Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৮ : ১৭ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / লালমনিরহাটে ব্যাক ডেট দেখিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণে হিড়িক

লালমনিরহাটে ব্যাক ডেট দেখিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণে হিড়িক

লালমনিরহাট প্রতিনিধি : সারা দেশে রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয় সমূহকে জাতীয়করণের সরকারী ঘোষণা দেয়ার পর থেকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তাদের সহযোগীতায় লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলায় স্কুল নেই, ছাত্র-ছাত্রী নেই এরকম ভিত্তিহীন কিছু প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের উদ্দেশ্যে একটি অর্থ লোভী কুচক্রী মহল অপতৎপরতায় লিপ্ত হয়ে উঠেছে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, সরকার দেশের ২৬ হাজার রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণের ঘোষণা দেয়ার পর থেকেই ওই কুচক্রীমহলটি তড়িঘড়ি করে স্কুল ঘর নির্মাণ করে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে ম্যানেজ করে নামসর্বস্ব প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোকে জাতীয়করণের তোড়-জোড় করছেন। ২০০৭/০৮/০৯ খ্রি: সনের তারিখ ঊল্লেখ করে বিভিন্ন নামের সাইনবোর্ডের ছবি, ঘর তুলে কোথাও ঘর নির্মিত না হলে একই স্কুলে ভিন্ন ভিন্ন সাইনবোর্ড টানিয়ে ছবি ও বিভিন্ন সাইড পরিদর্শন করে ঘরের ছবি তুলে ফাইলে গুজে দিয়ে প্রায় শতাধিক স্কুলকে সরকারী করণের চেষ্টা করা হচ্ছে। স্কুল গুলোর অধিকাংশ-ই উপজেলার পাটগ্রাম, জগতবেড়, জোংড়া, শ্রীরামপুর, কুচলিবাড়ী, বাউড়া, বুড়িমারী ও দহগ্রাম ইউনিয়ন এলাকায় অবস্থিত। প্রতিটি নির্মানাধীন স্কুল ঘরের বয়স সর্বোচ্চ একমাস বলে স্থানীয় গ্রামবাসীরা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

সরজমিনে দেখা গেছে, ছাত্র-ছাত্রী নেই, বেঞ্চ নেই, মেঝেতে সদ্য ভরাটকৃত মাটি এমনকি ম্যানেজিং কমিটিও কাগজে-কলমে। একাধিক গ্রামবাসীর দাবী সঠিক ও স্বচ্ছভাবে ক্ষতিয়ে দেখলে প্রমাণিত হবে স্কুল গুলোর নির্মাণের সার্বিক অবস্থা। গ্রামবাসীদের অভিযোগ সবই করা হচ্ছে টাকা আর ক্ষমতার দাপটে। সন্দিহান গ্রামবাসীর মতে অবৈধ প্রক্রিয়ায় নির্মিত স্কুল গুলোতে কোমল মতি শিশু শিক্ষার্থীরা সঠিক পড়া-লেখার পরিবেশ আদৌ পাবে কী না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানিয়েছে, একটি সিন্ডিকেটের সদস্যদের মাধ্যমে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. মোতাহার হোসেন এমপির নির্বাচনী এলাকা ঊন্নয়ন এবং ব্যাকডেট দেখিয়ে অনুমতি নিয়ে জাতীয়করণের আওতায় আনার সার্বিক চেষ্টা করা হচ্ছে।

তথ্য মতে, দেশের অন্যান্য জেলা-উপজেলায় প্রতিষ্ঠিত রেজিঃবেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোর তালিকাভুক্তি নিয়ে বেশ সমস্যা হবে। ইতিমধ্যে নামসর্বস্ব ওই সব স্কুলের নামে ব্যাকডেটে জমি রেজিস্ট্রি ও নাম মাত্র পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বেকার যুবক-যুবতীর কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা নেয়ার অভিযোগ রয়েছে।

আবার সিন্ডিকেটের সদস্যদের সমন্বয়ে নতুন চাকুরী প্রার্থীদের নিকট থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে পূর্বের প্রার্থীদের বাতিল করে নতুন করে প্রার্থী নিয়োগ দিচ্ছেন। ফাইল ঠিক রাখতে জেলা-উপজেলার শিক্ষা কর্মকর্তাদের টাকা দিয়ে কাজ চলছে বলে জনৈক প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলার মাঝে সাংবাদিকদের নিকট বলে ফেলেন। ইতোমধ্যে জমি দান ও নিযোগ সংক্রার জঠিলতার বাকবিতন্ডায় বেড়িয়ে আসছে নানা তথ্য।

ফলে চাকুরী প্রার্থীদের মাঝে বাড়ছে অভ্যন্তরিন কোন্দল। এদিকে চাকুরি আদৌ হবে কি-না সে সংসয় বেড়েই চলছে। নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক একটি রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জানান, নিয়োগের জন্য কমিটির সভাপতিকে জায়গা জমি বিক্রি করে প্রায় ৪ লাখ টাকা দিয়েছেন।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful