Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ৫ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ১২ : ৩০ পুর্বাহ্ন
Home / আলোচিত / নিম গাছ থেকে নির্গত হচ্ছে খেজুরের রস

নিম গাছ থেকে নির্গত হচ্ছে খেজুরের রস

অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি! রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার গৌরাঙ্গবাড়ি খেতুর গ্রামে গত বুধবার বিকেল থেকে একটি নিম গাছে খেজুরের রস সাদৃশ মিষ্টি ও সুপেয় রস নির্গত হচ্ছে। আর এ রস পান করতে ও আশ্চর্য এ গাছটি এক নজর দেখতে শত শত উৎসুক জনতা ভিড় করছে ওই গ্রামে। স্থানীয়দের বিশ্বাস সঠিকভাবে নিয়্যত করে আলাহ প্রদত্ত এ রস পান করলে নানা ধরণের জটিল রোগেরও সমাধান সম্ভব।
ঘটনার পরদিন গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে খবর পেয়ে প্রেমতলী-বসন্তপুর রাস্তা দিয়ে ঘটনাস্থলে যাবার সময় অনেকেরই দেখা মিলল বোতল হাতে যারা ঘটনাস্থল থেকে রস পান করে ও পরিজনদের জন্য সঙ্গে নিয়ে আসছিলেন। কিছু দূর যেতে না যেতেই বিখ্যাত গৌরাঙ্গ মন্দির থেকে মাত্র ২শ মিটার অদূরে হাজারো মানুষের উপচে পড়া ভিড়টাই চিনিয়ে দিল ঘটনাস্থান। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল গত বুধবার সকাল থেকেই প্রায় ১৫-২০ মিটার উচ্চতার এ নিম গাছটির কান্ড থেকে রস নির্গত হচ্ছিল। প্রথমে বিষয়টি পানি বলে ধারণা করে গুরুত্ব দেয়নি কেউই। কিন্তু ওই দিন বিকেলে রস নির্গত হওয়ার পরিমাণ বেড়ে গিয়ে ক্রমাগত উপরের দিকে উঠে গিয়ে কান্ড পর্যন্ত গড়িয়ে পড়তে থাকলে স্থানীয় আমির হোসেন, রাকিব ও রঞ্জুসহ বেশ কিছু যুবক বিষয়টিকে গুরুত্ব সহকারে দেখে। এরপর নিম গাছ থেকে নির্গত ওই রস পান করে দেখা যায় রসটিতে মিষ্টি ও সামান্য তেতো ভাব রয়েছে এবং  এটি খেজুরের রসের ন্যায় সুগন্ধ ছড়াচ্ছে। ওই দিন গাছটির ৮-১০ মিটার উচ্চতার একটি শাখায় দুটি বোতল বেঁধে দেওয়া হলে প্রথম রাতে দু’টি বোতল ভর্তি হয়ে ৮ লিটার রস পাওয়া যায়। নিম গাছের যে স্থানটি থেকে এ রস নির্গত হচ্ছে সেখানে সবসময় বিচিত্র ধরণের একটি শব্দ পাওয়া যাচ্ছে। বর্তমানে গাছটির নিচের স্থান রসি ও বাঁশ দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে। এদিকে এ খবর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়লে শতশত উৎসুক জনতা ভিড় করছে ওই স্থানটিতে। মনের আশা পূর্ণ ও রোগ বালাই সারানোর আশায় আগত মানুষেরা গাছের নিচে খুশি মনে দান করছে টাকা-পয়সা, মোমবাতি-আগরবাতি ইত্যাদি।
গাছটি থেকে রস সংগ্রহ ও পান করতে আসা ব্যক্তি উপজেলার রাইহাপুর গ্রামের ডাঃ আজিজুল ইসলাম ও উপজেলার আলীপুর গ্রামের মাসুম রেজা বলেন, লোকমুখে এ গাছের রসের উপকারিতা সম্পর্কে জেনেই এখানে এসেছি। রস পান করার ঘন্টাখানেক পরেও এর স্বুস্বাদ অনুধাবন করা যাচ্ছে বলেও উলেখ করেন তারা। এদিকে এ রস পান করে ওই গ্রামের মৃত আসিমুদ্দীনের ছেলে বাবু (৩৫) অস্বুস্থ্যতা থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে সেখেরপড়া-কাঁঠালবাড়ীয়া জামে মসজিদের পেশ ইমাম আঃ বাকী বলেন, এটি মহান সৃষ্টিকর্তা আলাহ তায়ালার হাজারো মৌজিজার মধ্যে একটি হতে পারে।
এদিকে রোগ সারানোর সঙ্গে রসের কি সম্পর্ক থাকতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডাঃ তৌফিক উদ্দীন বলেন, ঘটনাটি সত্যিই অবিশ্বাস্য। আলৌকিকভাবে এ রসের কোন গুণাগুণ না থাকলেও নিম গাছ যেহেতু ঔষধি গাছ সেহেতু এর রস পানে এমনিতেই উপকারিতা রয়েছে বলে জানান তিনি।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful