Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ২ : ০৮ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / ঠাকুরগাঁও-১: দুই ভিআইপি’র লড়াই

ঠাকুরগাঁও-১: দুই ভিআইপি’র লড়াই

সেন্ট্রাল ডেস্ক: ১৯৮৪ সালে বৃহত্তর দিনাজপুর জেলাকে ভেঙে ৩টি জেলা করা হয়। এর মধ্যে পঞ্চগড় ও দিনাজপুরের মাঝখানে ঠাকুরগাঁও জেলা। এ জেলার মোট জনসংখ্যা প্রায় ১৫ লাখ। আয়তন প্রায় ১ হাজার ৬০০ বর্গমাইল। ধর্মীয় দিক দিয়ে জেলায় মোট জনসংখ্যার শতকরা ৭৫ ভাগ মুসলমান, হিন্দু শতকরা ২৪ ভাগ এবং খ্রিষ্টান, আদিবাসী ও অন্যান্য জনসংখ্যা মোট জনসংখ্যার শতকরা ১ ভাগ। মুসলমানের সংখ্যার আধিক্য থাকলেও এখানে অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে সহাবস্থান রয়েছে।
রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট: বর্তমানে ঠাকুরগাঁওয়ের ৩টি সংসদীয় আসনের ঠাকুরগাঁও-১ রয়েছে আওয়ামী লীগের দখলে। ২০০১ সালের নির্বাচনে এ আসনটি ছিল বিএনপির দখলে। ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে এ আসনটি ছিল আওয়ামী লীগের দখলে ।
হালনাগাদ ভোটার অনুযায়ী ঠাকুরগাঁও-১ আসনে ভোটারের সংখ্যা মোট ৩ লাখ ৭০ হাজার।
ঠাকুরগাঁও-১ আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রির দায়িত্বে রয়েছেন। অপরদিকে একই আসনে ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি থেকে জয়ী সংসদ সদস্য মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সে সময় সরকারের কৃষি প্রতিমন্ত্রী পরে বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন। বর্তমানে তিনি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দায়িত্বে রয়েছেন।
আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে এ আসনটিতে স্থানীয় নেতৃবর্গ মাঠপর্যায়ে গিয়ে দলকে পুনর্বিন্যাস, দলীয় বিভিন্ন সভাসহ বিগত দিনের ভুল বোঝাবুঝির অবসান এবং আন্তরিক হওয়ার কাজে ব্যস্ত রয়েছেন। তবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী পানিসম্পদ মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া ওই দু’টি দলের সম্ভাব্য অন্য প্রার্থী এখনও মাঠ দখলে কার্যক্রম দেখা যায়নি। দেখা যায়নি প্রকাশ্যে কোন নেতার নির্বাচনী প্রচারণা। তবে মুখে মুখে দু-একজনের নাম শোনা গেছে। আর অন্য দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা তাদের দলীয় কর্মসূচি ছাড়া নির্বাচনী প্রচারণায় মাঠে দেখা যায়নি।
আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল প্রকাশ্য রূপ নেয়নি এখনও। তবে ভেতরে ভেতরে রয়েছে চাপা ক্ষোভ। এছাড়াও মহাজোটের শরিক দল জাতীয় পার্টির সঙ্গে কোন্দল একেবারে অমীমাংসিত অবস্থায় গিয়ে পৌঁছেছে। এক্ষেত্রে বিএনপি ও জামায়াত রয়েছে দলীয় কোন্দলের ঊর্ধ্বে।
জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতানুল ফেরদৌস নম্র চৌধুরীর বাড়ি দখল করার ঘটনায় জাতীয় পার্টির সঙ্গে বিরোধের শুরু হয়। তারপর থেকে জোটবদ্ধ হওয়ার পরেও জাতীয় পার্টির সঙ্গে এখানে বিরোধ তুঙ্গে। জাতীয় পার্টি নেতাদের মতে সারা দেশে জাতীয় পার্টির সঙ্গে আওয়ামী লীগ পুনরায় জোটবদ্ধভাবে নির্বাচন করলেও ঠাকুরগাঁওয়ে বিরোধ মীমাংসার তেমন সুযোগ নেই। তাছাড়াও টেন্ডারবাজি, আইলা নিয়ে দুর্নীতি, নদী খনন নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে। অপরদিকে আওয়ামী লীগ নেতারাও বিগত আমলের বিএনপির দুর্নীতি বিশেষ করে ঠাকুরগাঁও বিমানবন্দর চালুর নামে কয়েকশ’ কোটি টাকার দুর্নীতি, বরেন্দ্র প্রকল্পের দুর্নীতি নিয়ে কথা বলেন।
মনোনয়ন প্রত্যাশী: আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হলেন পানি সম্পদমন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট মকবুল হোসেন বাবু, সাবেক সভাপতি এডভোকেট রফিকুল ইসলাম (বাউ) আইনবিষয়ক সম্পাদক এডভেকেট ইন্দ্র নাথ রায়।
বিএনপি থেকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী সুলতানুল ফেরদৌস নম্র চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক রেজাউর রাজী স্বপন চৌধুরী, জাতীয় ছাত্রসমাজের রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (জাপা) ও জেলা জাতীয় ছাত্রসমাজের সভাপতি।
জেএসডির জেলা সভাপতি মনসুর আলী।
সিপিবি জেলা সভাপতি সৈয়দ মেরাজুল হোসেন।
জামায়াত থেকে জেলা সেক্রেটারি মাওলানা রফিকুল ইসলামের নাম শোনা যাচ্ছে।

ভিআইপি দু’নেতা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও পানিসম্পদ মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেনের বাইরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দেখা যায়নি প্রকাশ্যে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতা-কর্মীদের দলীয় অবস্থান শক্ত করতে তাদের স্বপক্ষে প্রচারণা চালাতে দেখা গেছে। তবে ওই দুটি দলের বাইরে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা আছেন কেন্দ্রীয় নেতাদের মন যোগাতে। মন গলিয়ে মনোনয়ন পেলে মাঠে নামবেন বলে মনে করেন অভিজ্ঞ মহল। তবে আওয়ামী লীগ থেকে রমেশ চন্দ্র সেন ও বিএনপি থেকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরই মনোনয়ন পাচ্ছেন এটা নিশ্চিত।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful