Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ৮ জুলাই, ২০২০ :: ২৪ আষাঢ় ১৪২৭ :: সময়- ৭ : ১১ পুর্বাহ্ন
Home / দিনাজপুর / দিনাজপুরে কিছুতেই থামছে না অবৈধ বালু উত্তোলন

দিনাজপুরে কিছুতেই থামছে না অবৈধ বালু উত্তোলন

শাহ্ আলম শাহী,স্টাফ রিপোর্টার,দিনাজপুর থেকে: দিনাজপুরে কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না অবৈধ পদ্ধতিতে বালু উত্তোলন।কোন প্রকার নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিনের সাহায্যে, কখনো নদীর পাড় কেটে,আবার কখনো আবাদি জমি থেকে অবাধে বালু উত্তোলন করছে,প্রভাবশালী এক শ্রেণীর স্বার্থান্বেষী মহল। এতে নদী তার গতিপথ হারাচ্ছে,ঘটছে মারাত্মক পরিবেশ বিপর্যয়।অন্যদিকে বালু বহনে নিয়োজিত বেপরোয়া ১০ চাকার ভারি ট্রাক এবং ট্রাক্টরগুলো প্রতিনিয়ত শব্দ ও পরিবেশ দূষণ করছে। ভেঙ্গে ফেলছে,রাস্তা-ঘাট।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ ও খানসামাসহ বিভিন্ন উপজেলাতে বেপরোয়া ভাবে চলাচল করছে,বালু বহনে নিয়োজিত ১০ চাকার ভারি ট্রাক এবং ট্রাক্টর। করোনাভাইরাসের ক্লান্তি লগ্নেও লকডাউন মানছে না,বালু ইজারাদার ও ট্রাক্টরের মালিকরা। বালু নিয়ে ট্রাক্টর বেপরোয়া ভাবে চলাচল করায় চরম ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে মানুষ। প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ছাড়াও ট্রাক্টর চলাচল ও ভপু বাজানোর বিকট শব্দ আর বহণকৃত বালু কণা উড়ে চরমভাবে দূষণ হচ্ছে পরিবেশ। এছাড়াও মহা-সড়কে চলাচলের জন্য অনুমোদিত ১০ চাকার ভারি ট্রাকগুলো গ্রামীণ রাস্তা দিয়ে চলাচল করায় এসব রাস্তা ভেঙ্গে ও দেবে যাচ্ছে। এমনই অভিযোগ করেছেন,খানসামা উপজেলা চেয়ারম্যান মো হাতেম। তিনি বলেন,উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার আগেই তিনি তার এলাকায় বালু-বাহী এই ১০ চাকার ভারি চলাচল যাতে না করতে পারে সেজন্য নিষেধাজ্ঞা চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিয়েছেন।এনিয়ে উপজেলা প্রশাসনের সভার আলোচনায় সিদ্ধান্ত হয়েছে,যাতে বালু-বাহী এই ১০ চাকার ভারি চলাচল যাতে না করতে পারে। কিন্তু,তারপরও দিব্যি বালু বহনে এই ১০ চাকার ভারি চলাচল করছে।

বীরগঞ্জ উপজেলার সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মো রমিজ আলম সরজমিনে ঝাড়বাড়ি এলাকায় পরিদর্শন করে এই ভয়াবহ এই করোনা পরিস্থিতির লকডাউন মূহুর্তে অবৈধ পদ্ধতিকে বালু উত্তোলন ও বহনে বিধি নিষেধ জারী করেছেন। কিন্তু,তা মানছেন না বালু ইজারাদাররা।

পূণর্ভবা,আত্রাই,ধলেস্বর,গর্ভেশ্বর,ইছামতি, ছোট যমুনা,তুলাই,কাঁকরা,ঢেপাসহ দিনাজপুরের বিভিন্ন নদী থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিনের সাহায্যে, কখনো নদীর পার কেটে,আবার কখনো আবাদি জমি থেকে অবাধে বালু উত্তোলন করছে, এক শ্রেণীর স্বার্থান্বেষী মহল।এতে নদী তার গতিপথ হারাচ্ছে,ভাংছে,পাড়,নদীতে বিলীন হচ্ছে, ফসলী জমি,ঘর-বাড়ি ও গাছ-পালা। এমন অভিযোগ পরিবেশবাদী ও বিরল রানী পুকুর ইউপি চেয়ারম্যান মো.ফারুক আযম। তিনি বলেন, একারণেই শুষ্ক মৌসুমেও জমে থাকা পানিতে গোসল করতে নেমে চোরা গর্ত ও বালুর খাদে পড়ে প্রাণ হারাচ্ছে অনেকেই। জেলার কয়েকটি নদীতে গত ৫ বছরে এভাবেই প্রাণ হারিয়েছে,২৭ জন তরতাজা তরুণ-যুবক। শুধু তাই নয়, অবৈধ পদ্ধতিকে বালু উত্তোলনের ফলে মারাত্মক ভাবে বিপর্যয় ঘটছে,পরিবেশের।

জেলার বেশ কয়েকটি স্থানে নদী থেকে এভাবেই মেশিনের মাধ্যমে অবাধে চলছে বালু উত্তোলনের মহাযজ্ঞ। শুধু নদী থেকেই নয়; কোথাও নদীর পাড় কেটে, কোথাও নাম মাত্র টাকা দিয়ে, আবার কোথাও জোরপূর্বক অন্যের ফসলি জমি কেটে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে।
নদী থেকে মেশিনের সাহায্যে বালু তোলা, নদীর পাড় কাটা কিংবা অন্যের জমি থেকে বালু উত্তোলনের কোন সুযোগ নেই বলে জানাচ্ছেন প্রশাসন। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন,দিনাজপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এইচ,এম. মাগ্ফুরুল হাসান আব্বাসী।

যত্রতত্র মেশিন দিয়ে নদী ও ফসলী জমি থেকে বালু উত্তোলন বন্ধে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপের প্রত্যাশা করছেন,স্থানীয়রা। এই অবৈধ পদ্ধতিতে বালু উত্তোলনের ফলে একদিকে যেমন নদী তার গতিপথ হারাচ্ছে,তেমনি ভারসাম্য হারাচ্ছে পরিবেশ। তাই,পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও জলবায়ু মোকাবেলায় এসব অবৈধ পদ্ধতিতে বালু উত্তোলন বন্ধের দাবী জানিয়েছেন,পরিবেশ বিদরা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful