Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৩ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৫ : ৫০ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকার ২১টি গ্রামে তীব্র পানি সংকট

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকার ২১টি গ্রামে তীব্র পানি সংকট

image_6847পার্বতীপুর(দিনাজপুর): পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি ও তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকার ২১টি গ্রামে তীব্র পানি সংকট দেখা দিয়েছে। গৃহস্থালি কাজকর্ম করার ও খাবার পানি মিলছে না এসব এলাকায়।

এসব গ্রাম গুলোর প্রায় ৫০ হাজার মানুষের মধ্যে চলছে পানি নিয়ে তীব্র হাহাকার। আরো অন্তত দু মাস এ অবস্থা চলবে বলে জানা গেছে। বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ১১টি গভীর নলকূপ বসিয়ে সার্বক্ষণিকভাবে ভূ-গর্ভ থেকে পানি উত্তোলন করা হয়। ফলে পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় হস্তচালিত নলকূপগুলো অকেজো হয়ে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি ও তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আশপাশের পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নের চৌহাটি, মৌপুকুর, বাঁশপুকুর, কালুপাড়া, বলরামপুর, জিগাগাড়ী, বড়পুকুরিয়া, পাতিগ্রাম, পাতরাপাড়া, বৈগ্রাম, ইসফপুর, পূর্ব সুখদেবপুর ও ধুলাউদাল, হাবড়া ইউনিয়নের পূর্ব শেরপুর, পশ্চিম শেরপুর, ভবানীপুর, রামরায়পুর ও রামচন্দ্রপুর, হরিরামপুর ইউনিয়নের খয়েরপুকুরহাট এবং ফুলবাড়ী উপজেলার দুধিপুকুর ও রামভদ্রপুর গ্রামে তীব্র পানি সংকট চলছে।

এ ২১টি গ্রামের মধ্যে পূর্ব সুখদেবপুর, ভবানীপুর, রামরায়পুর ও রামচন্দ্রপুরে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ৪টি ওভার হেড ট্যাংক নির্মাণ করে পাইপ বসিয়ে গভীর নলকূপের সাহায্যে পানি সরবরাহ করে আসছে। এতে ওই ৪টি গ্রামের কিছু কিছু অংশে পানির সংকট লাঘব হয়েছে।

এ ব্যাপারে বড়পুকুরিয়া ২৫০ মেগাওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী মঞ্জুরুল হক জানান, বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দুটি ইউনিটের বয়লারে প্রতিদিন ১ হাজার টন (১ হাজার কিউসেক) পানির প্রয়োজন। এজন্য কেন্দ্রের ১৪টি গভীর নলকুপের মধ্যে ১১টি ২৪ ঘণ্টা চালু রাখতে হয়। ফলে ভূ-গর্ভের পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়াটাই স্বাভাবিক আশপাশের এলাকায় পানির স্তর এতই নিচে নেমে গেছে যে, হস্তচালিত নলকূপ, তারাপাম্প (বিশেষ ধরণের হস্তচালিত নলকূপ) এমনকি শ্যালো মেশিন দিয়েও পানি উঠছে না।

পার্বতীপুর উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী (জনস্বাস্থ্য) আমির আলী জানান, দুই হাজার ২৮১টি হস্তচালিত নলকূপ এবং ১২০টি তারাপাম্প অকেজো হয়ে পড়েছে।

সরেজমিনে গ্রামগুলো ঘুরে দেখা যায়, উক্ত এলাকায় লোকজনের মধ্যে পানির জন্য তীব্র হাহাকার চলছে।

পানি বিদ্যুৎ সম্পদ সংগ্রাম কমিটির সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক হারুনুর রশিদ মুকুল জানান, পানির অভাবে তারা ঠিকমতো গৃহস্থালি কাজকর্ম করতে পারছেন না। মাঠে গিয়ে সেচ পাম্প (গভীর নলকূপ) থেকে খাবার জন্য পানি নিয়ে এসে কিছু খাচ্ছেন এবং অতিকষ্টে গৃহস্থালি কাজকর্ম করছেন।

পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাহেনুল ইসলাম ওই এলাকায় তীব্র পানি সংকটের কথা স্বীকার করে জানান, বিষয়টি নিয়ে উপজেলা প্রশাসন খুবই উদ্বিগ্ন।

এসব এলাকার পানি সংকট নিরসনের জন্য বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে গভীর নলকূপ বসিয়ে ওভার হেড ট্যাংক নির্মাণ করে পাইপ দিয়ে পানি সরবরাহ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful