Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০ :: ১৮ চৈত্র ১৪২৬ :: সময়- ৫ : ১২ পুর্বাহ্ন
Home / রাজশাহী বিভাগ / দাফনের ৪৩ দিন পর লাশ উত্তোলন

দাফনের ৪৩ দিন পর লাশ উত্তোলন

দাফনের ৪৩ দিন পর লাশ উত্তোলনসিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জে আদালতের নির্দেশে দাফনের ৪৩ দিন পর উর্মি খাতুন (২২) নামে এক গৃহবধূর লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোছা. উলফৎ আরা ও সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার নীহার রঞ্জন দাস উপস্থিতি ছিলেন।

বুধবার বেলা ১২টার দিকে শহরের রহমতগঞ্জ কবরস্থান থেকে লাশটি উত্তোলন করা হয়।

মৃত উর্মি খাতুন সদর উপজেলার চন্দ্রকোনা গ্রামের আক্তার খানের মেয়ে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর থানার উপ-পরিদর্শক ইমাম জাফর জানান, ময়নাতদন্তে জানা যায় উর্মি আত্মহত্যা করেছে। তবে এমন প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে বাদীপক্ষ আদালতে নারাজি দাখিল করে। আদালত বাদীপক্ষের আবেদনের ভিত্তিতে লাশ উত্তোলন করে পুনরায় ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেন। বুধবার  লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত: গত ২৭ জুলাই উপজেলার আলোকদিয়া নয়পাড়া স্বামীর বাড়ি থেকে উর্মির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্ত শেষে রহমতগঞ্জ কবরস্থানে দাফন করা হয়। এদিকে উর্মির বাবার অভিযোগ যৌতুকের দাবিতে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তাই তিনি বাদী হয়ে উর্মির স্বামী ও শ্বশুরসহ সাতজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

মামলার আসামিরা হলো, উর্মির স্বামী আলোকদিয়ার নয়াপাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে শিহাব উদ্দিন, শ্বশুর সাইফুল ইসলাম, শাশুড়ি শান্তি বেগম, চাচা শ্বশুর দুলাল খান, ভাসুর বাবু খান, চাচা শ্বশুর মোনাফ খান ও বাবু ওরফে ছার বাবু। তাদের মধ্যে শ্বশুর সাইফুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।

মামলায় বাদীর অভিযোগ, এক বছর আগে ৭০ হাজার টাকা যৌতুক ও এক ভরি স্বর্ণালঙ্কারের বিনিময়ে গার্মেন্টসকর্মী শিহাবের সঙ্গে উর্মির বিয়ে হয়। পরবর্তীতে শিহাব ও তার পরিবারের লোকজন উর্মির বাবার নিকট আরও ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। যৌতুক দিতে অস্বীকার করায় উর্মির ওপর শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালায় তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এক পর্যায়ে ২৭ জুলাই গর্ভবতী অবস্থায় উর্মিকে শ্বাসরোধে হত্যা করে ঘরের ধর্ণার সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়।

মৃত গৃহবধূর ভাই ইমরান হোসেন জানান, উর্মি ওই সময় গর্ভবতী হলেও ময়নাতদন্তের রিপোর্টে সে কথা উল্লেখ নেই। তিনি অভিযোগ করেন এ হত্যাকাণ্ডটিকে ধামাচাপা দিতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও চিকিৎসক আসামিপক্ষের সঙ্গে যোগসাজস করে মিথ্যা ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন।
Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful