আর্কাইভ  শনিবার ● ২৭ নভেম্বর ২০২১ ● ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   শনিবার ● ২৭ নভেম্বর ২০২১

দিনাজপুরে দেবর কর্তৃক ভাবীকে ধর্ষন : থানায় অভিযোগ দায়ের

বুধবার, ১২ জুন ২০১৩, বিকাল ০৭:০৭

থানা সূত্রে জানা গেছে, বিরল উপজেলার রাণীপুকুর ইউপি’র বিষ্ণুপুর গ্রামের মৃত আবুল হোসেন এর পুত্র জাবেদুর রহমান (৩৫) এর প্রায় ৯ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। বিয়ের পর শাশুড়ী জাহানারা বিয়ে মেনে না নেওয়ায় শশুর বাড়ীতেই ঘর সংসার শুরু করে জাবেদুর।

সংসার জীবনে তাদের একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়, যার বয়স প্রায় ৫ বছর। গত ৩ মাস পূর্বে হঠাৎ পুত্র বধূর বাড়ীতে গিয়ে পুত্র, নাতীসহ পুত্রবধূকে শাশুড়ী জাহানারা তাঁর ২য় স্বামী আনিছুরসহ বসবাস করা বাড়ীতে নিয়ে আসে।

জাবেদুর সহজ সরল হওয়ায় পরবর্তীতে তাঁকে জাহানারা কৌশলে ঢাকায় রিক্সা চালানোর জন্য পাঠিয়ে দেয়। পরিকল্পিত ভাবে গত ১৩ এপ্রিল/১৩ দিবাগত রাত্রে স্বামীর অনুপস্থিতিতে জাহানারার ২য় স্বামীরপুত্র লম্পট দেবর রিপন (২২) ভাবীর ঘরে প্রবেশ করে ভাবীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন করে।

এ সময় ধর্ষিতা ভাবী চিৎকার করলে দরজার পাশেই থাকা শাশুড়ী জাহানারা পূত্রবধূকে ঘটনার বিষয় কাউকে না জানানোর জন্য বলে। সে সাথে শাশুড়ী বলে আমার ছেলে জাবেদুর বোকা তার সাথে তোমার সংসার হবেনা। তুমি চুপ থাকলে রিপনের সাথে তোমার বিয়ে দিব। এরপর বিভিন্ন সময় লম্পট রিপন বিয়ের প্রলোভনে দিনের পর দিন ভাবীকে ধর্ষন করতে থাকে।

এক পর্যায় ভাবী রিপনকে বিয়ের চাপ দিলে লম্পট দেবর কালক্ষেপন করতে থাকায় ঘটনার বিষয় ভাবী প্রকাশ করে দিলে স্থানীয় ভাবে শালিস বিচার বসলে শালিসের রায় লম্পট দেবর ও শাশুড়ী মেনে নেয়নি। সংবাদ পেয়ে ধর্ষিতার স্বামী ঢাকা থেকে এসে ধর্ষিতাকে আর সংসারে রাখবে না বলে জানায়। উপায় না পেয়ে ধর্ষিতা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করে।

এ ব্যাপারে শালিস বৈঠকের কথা স্বীকার করে ধর্ষিতার শাশুড়ী জাহানারা জানান, বিষয়টি বানোয়াট, তদুপরী আমি ছেলে ও নাতীকে জমি লিখে দিতে চেয়েছিলাম, পুত্রবধূর নামে জমি না দেয়ায় মতবিরোধ সৃষ্টি হওয়ার কারণে জমি লিখে দেইনি।

মন্তব্য করুন


Link copied