Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০ :: ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ :: সময়- ২ : ০৯ অপরাহ্ন
Home / রংপুর / রংপুরে কালবৈশাখীতে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি

রংপুরে কালবৈশাখীতে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি

Gangachara Jhore Vanga Taluik Habu Madrasha, Atimkhanaসেন্ট্রাল ডেস্ক : বুধবার রাতের কালবৈশাখীতে রংপুর মহানগরীসহ কাউনিয়া ও গঙ্গাচড়া উপজেলায় শতাধিক বাড়িঘর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান লণ্ডভণ্ড  হয়ে গেছে। নেতিয়ে পড়েছে কয়েক হাজার হেক্টর উঠতি বোরো ও ভুট্টার আবাদ।

রংপুর আবহাওয়া অফিসের সহকারী পরিচালক আতিকুর রহমান জানান, বুধবার রাতে ৬৯ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যায়।

এতে রংপুর মহানগরীর কুকরুল, নীলকণ্ঠ জলকর, গঙ্গাচড়া, কাউনিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিপুল পরিমান বাড়িঘর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গাছ গাছালি ঝড়ে পড়ে গেছে। এছাড়াও বোরো ও ভুট্রার আবাদের ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এই সময় ১৯ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছেও বলে জানান তিনি।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, রংপুর মহানগরীর আমাশু কুকরুল পূর্ব ও পশ্চিম পাড়ায় আবুল কাশেম, আব্দুল হামিদ, মোজাফফর হোসেন, ময়েজ আলী, ঈমান আলী, ফজলুল হক, নয়ন মিয়া, জলকর নীলকণ্ঠ এলাকার পুলিশ সদস্য আবদুল মাজেদের বাড়িঘরসহ প্রায় শতাধিক বাড়িঘর লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে।

কাউনিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল মোত্তালেব জানান, ক্ষয়ক্ষতির পরিমান খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

গঙ্গাচড়ায় কালবৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি
গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি : রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার উপর দিয়ে গত বুধবার রাতে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে গাছ-পালা, বাড়ী-ঘর ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
সংশ্লিষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যানদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী উপজেলার বেতগাড়ী, নোহালী, আলমবিদিতর, বড়বিল, গঙ্গাচড়া, লহ্মিটারী, কোলকোন্দ, গজঘন্টা ও মর্নেয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় বুধবার সন্ধ্যার পর বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, বাড়ী-ঘর, গাছ-পালা ভেঙ্গে দুমড়ে মুছড়ে গেছে। তবে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ঝড়ে ভেঙ্গে গেছে গজঘন্টা ইউনিয়নের তালুকহাবু নুরানী কিন্ডার গার্টেন মাদ্রাসা ও এতিমখানা ভবন। এর মূল গৃহ ঠিক থাকলেও রান্না ঘর, শিক্ষার্থীদের আবাসিক ভবন, মাদ্রাসার বারান্দার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এতে প্রায় ১ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল মজিদ মাষ্টার ও সাধারণ সম্পাদক হোসেন আলী মাষ্টার জানিয়েছেন।

প্রধান শিক্ষক নওয়াব আলী জানিয়েছেন, ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ ভবন দ্রুতল-পালা মেরামত করা না হলে শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ বৃদ্ধি পাবে। এদিকে গঙ্গাচড়া সদরের ডাকবাংলোর বড় আমগাছসহ বেশ কিছু গাছ ও ডা ভেঙ্গে গেছে। ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টিতে উপজেলার পাকা বোরো ধান ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষকরা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful