শহরে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলেও দিনাজপুর গোপালগঞ্জ নামক স্থানে আনুমানিক সকাল ১১টার দিকে পুলিশ-অপরোধকারীদের সংঘর্ষে সাইদুল ও নিপেন্দ্র নামক ২ পুলিশ সদস্য আহত হয়। থেমে থেমে ছোট বড় বিক্ষোভ মিছিল অব্যাহত রয়েছে। ট্রেন চলাচল করেনি। দূর পাল্লার কোন বাস ছেড়ে যায়নি। পরিশেষে জনসাধারণ ফুঁসে উঠেছে। জনসাধারণ ও সুধী মহলের দাবী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া দু’জন বয়সের কথা চিন্তা করে অবসর নেয়া উচিত এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ করে দেশকে অস্থিতিশীল পরিবেশন থেকে রক্ষা করার আহবান জানান। আর যেন কোন মায়ের কোল না খালি হয়।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful