Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০ :: ৯ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৬ : ৫৬ পুর্বাহ্ন
Home / আলোচিত / রংপুর চেম্বারের তাৎক্ষণিক বাজেট প্রতিক্রিয়া

রংপুর চেম্বারের তাৎক্ষণিক বাজেট প্রতিক্রিয়া

rangpur chambarমহানগর প্রতিনিধি: ২০১৩-২০১৪ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন, শিক্ষা, প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা বিশেষ করে বিদ্যুৎ, সামাজিক সুরা, যোগাযোগ ও অবকাঠামো খাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে সামষ্টিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখা, প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করা, দারিদ্র বিমোচনের পাশাপাশি দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখার পদক্ষেপ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, কৃষি উন্নয়নে ভর্তুকি প্রদান ও কৃষি ঋণের বিশেষ বরাদ্দ ইত্যাদি ক্ষেত্রে গৃহীত বাজেট প্রস্তাব গুলোকে রংপুর চেম্বার জনকল্যাণমূলক ও বর্তমান প্রেক্ষাপটে বাস্তবমুখী বলে মনে করে।
বাজেট প্রস্তাবে গরীব ও হত দরিদ্র জনগোষ্ঠীর খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় উপকার ভোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি এবং এ কর্মসূচীতে বয়স্ক, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্ত, দুঃস্থ মহিলা, অসচ্ছল প্রতিবন্ধী, মাতৃত্ব-কালীন ভাতা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সুবিধা প্রদান বিষয়ক বাজেট প্রস্তাবগুলো গ্রামীণ দারিদ্র বিমোচন ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা যায়।
প্রস্তাবিত বাজেটে কালো টাকার মালিকদের আবাসন খাত ও শেয়ার বাজারে বিনিয়োগের মাধ্যমে ১০ শতাংশ কর দিয়ে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। এ ব্যবস্থা পুঁজি বাজারে বিনিয়োগকারীদের সংকট নিরসনে সহায়ক ভূমিকা রাখলেও এতে বৈধ অর্থ উপার্জনকারীরা নিরুৎসাহিত হবেন। বাজেট প্রস্তাবে মূল্যস্ফীতির বিষয়টি বিবেচনা করে আগামী অর্থ বছরে ব্যক্তি শ্রেণীর করদাতাদের ২২০০০০/- (দুই ল বিশ হাজার) টাকা পর্যন্ত আয় করমুক্ত করাসহ নারী, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে সরকারের আয়কর ছাড় সম্বলিত প্রস্তাবগুলো জনকল্যাণকর বলে বিবেচিত হবে।
স্থানীয় শিল্পের সুরার জন্য মধ্য পর্যায়ের শিল্পের মূলধনই যন্ত্রপাতি ও কাঁচামাল আমদানির ক্ষেত্রে বেশ কিছু শুল্ক কমানোর প্রস্তাব রয়েছে বাজেটে যা দেশীয় শিল্প বিকাশে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।
বিনিয়োগ বাড়িয়ে শিল্পায়ন ত্বরান্বিত করতে বাজেটে শতভাগ রপ্তানি-মুখী শিল্পের মূলধনই যন্ত্রপাতি আমদানির কিছু কিছু ক্ষেত্রে শুল্কমুক্ত করাসহ বিলাস পণ্যের আমদানি নিরুৎসাহিত করা হয়েছে-যা স্থানীয় মাঝারি শিল্প বিকাশে সহায়ক হবে এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে রংপুর চেম্বার মনে করে।
বাজেটে চাল, ডাল, চিনি, ভোজ্য তেল, পেঁয়াজ, সার, বীজ ও জীবন রক্ষাকারী ঔষধ আমদানির ওপর শূন্য শুল্ক অব্যাহত রাখা হয়েছে যা-ভোগ্যপণ্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখার পাশাপাশি জনসাধারণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখতে সহায়ক হবে বলে আমরা মনে করি।
বাজেটে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত, রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ-কালভার্টসহ অবকাঠামো খাতে বরাদ্দ বাড়িয়ে গ্রামীণ অর্থনীতি চাঙ্গা করার চেষ্টাও রয়েছে-যা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। বাজেটে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখা, ভোগ্যপণ্যের আমদানিতে শুল্ক মুক্ত সুবিধা অব্যাহত রাখা, খাদ্য মজুদ পরিকল্পনায় খাদ্য গুদামের ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি, দরিদ্র জনগোষ্ঠীর নিকট কম দামে চাল বিতরণ ও ওএমএস অব্যাহত রাখা ইত্যাদি পদক্ষেপগুলো খাদ্য নিরাপত্তার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
বাজেট প্রস্তাবে ১৮টি খাতকে কর অবকাশ সুবিধা দেয়া হয়েছে ২০১৫ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। এ ব্যবস্থা শিল্পায়নের গতি ত্বরান্বিতকরণে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।
বাজেটে মধ্যবিত্ত ও অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্দশা লাঘবে  সঞ্চয় পত্রের সুদের হার বৃদ্ধির উদ্যোগের কথা বলা হয়েছে। আগামী অর্থ বছর থেকে ১০ ল টাকা পর্যন্ত সঞ্চয় পত্রের ক্ষেত্রে উৎসে কর মওকুফ করা হয়েছে। এ পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। বর্তমানে ক্ষুদ্র শিল্পে বার্ষিক লেন-দেনের পরিমাণ ৭০ লাখ টাকা পর্যন্ত মূল্য সহযোজন কর বা ভ্যাট মুক্ত। এর বেশি লেনদেন হলে প্রতিষ্ঠানের মালিককে নির্ধারিত হারে ভ্যাট দিতে হয়। বাজেটে নতুন এই সীমা আরো ১০ লাখ বাড়িয়ে ৮০ লাখ টাকায় উন্নীত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এই ব্যবস্থা বহাল হলে ক্ষুদ্র শিল্প উন্নয়নে তা সহায়ক ভূমিকা রাখবে। দেশে আইটি খাতের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেই ইন্টারনেট ব্যবহারে আরোপিত ১৫ শতাংশ মূল্য সহযোজন কর (মূসক) প্রত্যাহারের জন্য বাজেটে প্রস্তাব করা হয়েছে। এই প্রণোদনা বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।
প্রস্তাবিত বাজেটে উত্তরবঙ্গের ৭টি জেলার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান এবং আর্থ কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও বৃহত্তর রংপুরের চরাঞ্চলের জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ইক্ষু চাষে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ রাখা হয়েছে। উক্ত কর্মসূচীতে এ অর্থ বরাদ্দ অভাব পীড়িত এ অঞ্চলের দারিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবিকা নির্বাহে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।
দেশের যেসব অঞ্চলের জনগোষ্ঠী প্রাকৃতিক গ্যাসের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত সেসব অঞ্চলে বিশেষ করে দেশের উত্তরাঞ্চলে প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহের ন্যায় জন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি বাজেটে অন্তর্ভুক্ত থাকা উচিত ছিল বলে রংপুর চেম্বার মনে করে। আমরা লক্ষ্যে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দের দাবি জানাচ্ছি।
পরিশেষে বাজেটের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসমূহ অর্জনের নিমিত্তে বাজেট প্রস্তাবগুলো সঠিক বাস্তবায়নে সরকারের বিভিন্ন পরিকল্পনা, পন্থা, কর্মসূচী ও কৌশল এমনভাবে প্রণয়ন করতে হবে যাতে সামষ্টিক অর্থনীতির স্থিতিশীলতা, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং দারিদ্র বিমোচনের ক্ষেত্রে ইতিবাচক সুফল বয়ে আনতে পারে রংপুর চেম্বার সে কামনা করছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful