Templates by BIGtheme NET
আজ- সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ৬ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৯ : ০২ অপরাহ্ন
Home / কুড়িগ্রাম / বিজিবি-বিএসএফ’র সমঝোতা না হওয়ায় কছিমুদ্দিন আউলিয়ার মাজার জিয়ারত থেকে এবারও বঞ্চিত বাংলাদেশি-ভক্তরা

বিজিবি-বিএসএফ’র সমঝোতা না হওয়ায় কছিমুদ্দিন আউলিয়ার মাজার জিয়ারত থেকে এবারও বঞ্চিত বাংলাদেশি-ভক্তরা

নাগেশ্বরী, কুড়িগ্রাম: এ বছরেও দরবেশ কছিমুদ্দিন আউলিয়ার মাজার জিয়ারত করার সুযোগ হলনা বাংলাদেশি ভক্তদের। গত কয়েকদিন ধরে দফায় দফায় বিজিবি-বিএসএফ এর মধ্যে বৈঠক হলেও সমঝোতা হয়নি। শুধুমাত্র ভারতীয়রাই মাজার জিয়ারতের সুযোগ পাচ্ছেন। বাংলাদেশিরা যাতে মাজার এলাকায় প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য অতিরিক্ত টহল জোরদার করেছে বিজিবি।

অন্যদিকে সীমান্ত ওপারে বাঁশের খুঁটি দিয়ে অস্থায়ী কাঁটাতারের বেড়া নিম্ন করেছে বিএসএফ। আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে ভারতবাসীরা স্বাচ্ছন্দ্যে মেলায় যেতে পারবেন। প্রশাসনিক জটিলতায় গত বছরও মাজার জিয়ারত ও দুই দেশের মিলন মেলায় যেতে পারেনি বাংলাদেশীরা। এবারও যেতে না পারায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করছে ভক্তরা।
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী সীমান্তে ৯৪১ নং আন্তর্জাতিক মেইন পিলারের নীলকুমর নদীর তীরে নাখারজান গ্রামে প্রতি বাংলা বছরের পৌষ মাসের ২৫ তারিখ দরবেশ কছিমুদ্দিন আউলিয়ার মাজার জিয়ারত উপলক্ষে বাংলাদেশ ও ভারতের মানুষের মিলন-মেলার আয়োজন করা হতো। আজ ২৫ পৌষ ৮৩তম মেলা শুরু হতে যাচ্ছে। ওইদিন সকাল ৬ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত দুই দেশের স্বজনরা একত্রিত হয়ে কুশল বিনিময় করত।
মাজার কমিটি সূত্রে জানা যায়, প্রায় দুইশত বছর আগে দরবেশ কছিমুদ্দিন ধর্ম প্রচারের জন্য এ অঞ্চলে এসে অবিভক্ত ভারতবর্ষের তৎকালীন কুচবিহার জেলার দিনহাটা মহকুমার সেউটি গ্রামের বৈরাগী মিয়ার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। সেখানে থেকে এ অঞ্চলের সর্বত্র ধর্ম প্রচারে মনোনিবেশ করেন। ওই এলাকার হোসেন আলী মুন্সি বলেন প্রায় ৪০বছর আগে এক রাতে স্বপ্নে দেখি জঙ্গলের ভিতর দরবেশ কছিমুদ্দিনের মাজার রয়েছে। পরে জঙ্গল কেটে মাটি খুড়ে মাজারের সন্ধান পাওয়া গেলে ওই দিনটিতে মাজার জিয়ারতের আয়োজন করা হয়। দুই দেশের নাগরিকদের সমন্বয়ে একটি মাজার কমিটি গঠিত হয়েছে। আস্তে আস্তে ৫০ বিঘা জমির উপর দু’দেশের মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয় এ আয়োজনটি। সারাদেশ থেকে লোকজন আসত। ভারতের কলিকাতা, শিলিগুড়ি, জলপাইগুড়ি, পশ্চিম-দিনাজপুর, আলীপুরদুয়োর, কুচবিহার ও আসাম রাজ্যের বিভিন্ন এলাকার লোকজন আসে।
কমিটির সভাপতি ভারতীয় নাগরিক ও পঞ্চায়েত প্রধান বিষ্ণু চন্দ্র জানান, ৮৩ তম মাজার জিয়ারতের ২৭ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। বাংলাদেশীদের সহযোগিতা ও মেলায় আনার জন্য অনেক চেষ্টা করার হয়েছে কিন্তু বিএসএফের বাধার কারণে সুযোগ হলো না ।
কাশিপুর বিজিবির কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার মোহাম্মদ আলী জানান, কর্তৃপক্ষের নির্দেশ বাংলাদেশিরা মাজারে যেতে পারবেনা। সে কারণে অতিরিক্ত টহল জোরদার করা হয়েছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful