Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০ :: ৬ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ১০ : ১৬ পুর্বাহ্ন
Home / দিনাজপুর / বিরামপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৪৪ ধারা

বিরামপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৪৪ ধারা

144দিনাজপুর: দিনাজপুরের বিরামপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির দুগ্রুপ একই সময় বিদ্যালয়-মাঠে সমাবেশ ডাকায় সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। সোমবার সকাল নয়টায় বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রোখছানা বেগম এই আদেশ জারি করেন।

সূত্র জানায়, বিরামপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি লিয়াকত আলী টুটুল ও প্রধান শিক্ষক আরমান হোসেনের বিরুদ্ধে কমিটির একটি অংশ বিশাল অংকের আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ তোলে। এ নিয়ে ১৫ জুলাই মোস্তাফিজুর রহমান আবু বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরমান হোসেন ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি টুটুল ডোনেশন বাবদ ৫৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা আত্মসাত করেছেন বলে ইউএনও’র কাছে অভিযোগ করেন।

শিক্ষক-কর্মচারীরা এই অভিযোগের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ২১ জুলাই আবুর বিরুদ্ধে ইউএনও বরাবর পাল্টা দুটি অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে দুই গ্রুপই সোমবার সকাল ১০টায় বিদ্যালয়-মাঠে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ ডাকলে ইউএনও নাশকতার আশঙ্কায় সেখানে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করেন। এর প্রতিবাদে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি লিয়াকত আলীর প্রতিপক্ষ গ্রুপ তাৎক্ষণিক বিরামপুর ঢাকা মোড়ে উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু ও পৌর মেয়র আজাদুল ইসলামের নের্তৃত্বে একটি প্রতিবাদ সমাবশ ডাকে এবং সেখানে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে রাখে। বর্তমানে সড়ক অবরোধ অব্যাহত রয়েছে।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু, পৌর মেয়র আজাদুল ইসলাম, সাবেক পৌর চেয়াম্যান অধ্যাপক আক্কাস আলী, থানা বিএনপি সভাপতি আশরাফ আলী মণ্ডল, সাধারণ সম্পাদক কমর সেলিম, পলিপ্রয়াগপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ফিজুল, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সাবেক সদস্য রেজাউল করিম রেজা ও তোসাদ্দেক হোসেন তোসা।

উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু অভিযোগ করেন, “বর্তমান বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির চেয়াম্যান ও প্রধান শিক্ষক প্রায় ৫৪ লাখ টাকা আর্থিক দুর্নীতি করেছেন। এর প্রতিবাদে বিদ্যালয়-মাঠে সমাবেশ ডাকলে ওসি এবং ইউএনও যোগসাজসে অর্থের বিনিময়ে ১৪৪ ধারা জারি করে। এর প্রতিবাদে অভিভাবকসহ দলমত নির্বিশেষে তারা সড়ক অবরোধ করেছেন।” প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত তাদের অবরোধ চলবে বলেও জানান তারা।

বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোখসানা বেগম জানান, পুলিশ এবং ডিএসবি রিপোর্টের ভিত্তিতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

অভিযোগের ব্যাপারে তিনি জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অর্থের বিনময়ে ১১৪ ধারা জারির ব্যাপারে তিনি বলেন, “তারা এ অভিযোগ করতেই পারে। এ ব্যাপারে আমার কিছু বলার নেই।”

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful