Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০ :: ৯ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৯ : ১৩ পুর্বাহ্ন
Home / খোলা কলাম / সজীব ওয়াজেদ জয়ের কাছে খোলা চিঠি

সজীব ওয়াজেদ জয়ের কাছে খোলা চিঠি

মহিউদ্দিন মখদুমী

ভুমিকা না করেই বলি। পীরগঞ্জ রংপুর জেলার একটি উপজেলা। পিতা পিতামহের স্মৃতি বিজরিত বলেই পীরগঞ্জ আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ন স্থান। এজন্যই হয়তো বেশী বেশী পীরগঞ্জ সফরে আসেন এবং ফিরেও যান সেখান থেকে। পীরগঞ্জ বিভাগীয় নগরী রংপুর থেকে খুব কাছেই। তবু আসা হয়ে উঠে না আপনার। শনিবার চতুর্থবারের মতো আপনি রংপুর জেলার পীরগঞ্জে আসবেন। কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করে আবার ফিরে যাবেন। পীরগঞ্জে জনসংখ্যা কতো জানি না। আপনার আগমনে পীরগঞ্জ উপজেলার জনগনের মধ্যে কী প্রভাব পড়ে তাও জানি না। তবে রংপুর নগরীতে জেলার আট উপজেলার এবং বিভাগের আট জেলার মানুষজন কোন না কোন প্রয়োজনে অবস্থান করেন। যদি পীরগঞ্জ সফরে এসে রংপুর নগরীতে একটু টু- মেরে যেতেন তাহলে আপনাকে স্বচোখে দেখার লক্ষ আগ্রহী মানুষের কৌতুহল মিটে যেত। অথবা দেখা না হোক আপনার গাড়ীর বহরটা যদি নগরী দিয়ে শো- করে চলে যেত তাহলে মানুষের মাঝে তুমুল ভাবে আন্দোলিত হতো ঐ যাচ্ছে জয়ের গাড়ী বহর। কেন রংপুর নগরীকে অবহেলা? কেন কাছে এসে চলে যাওয়া বার বার? কমপক্ষে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে আলোচনা সভা কিংবা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে একটি মিটিং করার জন্যও তো আসা যায়। আপনি কি মনে করেন এতে আপনার ভাবমুর্তি কমে যাবে?  আমরা তো মনে করি, নতুন তরুনেরা আপনাকে জানতে চায়। নতুন প্রজন্ম তো বিশ্বাসই করে বসে আছে আগামী দিনের বাংলাদেশটাকে শাসনের ভার আপনার হাতেই আসবে। আপনি পাশ্চাত্যের জ্ঞানে অভিজ্ঞতাকে মিলিয়ে বাংলাদেশটাকে মালেশিয়ার মতো উন্নয়নের মডেল তৈরী করবেন। পীরগঞ্জ আসেন। রংপুর নগরী পাশ কেটে চলে যান। এতে সাধারনের মধ্যে একটি মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। রাজনীতিতে কোন কোন প্রতিক্রিয়া ক্ষতিকর। নতুন হিসেবে আপনার ক্ষেত্রে যে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ক্ষতিকর।

জনাব সজীব ওয়াজেদ জয়

গত ১৬ মার্চে রংপুরের জিলা স্কুল মাঠের জনসভায় উত্তরবঙ্গের উন্নয়নের দায়িত্ব নিজ কাঁধে তুলে নেবার ঘোষনা দিয়েছেন। বলেছিলেন অবহেলিত উত্তরবঙ্গে গ্যাস এনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি। আমি উত্তরবঙ্গকে আমি পিছিয়ে যেতে দেবো না। আমি সজীব ওয়াজেদ জয় উত্তরবঙ্গকে দেখে রাখবো। এ অঞ্চলে অভাব থাকবে না। আমার একটা ব্যক্তিগত স্বপ্ন আছে, উত্তরবঙ্গে আমি ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার করতে চাই। কারখানা বসাতে চাই। আরো কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে চাই। আপনি বলেছিলেন, উত্তরবঙ্গে ‘মঙ্গা’ থাকবে না। গত ১৪ বছর ধরে রংপুরে কোন মঙ্গা নেই। মঙ্গা উধাউ। না খেয়ে মরে না কেউ। ভাত,কাপড়ের মঙ্গা নয় অন্য একটি মঙ্গা আমাদের কুঁড়ে কুড়েঁ খাচ্ছে। আমাদের চারপাশে আশ্বাস হয়ে ঘুরছে,প্রতিশ্রুতি হয়ে চক্কর দিচ্ছে কিন্ত স্থির হচ্ছে না। সেটি হলো উন্নয়নের মঙ্গা। বলা হচ্ছে, উন্নয়ন করা হবে। হচ্ছে না। গ্যাস, ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার, কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা আপনার ইত্যাদি প্রতিশ্রুতির চেয়ে আপনি পীরগঞ্জে সফরে এলে রংপুর নগরীটা ঘুরে যান। স্পর্শ করে যান কেরামতিয়া (রহ) এর পবিত্র মাটি। কাছে এসে বসে। অথবা ঘুরে ঘুরে দেখুন। স্থির  করুন চোখ। দেখুন বিভাগীয় কমিশনারের অফিস কোন ভবনে। ষ্টেডিয়াম কোন হালে আছে। সিটি কর্পোরেশনের বরাদ্দ কম হওয়ায় উন্নয়ন স্থবিরতা। একজন সিটি মেয়র ঝন্টু উন্নয়নের কতো প্রচেষ্টাই তো করছেন। পারছেন না। সরকারী সহায়তা ছাড়া নিজস্ব বরাদ্দ দিয়ে কতটুকু উন্নয়ন কাজ করা যায়। দেখুন বেহাল বেরোবি। ভালো করে তাকান, দেখবেন রংপুরের জনগনের চেখের নীচে সুখ, তার নীচে কষ্টের জল ঝরছে। কর্মহীন বেকারদের বিরস মুখ। আপনার ভিতর সমবেদনায় ফেঁটে যেতে চাইবে। আপনি কাঁদবেন। রংপুর থেকে উন্নয়নের মঙ্গা দুর করতে আপনি এবার প্রতিশ্রুতি দেবে না। আপনার হাত মুষ্টিবদ্ধ হবে। রংপুরের উন্নয়ন ব্াস্তবায়নে ঝুঁকে পড়বেন। পীরগঞ্জ উপজেলার ৫০টি গ্রামে তিন হাজার নতুন গ্রাহকের মাঝে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করবেন আজ। এটি সম্ভব হতো না যদি আপনি ঐ এলাকা ঘুরে ঘুরে না দেখতেন। চোখে পড়েছে বিদ্যুৎ নেই, ব্যবস্থা করেছেন। তাই বলি রংপুর আসুন। রংপুর বাসীর সাথে আপনার ভালোবাসা হবে। ভালোবাসাই উন্নয়ন এনে দেবে। ভালো লাগবে আপনার।

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা

২০১১ সালের ৮ জানুয়ারী রংপুর জিলা স্কুল মাঠের বিশাল জনসভায় আপনার মাতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রংপুর উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেছিল“ রংপুরের পুত্রবধূ হিসেবে রংপুর উন্ন্য়নের সার্বিক দায়িত্ব আমি আমার নিজ হাতে তুলে নিলাম”। এরই মধ্যে কেটে গেছে তিন বছরের অধিক সময়। রংপুর বিভাগ হয়েছে সমৃদ্ধতা আসেনি। তৈরী হয়নি বিভাগীয় কমিশনারের নিজস্ব অফিস ভবন। নিয়োগ হয়নি জনবল। মেট্রোপলিটন পুলিশ হচ্ছে বলে হচ্ছে না। বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় সমস্যায় জর্জরিত। এর মধ্যে চলতি বছর মার্চ মাসে আর এক জনসভায় আপনি উত্তরবঙ্গের উন্নয়নের দায়িত্ব নিজ কাঁধে তুলে নেবার ঘোষনা দিয়েছেন। আমরা জানি কোন কাজ নিজ হাতে তুলে নেয়া মানে -যে কোন মুল্যে তার সফল বাস্তবায়ন। এই সব প্রতিশ্রুতি, এই সব ওয়াদার বাস্তবতা যাই হয় হোক। কি ভাবে ২০১৪-১৫ অর্থ বছরের বাজেটে নবগঠিত বিভাগ রংপুরের জন্য ২ কোটি ৮৪ হাজার ৩শত৭৪ টাকা জেলা বাজেটে বরাদ্দ রাখা হয়। এই বরাদ্দ আপনার এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রংপুর উন্নয়নের ২৬ দফা প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের অন্তরায় কিনা। এটিও উন্নয়ন মঙ্গাকে আচ্ছাদিত করে রেখেছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নচারী জয়

একটি আধুনিক, কল্যাণকর ও উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে তৃণমূল পর্যায়ের অভিজ্ঞতা, পরীক্ষা, নিরীক্ষা, গবেষণা ও বাস্তবতা মিলিয়ে বাংলাদেশকে ডিজিটাল করা ছাড়া কোন বিকল্প নেই। ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার চেষ্টা সফল করতে ডিজিটাল পদ্ধতিকেই বেছে নিতে হবে। এক্ষেত্রে (ক) তথ্য প্রযুক্তি শিক্ষাবোর্ড স্থাপন,(খ) তথ্য প্রযুক্তি ব্যাংক স্থাপন,(গ) তথ্য প্রযুক্তি বিসিএস ক্যাডার চালুকরণ(ঘ) জেলায় জেলায় আইটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন,(ঙ) প্রতিটি বিভাগীয় শহরকে আইটি সিটি ঘোষণা(চ) আইটি অধিদপ্তর স্থাপন করা জরুরী। এ লক্ষে যে কাজ শুরু করেছেন তা আগামীর সম্ভাবনাকে বিকশিত করতে পারে। একজন রংপুরবাসী হিসেবে আপনাকে জানাতে চাই । ৫ জানুয়ারী ২০১৪ দশম সংসদ নির্বাচনের পর রংপুরের আলহাজ্ব মশিউর রহমান রাঙ্গাকে মন্ত্রিত্ব দেয়া হয়েছে। তাও আবার ফুল মন্ত্রী নয়,হাফ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী। জনাব সজীব ওয়াজেদ জয় এটি রংপুরবাসীর জন্য কষ্টের। এটিও নেপথ্যে অবহেলার নামান্তর। একটি এলাকার উন্নয়নের দায়িত্ব নিজ হাতে গ্রহন করবেন। সে এলাকায় একজন পূর্নাঙ্গ মন্ত্রী থাকবে না। তা কি করে হয়।  একজন পুর্নাঙ্গ মন্ত্রী না পাওয়া রংপুর বাসীর জন্য দুঃখ মিশ্রিত চরম কষ্টের। আলহাজ্ব মশিউর রহমান রাঙ্গাকে পূর্নাঙ্গ একটি মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব দেয়া হোক।
স্থানীয় পত্রিকায় এই খোলা চিঠি ছাপা হবে। আপনার চোখে পড়বে না হয়তো। তবু আপনাকে বলি, আমরা একটি বৈষম্যহীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখি। তাই স্বপ্নবাজ চোখ দেশের রাষ্ট্র ক্ষমতায় আপনাদের মতো তরুন্য নির্ভর শাসক দেখতে চায়। সেদিকেই যাচ্ছে সময়ের কাঁটা। ফলাফলটাও জানি শুধু অপেক্ষা।

-মহিউদ্দিন মখদুমী, সাংবাদিক, কবি ও কলাম লেখক।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful