Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ৫ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৭ : ২৮ অপরাহ্ন
Home / ঠাঁকুরগাও / ধানের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় ঠাকুরগাঁওয়ে ৭৫২ হেক্টর কম জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে

ধানের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় ঠাকুরগাঁওয়ে ৭৫২ হেক্টর কম জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে

তানভীর হাসান তানু, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ধানের নায্যমূল্য ও ইউরিয়া সারের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় ব্যাপক প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও ধান চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন ঠাকুরগাঁও জেলার কৃষকরা। এতে জেলায় বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ব্যাহত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।

গত কয়েক মৌসুমে ধানের কাক্ষিত দাম পাননি কৃষক। কিন্তু বেড়েছে কৃষি যন্ত্রপাতি, মজুরি, কীটনাশক ও সারের দাম। সেই সঙ্গে বেড়েছে জ্বালানি তেলের দাম এবং বিদ্যুতের বিলও। তার ওপর বৃষ্টিনির্ভর আমন মৌসুমে এ বছর সেচযন্ত্র দিয়ে সেচ দিতে গিয়ে বেড়ে গেছে ধানের উৎপাদন খরচ। এসব কারণে অনেক কৃষক ধান চাষে আগ্রহী নন।

আকচা গ্রামের কৃষক আবুল হোসেন জানান, তিনি এবার ৫ বিঘা জমিতে বোরে চাষের প্রস্তুতি নিয়েছিলেন, ধান দাম কম ও সারের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সব জমিতে বোরা চাষ করবেন কিনা  তা নিয়ে দিধাদ্বন্ধে রয়েছেন।

কৃষি সম্প্রাসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলায় চলতি মৌসুমে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬০ হাজার ৮০২ হেক্টর জমিতে ।

গত মৌসুমে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৬৭ হাজার ৫৫৪ হেক্টর জমিতে। আর আবাদ হয়েছিল ৭০ হাজার ৪৫০ হেক্টর জমিতে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্থানীয় বাজারে দ্বিগুণ দামে ইউরিয়া সার বিক্রি হচ্ছে। এক সপ্তাহ আগে কৃষকরা যে সার ৬শ’ টাকা বস্তা কিনেছেন সেই সারই এখন তাদেরকে ৯শ’ থেকে  ১ হাজার টাকা বস্তা কিনতে হচ্ছে। সরকার শুধুমাত্র ইউরিয়া  সারের দাম বৃদ্ধি করলেও সুযোগ সন্ধানী ব্যবসায়ীরা টিএসপি, এমওপিসহ অন্যান্য সারেরও দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

সদর উপজেলার বেগুনবাড়ি এলাকার কৃষক লুৎফর হোসেন, গত মৌসুমে ৫ বিঘা জমিতে বোরো আবাদ করেছিলেন। উৎপাদিত ধান প্রতিমণ ৩০০ টাকা দরে বিক্রি করে ১১ হাজার টাকা লোকসান হয়। তাই লোকসান কিছুটা পুষিয়ে নিতে ওই জমিতে এ বছর গম চাষ করেছেন।

জেলার হাট বাজারে চলতি মৌসুমের আমন ধান প্রতিমণ বিক্রি হচ্ছে ৪৮০ থেকে ৫২০ টাকা দরে।

সরকারি হিসাব অনুযায়ী এক একরে ধান উৎপাদনে ব্যয় হয় ৪৭ হাজার টাকা। একরে সর্বোচ্চ তিন হাজার কেজি ধান উৎপাদন হলে প্রতিমণ (৪০ কেজি) ধান উৎপাদনে ব্যয় হয় ৬২৭ টাকা।
বর্তমানে বাজারে প্রতিমণ আমন ধান বিক্রি হচ্ছে ৪৮০ থেকে ৫২০ টাকায়। এ হিসাবে মণপ্রতি লোকসান হচ্ছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ঠাকুরগাঁওয়ের উপ-পরিচালক বেলায়েত হোসেন বলেন, উৎপাদন খরচের তুলনায় আশানুরূপ দাম না পেয়ে ঠাকুরগাঁওয়ের এ বছর ছয় হাজার ৭৫২ হেক্টর কম জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে। অনেক বোরোচাষি গম ও আলু চাষে ঝুঁকে পড়ছেন।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful