Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৮ : ৫৭ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রভাব;রংপুর বিভাগে ৪৫ বছরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড

বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রভাব;রংপুর বিভাগে ৪৫ বছরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড

তাহমিন হক ববি॥ ভারত ও চীনের পর বাংলাদেশেও এবার বৈশ্বিক উষ্ণতার সরাসরি প্রভাব দেখা যাচ্ছে। “বৈশ্বিক উষ্ণতার ফলে ঝুঁকিপূর্ণ ঘটনা দ্রুত বাড়ছে। তাই সামনের দিন গুলোয় আবহাওয়া আরও চরমভাবাপন্ন হয়ে উঠবে।”

বাংলাদেশে গত ৪৫ বছরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে বুধবার, ৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস দিনাজপুরে। এরপর রয়েছে নীলফামারী ও সৈয়দপুরে ৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রংপুরে ৪ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। উত্তরাঞ্চলের দ্রুত তাপমাত্রা সমতলভূমিতে চলে আসায় এর জন্য সরাসরি বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রভাব বলে মনে করা হচ্ছে। তবে শুধুমাত্র জানুয়ারি মাস বিবেচনায় এটি ৫৭ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। ১৯৫৫ সালে দিনাজপুরে রেকর্ড করা হয়েছিল ৩.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এর আগে ১৯৬৮ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল শ্রীমঙ্গলে ২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আয়েশা খাতুন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অপর দিকে অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়া-বিদ শাহ আলম বলেন দিনাজপুর জেলায় তাপমাত্রা কমে ৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে দাঁড়িয়েছে।” আর নীলফামারী ও সৈয়দপুরে ৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া রংপুর বিভাগীয় শহরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল রংপুরে ৪ দশমিক ২। বিশেষ করে হিমালয়ের নিকটবর্তী হওয়ায় দেশের উত্তরাঞ্চলে রংপুর বিভাগের আট জেলায় এই প্রবল ঠাণ্ডা আরও দুই-তিনদিন থাকবে । সূত্র মতে “বৈশ্বিক উষ্ণতার ফলে মেরুর বরফ গলতে শুরু করেছে, যার ফলে তাপমাত্রা অস্বাভাবিকভাবে কমে গেছে। সামনের দিন গুলোয় ঠাণ্ডা আরও বাড়বে।”

বিভিন্ন অনলাইনে পরিবেশ বিশেষ দের মতামতে উল্লেখ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে ক্রমবর্ধমান বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রভাবের ফলে বরফ সংকুচিত হচ্ছে, সামুদ্রিক পানির উপর চাপ বাড়ছে, ফলে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ছে। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশে দেশে বৃষ্টিপাত, তাপ প্রবাহ, দাবানলের ধরন পালটে যাচ্ছে।”ভারত ও চীনের পর বাংলাদেশেও এবার বৈশ্বিক উষ্ণতার সরাসরি প্রভাব দেখা যাচ্ছে । এসব দেশেও চলতি শীতে তাপমাত্রা অস্বাভাবিকভাবে নেমে গেছে।আর “বৈশ্বিক উষ্ণতার ফলে এসব ঝুঁকিপূর্ণ ঘটনা দ্রুত বেড়ে যাচ্ছে, তাই সামনের দিন গুলোয় আবহাওয়া আরও চরমভাবাপন্ন হয়ে উঠবে।” বাংলাদেশ যাতে বৈশ্বিক উষ্ণতা জনিত দুর্যোগকে ভালোভাবে মোকাবেলা করতে পারে, সেজন্য উন্নয়নশীল দেশগুলোর কারিগরি ও অর্থনৈতিক সাহায্য দেওয়া উচিত বলে জানান তিনি।পরিবেশবিদদের মতে, একদিকে বঙ্গোপসাগর, অন্যদিকে হিমালয়ের কোলে অবস্থিত হওয়ায় গত কয়েক বছরে বাংলাদেশে বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রভাব আরও প্রকট হয়েছে, যার ফলে দ্রুত দেশের আবহাওয়ার ধরন পরিবর্তিত হচ্ছে। দেশে মানুষের তুলনায় ভূমির পরিমাণ অনেক কম থাকায় ক্রমেই ঝুঁকি বাড়ছে বলে মনে করেন তারা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful