Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ১ নভেম্বর, ২০২০ :: ১৭ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৭ : ২৮ পুর্বাহ্ন
Home / গাইবান্ধা / বালাসী-বাহাদুরাবাদ নৌপথে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত; ফেরি সার্ভিস পুনরায় চালুর দাবি

বালাসী-বাহাদুরাবাদ নৌপথে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত; ফেরি সার্ভিস পুনরায় চালুর দাবি

balashi baharabadগাইবান্ধা প্রতিনিধি: শ্যালো ইঞ্জিনচালিত নৌকা। ওপরে ছাউনি নেই। নেই বসার ব্যবস্থা। পাটাতনে পা রেখে নৌকার দুই পাশে যাত্রীদের সামনের দিকে ঝুঁকে বসে থাকতে হয়। পেছনে অথই পানি। নড়েচড়ে বসারও সুযোগ নেই। কারণ, নৌকায় যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড়।
এভাবেই গাইবান্ধার বালাসী-বাহাদুরাবাদ নৌপথে প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন কয়েক শ মানুষ। এই বাস্তবতায় বালাসী-বাহাদুরাবাদ পথে ফেরি সার্ভিস পুনরায় চালুর দাবি উঠেছে।
গাইবান্ধা রেলস্টেশন সূত্র জানায়, ২০০৪ সাল পর্যন্ত আন্তনগর এক্সপ্রেস ট্রেন তিস্তা, একতা এবং একটি মেইল ট্রেন দিনাজপুর থেকে রংপুর হয়ে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের বালাসীঘাট পর্যন্ত চলাচল করত। রংপুর বিভাগের আটটি জেলার মানুষ বালাসীঘাট থেকে রেলওয়ে ফেরিতে জামালপুরের বাহাদুরাবাদে পৌঁছে ট্রেনে ময়মনসিংহ ও ঢাকায় যাতায়াত করত। ২০০৪ সালে বালাসী-বাহাদুরাবাদ পথে রেলওয়ে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তখন থেকে বালাসীঘাটে দুটি বার্জ, একটি টাগ, সাতটি পন্টুনসহ কয়েক কোটি টাকার সম্পদ অব্যবহূত অবস্থায় পড়ে আছে। এগুলো রক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিত ১৭০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী এখন কার্যত অলস সময় কাটাচ্ছেন।
এই পথে যাতায়াতকারী কয়েকজন জানান, রেল ফেরি বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর থেকেই এই পথে নৌকায় যাতায়াত শুরু হয়। প্রতিদিন তিনটি নৌকা বালাসী-বাহাদুরাবাদ পথে চলাচল করছে। ভাড়া জনপ্রতি ৮০ টাকা। বালাসী থেকে বাহাদুরাবাদ যেতে প্রায় দেড় ঘণ্টা সময় লাগে।

জেলা সিপিবির সাধারণ সম্পাদক মিহির ঘোষ বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন থেকে এই পথে যাতায়াত করছি। আগে রেল ফেরিতে পার হয়ে ট্রেনে ঢাকা যেতে হয়েছে। এখন নৌকায় পার হয়েও তিস্তা এক্সপ্রেসে ঢাকায় যাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু অধিক ভাড়া আদায় করা হলেও নৌকায় ছাদ, বসার ব্যবস্থা কিংবা নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেই। ফলে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে।
বালাসীঘাট ইজারা নিয়েছে কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের রসুলপুর কৃষক সমিতি। সমিতির সভাপতি ও কঞ্চিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, ছাতার নিচে ও নৌকার পাটাতনে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। দুর্ঘটনা এড়াতে সতর্কতার সঙ্গে নৌকা চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
গাইবান্ধা নাগরিক কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বলেন, এই পথে ফেরি সার্ভিস চালু হলে উত্তরাঞ্চলের গাইবান্ধাসহ আটটি জেলার মানুষ বাসযোগে কম সময়ে সরাসরি জামালপুর, ময়মনসিংহ ও ঢাকায় যেতে পারবে। পাশাপাশি যমুনা সেতুর ওপর চাপ কমবে।

জেলা প্রশাসক কাজী আনোয়ারুল হক বলেন, বালাসী-বাহাদুরাবাদ নৌপথে ফেরি সার্ভিস চালুর জন্য বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষকে (বিআইডব্লিউটিএ) জানানো হয়েছে। ইতিমধ্যে বিআইডব্লিউটিএর একটি দল বালাসীঘাট এলাকা ঘুরে গেছে। আশা করা যায়, অচিরেই ফেরি সার্ভিস চালু হবে। ফেরি চালু হলে যাত্রীদের দুর্ভোগ লাঘব হবে। পাশাপাশি কম সময়ে উত্তরাঞ্চলের মানুষ ঢাকায় যাতায়াত করতে পারবে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful