Templates by BIGtheme NET
আজ- রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০ :: ১০ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৫ : ০১ পুর্বাহ্ন
Home / স্পোর্টস / বর্তমানে যেমন আছেন আশরাফুল?

বর্তমানে যেমন আছেন আশরাফুল?

ashrafulএখন তার ব্যস্ততা নেই। হাতে অখণ্ড অবসর। খেলা নেই। প্রাকটিস নেই। নীরবে নিভৃতে দিন কাটছে ঘরে বসেই। খেলার জগতে এসেছিলেন চাঁদনি পসরে। ফিরে গেলেন অমাবস্যা রাতে। তিনি মোহাম্মদ আশরাফুল। জাফর উল্লা সারাফাত, খোদা বক্স মৃধা, উৎপল শুভ্ররা যাকে আদর করে ‘আশার-ফুল’ ডাকতেন।

একটাই ভুল। তবে ভুলের চেয় বড় কিছু সেটা। যার কোনো ক্ষমা নেই। নেই কোনো করুণা। ক্ষমাহীন সেই বাস্তবতার কাছে হারতে হয়েছে বাংলাদেশের ‘আশার-ফুল’কে। আশরাফুলের এ করুণ ইতিহাস এখন প্রায় সবারই জানা। ‘স্পট ফিক্সিং’ কেলেঙ্কারিতে তিনি এখন মাঠের বাইরে আছেন। সব ধরণের ক্রিকেট থেকে তাকে দূরে সরিয়ে রেখেছে বিসিবি। যে জীবন ক্রিকেটের, সে জীবন ক্রিকেট ছাড়া কেমন চলছে?

আশরাফুলের ঘনিষ্ঠজনেরা জানিয়েছেন, ‘পানি ছাড়া মাছ যেমন থাকে, আশরাফুলও তেমন আছেন!’

বনশ্রীতে তার বাড়ি যেয়ে খুঁজে পাওয়া যায়নি আশরাফুলকে। পেলেও হয়তো তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হতো না। বাড়ির কাজের লোকেরা জানায়, এখন তিনি গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেন না বললেই চলে। তাদের জানানো তথ্য থেকে বোঝা গেল, এখন ‘একলা চলো’ নীতি অবলম্বন করছেন তিনি।

বনশ্রীর পাঁচতলা বাড়ি। এ বাড়ির চতুর্থ ও পঞ্চম তলার ডুপ্লেক্সে থাকেন তিনি। ডুপ্লেক্স বাড়ির প্রথম তলায় বিশাল আয়তনের বসার ঘর। ঘরের তিনটি দেয়াল আর মেঝে সাদা। বাকি দেয়ালটি লাল ইটের নকশা করা। এ দেয়ালে টিভি সেট ও ঘড়ি। বসার জন্য রয়েছে তিন সেট ডাবল সোফা। ঘরের মাঝে র‌্যাগ পাতা। র‌্যাগের ওপর গোলাকার পায়াবিহীন সেন্ট্রাল টেবিলে কৃত্রিম ফুলদানি ও কয়েকটি ছোট শোপিস।

শোবার ঘরে বক্সখাট। খাটের ওপর বাটিকের চাদর। শোবার ঘর থেকে বারান্দার মাঝখানে কাচের গ্লাস লাগানো দরজা। জানালায় নীল পর্দা। এ ঘরের এক কোণে কাঠের মেঝের উঁচু পাটাতন। সামনের সাদা দেয়ালে টিভি রাখা। পাশেই দুই তাকের গ্লাস টেবিল। সঙ্গে ডিভান আকৃতির বার্নিশ রঙের সোফা।

ডুপ্লেক্সের সিঁড়ির নিচে বাঁ দিকে অতিথি ঘর। এখানে ডিভানের মতো মোটা গদি পাতা। একপাশে ড্রেসিং টেবিল ও এক সেট ডাবল সোফা। জানালায় পর্দার বদলে বাঁশের চিক।

ডুপ্লেক্স বাড়ির কাঠের সিঁড়ি দিয়ে ওপরে উঠতে খোলা জায়গা। দেয়াল না দিয়ে বানিয়ে নিয়েছেন শোকেস। শোকেসের পাঁচটি তাকভর্তি শোপিস। আরো আছে আশরাফুলের ক্রিকেট-জীবনের সম্মাননা ও পুরস্কার।

বসার, শোবার আর খাবার ঘরে সাজানো আটটি সেঞ্চুরি করা ব্যাট ও স্ট্যাম্প। এগুলো যেন নীরব অভিমানের প্রতীক হয়ে আছে। হয়তো ধিক্কার দিচ্ছে। না হয়তো অনুশোচনায় পুড়ে মরছে।

আশরাফুলের বাড়ি সামনে দেখা গেল পাঁচ-ছয়জন ভক্তকে। কেউ ছবি তুলছেন। কেউ উকি মারছেন। যদি একপলক দেখা যায় ‘ট্র্যাজিক হিরো’কে!

‘আশরাফুলকে এখনো কি আপনারা ভালোবাসেন?’ ঐ ভক্তদের দেয়া এই প্রশ্নের জবাব যেন বাংলাদেশের সমগ্র ক্রিকেট প্রেমীদের আশরাফুলের প্রতি ভালোবাসার প্রতিধ্বনি হয়ে থাকল ‘আমরা ভালোবাসি শ্রীলঙ্কার মাঠের সেই ১৬বছর বয়সী আশরাফুলকে। ভালোবাসি ২০০৭ বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ‘ম্যান অব দ্যা ম্যাচ’ হওয়া আশরাফুলকে। সেই আশরাফুলকে কোনোদিন ভোলা সম্ভব নয়।’

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful