Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০ :: ৮ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৬ : ২২ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / আওয়ামামী লীগ নেতাকর্মীদের হাতে জাপা এমপি লাঞ্ছিত

আওয়ামামী লীগ নেতাকর্মীদের হাতে জাপা এমপি লাঞ্ছিত

নিজস্ব প্রতিনিধি: বদরগঞ্জের এমপি জাতীয় পার্টির আনিছুল ইসলাম মণ্ডলকে লাঞ্ছিত ও অবরুদ্ধ করেছে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা। এ সময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে এক শিক্ষকও লাঞ্ছিত হয়েছেন। স্কুলের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির মধ্যকার বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্কুল সূত্রে প্রকাশ, বদররগঞ্জ মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে বুধবার বিদ্যালয় ম্যনেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে রংপুর-২(বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ)আসনের জাপা দলীয় এমপি আনিছুল ইসলাম মণ্ডলের স্ত্রী শান্তা ইসলাম মনি পাঁচ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। ওই নির্বাচনে চার ভোট পেয়ে পারজিত হন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডিউক চৌধুরীর চাচা জাহেদুল হক চৌধুরী।

নির্বাচনে পরাজিত হওয়ায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত স্কুলের শিক্ষক এবং নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। সেদিনই স্কুলের আওয়ামী লীগ সমর্থিত শিক্ষক প্রতিনিধি রওশন আলী ও হাফিজুর রহমান এমপি পত্নীর সভাপতি হওয়ার বিরোধিতা করেন।

এ সময় সেখানে উপস্থিত মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে তারা অভিযোগ করেন, এমপির স্ত্রী নিয়ম বহির্ভূতভাবে চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এ নিয়ে শিক্ষক প্রতিনিধি রওশন আলী সংশ্লিষ্ট স্কুলে প্রমাণ সংগ্রহ করতে যায়। এতে স্কুলের মধ্যে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি সমর্থক শিক্ষক এবং উপজেলার নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা এ ঘটনাকে এমপি ও তার স্ত্রীকে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী কর্তৃক অবমাননা হিসেবে চিহ্নিত করে বিচার দাবি করেন।

এ পরিস্থিতিতে স্কুলের সার্বিক শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় স্কুল অডিটোরিয়ামে এমপি আনিছুল ইসলাম মণ্ডল শিক্ষকদের নিয়ে জরুরি সভায় বসেন। এ সময় স্কুলের নব নির্বাচিত সভাপতি এমপিপত্নী শান্তা ইসলাম মনিও বৈঠকে আসেন। বৈঠকে শিক্ষকদের ক্লাশ ফাঁকি দিয়ে অবৈধ উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য ঝড়যন্ত্র করার বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

স্কুলের সভাপতি ও এমপির স্ত্রী শান্তা ইসলাম মনি অভিযোগ করে জানান, বৈঠক চলাকালে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ডিউক চৌধুরীর নেতৃত্বে প্রায় ৫০-৬০ জন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মী হলরুমে ঢুকে বৈঠক ভণ্ডুল করে দেয় এবং এমপিকে  অবরুদ্বধ ও লাঞ্ছিত করে। এ সময় বাধা দিতে আসলে ছাত্রলীগ কর্মীরা মাসুদ রানা নামে স্কুলের এক শিক্ষককে মারধর ও  লাঞ্ছিত করেন।

এদিকে এমপি অবরুদ্ধ ও লাঞ্ছিত হওয়ার খবর পেয়ে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা স্কুলে আসলে উভয় গ্রুপের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে পুলিশ আসলে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়।

বিদ্যালয়ের আওয়ামী লীগ সমর্থিত শিক্ষক প্রতিনিধি রওশন আলী ও হাফিজুর রহমান বলেন, “আমরা নির্দোষ। সভাপতির বিষয়ে যে আপত্তি আমরা দিয়েছি তা বিধি সম্মত।” ক্লাস ফাঁকি দিয়ে অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

এ ব্যপারে প্রধান শিক্ষক ময়নুল হক সরকার বলেন, “এ পরিস্থিতিতে কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভা মূলতবি করা হয়েছে। বিদ্যালয়ে যা হলো তা পুরোপুরি পরিকল্পিত ও সন্ত্রাসী ঘটনা।”

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডিউক চৌধুরী বলেন, “আনিছুল ইসলাম মণ্ডল এমপি ও তার পরিবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে যে অবস্থার সৃষ্টি করেছেন তা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। কারণ ছাড়াই ভিন্ন মতাদর্শের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।”

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful