Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০২১ :: ১৩ মাঘ ১৪২৭ :: সময়- ৩ : ২৮ পুর্বাহ্ন
Home / আলোচিত / সংবিধান প্রনেতা, বঙ্গবন্ধু’র ঘনিষ্ট সহচর সাবেক এমপি আব্দুর রহিমের ইন্তেকাল

সংবিধান প্রনেতা, বঙ্গবন্ধু’র ঘনিষ্ট সহচর সাবেক এমপি আব্দুর রহিমের ইন্তেকাল

M Abdur Rahim MP- Picture

শাহ্ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকেঃ দেশের সংবিধান প্রনেতা,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক দিনাজপুরের বিশিষ্ট আইনজীবী সাবেক এমপি এ্যাডভোকেট এম. আব্দুর রহিম ইন্তেকাল করেছেন ( ইন্না… রাজেউন)।

তিনি আজ রোববার বেলা ১১ টায় রাজধানী ঢাকার বাডেম হামপাতালে ইন্তেকাল করেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৯০ বছর।বাধ্যর্কজনিত কারণে তিনি দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি বিচারপতি এনায়েতুর রহিম এবং জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিমের পিতা। মৃত্যুকালে এম.আব্দুর রহিম,স্ত্রী, দুই ছেলে,৪ মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। মরহুম আব্দুর রহিমের প্রথম নামাজে জানাজা সোমবার সকাল ১১টায় দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে এবং বিকেল ৩টায় তার গ্রামের বাড়ি দক্ষিণ কোতয়ালী’র জালালপুরে অনু্্ঠতি হবে। পরে গ্রামের বাড়ি জালালপুরের দাফন করা হবে তাঁকে।

মুক্তিযুদ্ধের অন্যাতম সংগঠক, মুক্তিযুদ্ধকালীন পশ্চিমাঞ্চলীয় জোনের জোনাল চেয়ারম্যান ও বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর সাবেক এমপি এম আব্দুর রহিম ১৯২৭ সালের ২১ নভেম্বর দিনাজপুর সদর উপজেলার শংকপুর ইউনিয়নের জালালপুর গ্রামের এক সভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহ করেন। ১৯৭০ সালে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়ে ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বৃহত্তর দিনাজপুর অঞ্চলের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে অক্লানন্ত পরিশ্রম করেন। পাক বাহিনীরা দিনাজপুর আক্রমন করলে এম আব্দুর রহিমকে আহ্বায়ক করে দিনাজপুরে মুক্তিযুদ্ধ সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়। মানবিক মূল্যবোধ আর দেশাত্ববোধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে তিনি ভারতের পতিরাম, রায়গঞ্জ, কালিয়াগঞ্জ, বালুরঘাট, গঙ্গারামপুরসহ বিভিন্ন এলাকার শরনার্থী শিবিরে আশ্রয় নেয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। ৭১-এর ১৭ই এপ্রিল মুজিবনগর সরকার গঠন হলে গোটা দেশকে যুদ্ধ পরিচালনার জন্য ১১টি বেসামরিক জোনে ভাগ করা হয়। মুজিবনগর সরকার এম আব্দুর রহিমকে পশ্চিম জোনের জোনাল চেয়ারম্যান নিযুক্ত করে। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি ১৮ ডিসেম্বর সকাল ১১টায় দিনাজপুর গোর-এ শহীদ বড় ময়দানে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম দিনাজপুরে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। এসময় মিত্র বাহিনীর এ অঞ্চলের অধিনায়ক ব্রিগেডিয়ার ফরিদ ভাট্টি ও কর্ণেল সমশের সিং এর নেতৃত্বে তাকে গার্ড অব অনার দেয়া হয়।

রাজনীতিক এম আব্দুর রহিম সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে সংবিধান প্রণয়ন কমিটির অন্যতম সদস্য ছিলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি ছিলেন তখন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সহসভাপতি হিসেবে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। এম আব্দুর রহিম ১৯৯১ সালে দিনাজপুর সদর আসন থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য পুনরায় নির্বাচিত হন।

তিনি বেশ কিছুদিন যাবৎ বার্ধক্যজনিত কারনে অসুস্থ্য থাকলে তাকে হেলিকপ্টার যোগে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। ঢাকার বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন বলে নিশ্চিত করেছেন তার বড়পুত্র বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম। তার মৃত্যুর খবর এসে পৌছলে দিনাজপুরে নেমে আসে শোকের ছায়া।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful