Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০ :: ১২ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ১২ : ১৪ অপরাহ্ন
Home / নীলফামারী / সৈয়দপুরে ৭৮ জন সুবিধাভোগীর কাছ থেকে সাড়ে ১৫ হাজার টাকা উৎকোচ আদায়

সৈয়দপুরে ৭৮ জন সুবিধাভোগীর কাছ থেকে সাড়ে ১৫ হাজার টাকা উৎকোচ আদায়

gush takaইনজামাম-উল-হক নির্ণয়, নীলফামারী ২৫ জুন॥ অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি’র (ইজিপিপি) দ্বিতীয় পর্যায়ে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার ৫ নম্বর খাতামধুপুর ইউনিয়নে ১ নম্বর ওয়ার্ডে ৭৮ জন সুবিধাভোগীর কাছ থেকে ২ শ’ টাকা হারে প্রায় সাড়ে ১৫ হাজার টাকা উৎকোচ আদায় করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সংশি¬ষ্ট ওয়ার্ড সদস্য মো. শাহিন হোসেন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্যা মোছা. হাসিনার বেগমের স্বামী মো.আজম সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে অনেকটা জোরপূর্বক ওই উৎকোচ আদায় করেছেন বলে অভিযোগে জানা গেছে।

সৈয়দপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সৈয়দপুর উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে অতিদরিদ্ররদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসুচির দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ গত ১৯ এপ্রিল থেকে থেকে শুরু হয়। আর শেষ হয় গত ১৫ জুন। ৪০ দিনের ওই কর্মসংস্থান কর্মসূচিতে উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে জন ৩ হাজার ৮ শ’ ৫২ জন সুবিধাভোগী নির্বাচন করা হয়। এর মধ্যে উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নে ৬ শ’ ৯৪ জন, কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নে ৮ শ’ ৮৫ জন, বাঙ্গারীপুর ইউনিয়নে ৫ শ’ ৬৪ জন, বোতলাগাড়ী ইউনিয়নে এক হাজার ৫ জন এবং খাতামধুপুর ইউনিয়নে ৭ শ’ ৪ জন সুবিধাভোগী রয়েছে।

উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নে ১নম্বর ওয়ার্ডে সুবিধাভোগীর সংখ্যা হচ্ছে ৭৮জন। কর্মসূচির শেষ পর্যায়ে মজুরী পরিশোধ করা হয় গত ১৯ জুন বৃহস্পতিবার। মূলতঃ প্রতি সপ্তাহে শনি থেকে বুধবার অর্থাৎ ৫ দিন সুবিধাভোগী কাজ করেন। সে হিসেবে গত ২৪ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত ১৬ দিনে একজন সুবিধাভোগীর মজুরী দাঁড়ায় ২ হাজার ৮শ’ টাকা। গত ১৯ জুন খাতামধুপুর ইউনিয়নে সুবিধাভোগীদের সর্বশেষ মজুরী রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ করা হয়। ওই দিন ১৭৫ টাকা হারে ১৬ দিনে সর্বমোট ২ শ’ ৮ টাকা স্ব স্ব ব্যাংক হিসাব থেকে উত্তোলন করেন কর্মসূচির সুবিধাভোগীরা। উলে¬খ্য,সুবিধাভোগীদের প্রদিতদিনের মজুরী ২ শ’ টাকা হলে পরিশোধ করা হয় ১শ’৭৫ টাকা করে। মজুরীর অবশিষ্ট ২৫ টাকা সুবিধাভোগীদের নামে ব্যাংক হিসাবে সঞ্চয় করা হয়।

অভিযোগ পাওয়া গেছে, গত ১৯ জুন খাতামধুপুর ইউনিয়নের সুবিধাভোগীরা রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক হাজারীহাট শাখা থেকে মজুরীর অর্থ উত্তোলন করে ব্যাংকের বাইরে বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে খাতামধুপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. শাহিন হোসেন এবং ১, ২ ও ৩ নম্বর সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্যা মোছা. হাছিনা বেগমের স্বামী স্থানীয় একটি মাদ্রাসা শিক্ষক আজম তাদের কাছ থেকে ২শ’ টাকা করে হাতিয়ে নেন। সংশি¬ষ্ট দপ্তরে কর্মকর্তা ও ইউপি চেয়ারম্যার জুয়েল চৌধুরীকে দেওয়ার কথা বলে সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে অনেকটা ভয়ভীতি দেখিয়ে ওই অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। এ সময় সুবিধাভোগীদের বলা হয় এখন ২শ’ টাকা করে না দিলে সঞ্চয়ের অর্থ ফেরৎ পাওয়া যাবে না। এছাড়াও এই বলে হুমকি দেওয়া হয় যে, টাকা না দিলে আগামীতে সুবিধাভোগীর তালিকায় নাম দেওয়া হবে না। এভাবে নানা ধরনের ভয়ভীতি, হুমকি-ধমকি ও প্রলোভন দেখিয়ে ওই ওয়ার্ডে ৭৮ জন সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে ১৫ হাজার ৬ শ’ টাকা উৎকোচ আদায় করা হয়েছে।

অভিযোগকারী সুবিধাভোগীর কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, শুধু ১ নম্বর ওয়ার্ডে নয়, ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের সকল সুবিধাভোগীর কাছ থেকে একইভাবে একই রকম কথা বলে ২শ’ টাকা করে উৎকোচ নেওয়া হয়েছে। ওই হিসেবে খাতামধূপুর ইউনিয়নের ৭শ’৪ জন সুবিধাভোগীর নিকট থেকে সর্বমোট ১৪ হাজার ৮ শ’ টাকা আদায় করা হয়েছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। অভিযোগে আরো জানা গেছে,সুবিধাভোগীর নাম তালিকাভূক্ত করার সময়ে সর্বনিম্ন ১হাজার থেকে আড়াই হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করা হয়।

কর্মসূচির সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে ২ শ’ টাকা করে উৎকোচ নেওয়ার বিষয়ে গতকাল বুধবার সংশি¬ষ্ট ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. শাহিন হোসেনের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাঁর মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

বিষয়টি নিয়ে কথা হয় সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মোছা. হাসিনার বেগমের স্বামী আজমের সঙ্গে। তিনি সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে ২ শ’ টাকা করে উৎকোচ গ্রহনের কথা অস্বীকার করেন। উপজেলার খাতামধুপুর ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েল চৌধুরী বলেন, সুবিধাভোগীদের নিকট থেকে ইউপি সদস্যদের উৎকোচ আদায়ের বিষয়ে তার কাছে কেউ অভিযোগ করেননি।

এ ব্যাপারে ৪০ দিনের কর্মসংস্থার কর্মসূচির সৈয়দপুর উপজেলা ফিল্ড সুপারভাইজার মো. মাঈদুল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে আমাকে কেউ কোন অভিযোগ করেননি।

সৈয়দপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. শফিউল ইসলাম জানান, সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হয়েছে এই মর্মে লিখিত কোন অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful