Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৯ : ০১ অপরাহ্ন
Home / আলোচিত / মা’কে বাঁচাতে সতীত্ব নিলামে

মা’কে বাঁচাতে সতীত্ব নিলামে

রেবেকা বারনার্ডোর মা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ঘরে পড়ে আছে। তার আর কেউ নেই। কোনো কাজও পাচ্ছে না। হাইস্কুলে পড়া এ মেয়েটি তাই ইউটিউবে সতীত্ব বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে।

নিজেই ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে এ ঘোষণা দেয়ার পর এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ দর উঠেছে ৩৫ হাজার মার্কিন ডলার। সিএনএন

এ প্রস্তাব দেয়ার পর রেবেকা বারনার্ডো যখন তার মরিচা পড়া লাল সাইকেল চেপে রাস্তা দিয়ে যায় তখন তাকে দেখে অনেকে মুখ চেপে হাসে। গোলাপি রঙ স্লিভলেস টপ পড়ে রেবেকা ইউটিউবে তার প্রোফাইল দিয়ে বলেছে, ‘ হাই মাই নেম ইজ রেবেকা, আই এ্যাম হেয়ার টু অকশান অফ মাই ভার্জিনিটি’।

সিএনএন’ রেবেকা জানায়, কোনো কাজ না পেয়ে তার মা’কে বাঁচাতে এ ধরনের ঘোষণা দিতে বাধ্য হয়েছে সে। সে কিছুদিন আগে শুনেছে, ব্রাজিলের আরেক মহিলা ক্যাথরিনা মিগলিওরিনি তার সতীত্ব নিলামে তুলে ৭ লাখ ৮০ হাজার ডলার অফার পেয়েছিলেন। তবে এখনো বিষয়টি চূড়ান্ত ফয়সালা হয়নি। যদিও ক্যাথরিনা যে ওয়েবসাইটে তার সতীত্ব নিলামে তোলার ঘোষণা দিয়েছিলেন তার বিরুদ্ধে নারী পাচারের অভিযোগ উঠেছে। তবে ক্যাথরিনা একাধিক প্রতিষ্ঠান থেকে মডেল হবার অফার পেয়েছে। যাদের মধ্যে প্লেবয় ব্রাজিল সংস্করণ অন্যতম।
রেবেকা জানায়, যখন আমার বয়স ১৮ পূর্ণ হল তখন আমি এমন সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি। একটি শোয়ার ঘর আছে এমন ছোট একটি বাড়িতে সে তার মা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বিছানায় পড়ে আছে। তাকে খাওয়াবার, দেখভাল করার এমনকি ধরে বাথরুমে নিয়ে যাওয়ার কেউ নেই। কাজের খোঁজ ছাড়াও কসমেটিকস বিক্রি করেও, কখনো ওয়েট্রেসের কাজ করলেও হাইস্কুল পাস না করায় সামান্য পয়সা নিয়ে তাকে সন্তুষ্ট থাকতে হয়।

সারাদিন কাজ করে রেবেকা ৭৫ ডলার পায়। যা খরচ করলে একজন হয়ত তার মা’কে দেখভাল করতে পারে। কিন্তু খাওয়া পড়ার খরচ কে দেবে। তার মা’কে বাসি স্প্যাগেটি খাওয়ানোর সময় রেবেকা বলেন, জীবনে কখনো কখনো চূড়ান্ত সময় আসে যখন সিদ্ধান্ত নিতে হয় তুমি কি করবে সে নিয়ে। কখনো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এক মাস আগে তাকে সতীত্ব নিলামে তুলতে তার বন্ধুর ইউটিউব এ্যাকাউন্ট ব্যবহার করতে হয়। যা প্রথম দিনেই হিট করে ৩ হাজার জন।
এদিকে ব্রাজিলের একটি টেলিভিশন রেবেকাকে তার মায়ের চিকিৎসা খরচ দেয়ার প্রত্মাব দিয়ে তার সতীত্ব নিলামে তোলার বিষয়টি প্রত্যাহারের আহবান জানায়। এতে রেবেকা রাজি হলেও পরে টেলিভিশনটির পক্ষ থেকে আর কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। রেবেকার পক্ষেও নতুন করে জীবন শুরু করা সম্ভব হয়নি। তবে রেবেকার এধরনের নিলাম প্রস্তাব নিয়ে এখনো কোনো মিডিয়া সাড়া দেয়নি।

তবে রেবেকোর এ ধরনের নিলাম প্রত্মাব নিয়ে সারা ব্রাজিলে হৈ চৈ শুরু হয়েছে। এমনিতে দেশটিতে পতিতাবৃত্তি বৈধ। তবে রেবেকার এক প্রতিবেশী জানান, ওর কারো কাছে যাওয়ার জায়গা নেই, কেউ তাকে সাহায্য করছে না, তাই নিজেকে নিলামে তোলা ছাড়া আর কী করার আছে। আরেক প্রতিবেশী বলেন, রাস্তাঘাটে অনেকেই তাকে লক্ষ্য করে পয়সা ছুড়ে মারছে। যা বিব্রতকর। তবে প্রতিবেশীরা রেবেকাকে বেশ ভালভাবেই দেখে। রেবেকার একটি বোন ছিল, তাও মারা গেছে। আর সে তারা বাবাকে কখনো দেখেনি।
রেবেকার আরেক প্রতিবেশী বলেন, প্রত্যেকেরই অধিকার আছে তার নিজের শরীর নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার। তার যদি কোনো উপায় না থাকে তাহলে কীইবা করার আছে।
তবে রেবেকার মা চান না সে নিলামে উঠুক। তার মতে এটা অন্যায়, তার কাজ খোঁজা দরকার। পতিতাবৃত্তি বেছে নিলে রেবেকার সর্বনাশ হয়ে যাবে বলেই তার মা মনে করে। শেষ পর্যšত্ম রেবেকা কি করবে ভেবে পাচ্ছে না। চোখে তার পানি এসে যায়। তারপরও রেবেকা বলে, ‘সত্যিই আমি প্রস্তুত নই’।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful