Templates by BIGtheme NET
আজ- বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৩ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ১১ : ৪৭ পুর্বাহ্ন
Home / আলোচিত / মনটাকে কিভাবে ভালো রাখা যায়?

মনটাকে কিভাবে ভালো রাখা যায়?

girlসবারই মাঝেমধ্যে মন খারাপ হয়ে থাকে আর এটা খুব স্বাভাবিক প্রবণতা। কেউ কেউ মন খারাপ করে শুধু বিছানায় শুয়ে থাকেন, এদিক ওদিক করেন, কিছুই যেন ভালো লাগে না। অনেকে বেশি বেশি মজার খাবার খেয়ে মন ভালো করতে চায়। আবার বর্তমান পরিস্থিতিতে আপনার মন খারাপ থাকলেও তা প্রকাশ করার কোনো সুযোগ থাকে না। কেননা কেবল কাজ আর কাজ। অফিসে কাজ, বাইরে কাজ, বাচ্চাকে দেখা, রান্নার কাজ, এত এত কাজের মধ্যে মন খারাপ করার সময় কোথায়? তাই, আমরা তো মন খারাপ করতে পারিই না উল্টো মনটাকে শক্ত রাখতে হয়, থাকতে হয় প্রফুল্ল আর আনন্দ চিত্তে।

নিজের মনটাকে কিভাবে ভালো রাখা যায়, সেটি জেনে নেয়া যাক।

মাঝেমধ্যেই আপনার ওপর অনেক কাজের চাপ তৈরি হয় তাই না? এতে আপনার মন খারাপ হয়? মন রাখাপ করে প্রায় বলে থাকেন ‘স্টপ’ বা ‘চলে যাও সবাই’ অথবা ‘আমার কিছুই ভালো লাগছে না’। এ সময়ে একদমই কাজ করতে ইচ্ছে করে না। অথচ কিছুক্ষণের মধ্যে আপনার মন ভালো হওয়া প্রয়োজন। আপনি এ সময় যা করতে পারেন তা হলো, পাহাড়ের মতো এত এত কাজের ভিড় ঠেলে উঠে বেরিয়ে আসুন। ছাদে চলে যান, মাথা উঁচিয়ে আকাশের দিকে তাকান, তারপর আপনার হাতদুটো টান টান সোজা করে উপরের দিকে তুলে ধরুন আর জোরে শব্দ করে হাসুন। আশা করি সহজ এই অনুশীলনে আপনার মন ভালো হয়ে যাবে।

কাজের ভারে বুকে চাপ লাগছে, নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে? অথচ কাজগুলো শেষ করতেই হবে, তাই না? ঠিক আছে, একটু সময় নিয়ে আঙুলে মাসাজ শুরু করুন। আপনার বুড়ো আঙুল এবং তর্জনী দিয়ে দু’হাতের আঙ্গুলগুলোর মাঝে টিপে টিপে মাসাজ করুন। এই অনুশীলন আপনাকে কাজের চাপে দম বন্ধ হওয়ার মতো মানসিক ও শারিরিক চাপ থেকে রেহাই দিতে পারে।

অসমাপ্ত কাজ বা শেষ করতে হবে এমন কাজ নিয়ে বেশি চিন্তা করা বন্ধ করুন বরং, যে কাজ শেষ হয়েছে তা নিয়ে চিন্তা করুন। এক দঙ্গল অসমাপ্ত কাজ নিয়ে যদি প্রতিনিয়ত চিন্তা করতে থাকেন তা আপনাকে ক্লান্ত করে দিতে পারে। তাই এসব নিয়ে চিন্তা না করে সম্প্রতি যে কটি কাজ সফলভাবে শেষ করেছেন, সেগুলো নিয়ে ভাবুন আর তা কাগজে লিখে রাখুন। সফল এ সব কাজের তালিকা দেখে আপনার মনের দৃঢ়তা ফিরে আসবে যা আপনাকে প্রফুল্ল করে তুলতে সাহায্য করবে।

নিশ্চয়ই অফিস বা ব্যবসার কাজের চাপে প্রায়ই খুব ক্লান্তি অনুভব করেন, কাজ আর ব্যস্ততাgirlর যগদ্দল পাথরের মতো ভারি হয়ে ওঠে আপনার বুক। কিছু সময়ের জন্য কাজে বাইরে বেরিয়ে এসে কল্পনার জাল বুনতে শুরু করুন। অর্থাৎ কাজ শেষে আপনি মালদ্বীপের মতো বিচে ছুটি কাটাতে চান। অথচ কাজ আপনাকে সে সুযোগ দিচ্ছে না। তার ওপর ছুটি নেই, পয়সার অভাব নানাবিধ প্রতিবন্ধকতা তো রয়েছেই। কোনো সমস্যা নেই, এ অবস্থায় আপনি হতাশ না হয়ে কল্পনাপ্রবণ হয়ে উঠুন। আর কল্পনায় মালদ্বীপের বিচ উপভোগ করুন- যেন মনে হয় সত্যিই আপনি সেই বিচে ঘোরাফেরা করছেন, চেয়ারে শুয়ে জুস খাচ্ছেন আর আপনার সামনে রয়েছে নীল আকাশের নিচে ঢেউয়ের তালে সমূদ্রের নাচন, হারিয়ে যায় দিগন্তের ধুসর সীমানায়। এই সুন্দর কল্পনায় আপনি নিশ্চয়ই আরাম বোধ করবেন। দূর হবে বুকে জমানো কাজের চাপ।

যারা ওজন কমাতে চান, তারা ভাতসহ বিভিন্ন কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবারের ক্ষেত্রে সতর্ক হোন। মজার বিষয় হচ্ছে যদি সত্যি সত্যি আপনার মন খারাপ হয়ে থাকে, তাহলে কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবারই আপনার মুড ভালো করে দিতে পারে। তবে বেশি করে খাওয়ার দরকার নেই। ৩০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট খাবার খেলে আপনি পুনরায় চাঙ্গা হয়ে উঠতে পারেন। সেজন্য মন খারাপ থাকলে কিছু হজমে সাহায্য করে এমন বিস্কুট খান বা অর্ধেক কাপ ওটমিল খান। দেখবেন আপনার মনে ভালো হয়ে যাবে।

যখন মন খারাপ থাকে, তখন আপনার উচিত উজ্জ্বল রঙের সব কাপড় পড়া। মন খারাপ হলে অনেকে কালো আর ধুসর রঙের কাপড় পড়তে পছন্দ করেন। আসলে এ রঙের কাপড়ে আপনাকে আরো মনমরা মলিন মনে হবে। তাতে আপনার মন আরো খারাপ হবে। সেজন্য মন খারাপ থাকলে রঙিন কাপড় পড়ুন আর এ সাথে নিজেকে সুন্দর করে সাজিয়ে তুলুন। নিজেকে সুন্দর দেখলে আপনার মনও প্রফুল্ল হয়ে উঠবে। লাল, গোলাপী ও হলুদসহ বিভিন্ন উজ্জ্বল রঙ মনে আনন্দধারা বইয়ে দিতে পারে।

যখন মন খারাপ থাকে, তখন হয়তো আপনি প্রায়ই বলে থাকেন: সব কিছু এলোমেলো, ভাগ্যটাই অনেক খারাপ’। এভাবে যদি চিন্তা করতে থাকেন তো, আপনার মন আরো খারাপ হয়ে যাবে। এ রকম সময় আপনি বলার ধরনটা পরিবর্তন করতে পারেন। আপনি হয়তো বলতে পারেন যে, কিছু কাজ ভালো করেছি, কিছু ভালো হচ্ছে না। এভাবে নিজেকে মূল্যায়ন করলে মন খারাপের চাপ কিছুটা হলেও কমে আসবে।

তবে একটা বিষয় সব সময়ে মনে রাখবেন, ভালো-মন্দ, সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না নিয়েই আমাদের জীবনের সব কিছু। সব সময় ভালো মুডে থাকতে না পারাটা জীবনেরই অংশ, তবুও আমরা আশা করি সবাই প্রতিদিন ভালো থাকবো, সুন্দর থাকবো। সূত্র: সিআরআই।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful