Templates by BIGtheme NET
আজ- শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৬ কার্তিক ১৪২৭ :: সময়- ৪ : ০২ পুর্বাহ্ন
Home / লালমনিরহাট / পাটগ্রামে বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠক; নিহত বাংলাদেশির লাশ ফেরত

পাটগ্রামে বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠক; নিহত বাংলাদেশির লাশ ফেরত

BGB-BSFসাফিউল ইসলাম সাফি, পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার জগতবেড় ইউনিয়নের কানিরবাড়ি সীমান্তে সুংলি নদীতে নদী থেকে ভারতীয় বিএসএফের উদ্ধার করা বাংলাদেশি যুবক নুরনবী (২৪)-এর লাশ গত বুধবার ( ১৪ আগষ্ট ) রাত সাড়ে আটটায় জগতবেড় সীমান্ত দিয়ে ফেরত দিয়েছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী(বিএসএফ)। নিহত নিহত রাখাল পাটগ্রাম উপজেলার জগতবেড় ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের সোলেমান মিয়ার ছেলে নুরনবী (২৪) ।
উপজেলার ককোয়াবাড়ি সীমান্তের ৮৬৮ নম্বর মেইন পিলার এর ৩ উপ-পিলারের বাংলাদেশ অংশে পতাকা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কোচবিহার রানীনগর ৩৫ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের চোংঙ্গাখাতা ক্যাম্পের সহকারি কমিশনার প্রভাব চর্তুবেদী ও ডিপুটি কমিশনার জিএম গোর্ভে এবং লালমনিরহাট-৩১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পাটগ্রাম কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার জোনাব আলী মধ্যে এক পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে লাশ ফেরত দেওয়া হয়।
এ সময়ভারতের পক্ষে কোচবিহার জেলার মাথাভাঙ্গা থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) পি,এন রায় ও বাংলাদেশের পক্ষে পাটগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার ইসলামের কাছে লাশ হস্তান্তর করেন।
লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পাটগ্রাম বিজিবি কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার জোনাব আলী জানান, ‘নিহত বাংলাদেশি নুরনবী মামা কশেম লাশ সনাক্ত করলে বুধবার রাত সাড়ে আটটায় জগতবেড় সীমান্ত এলাকায় পতাকা বৈঠকের বিএসএফ লাশ হস্তান্তর করেন।’
পাটগ্রাম থানার পাটগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার ইসলাম জানান নিহত নুরনবীর লাশ ময়না তদন্তের জন্য লালমনিরহাট মর্গে পাঠানো হয়েছে। ভারতীয় কর্তপক্ষ ময়না তদন্তে প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি। তবে ভারতীয় পুলিশ লাশের সুরত হাল প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে বুলেট ইনঞ্জুরি বলেছে। তবে আমি যে সুরতহাল তৈরি করেছি তাতে লাশের পিঠে পাশে ক্ষতের চিহৃ রয়েছে। তবে ময়না তদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর বুঝাযাবে এটি নির্যাতনে না বুলেট ইনঞ্জুরিতে মারা গেছে। ময়না তদন্তের পর নুরনবীর পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে।
অপরদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৫ আগষ্ট) ওই সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফের মধ্যে ব্যাটালিয়ন পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বাংলাদেশের পক্ষে চার সদস্য দলের নেতৃত্বে দেন বিজিবি লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মাহাবুব রহমানের ও ভারতের পক্ষে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কুচবিহার জেলার রানীনগর বিএসএফ ৩৫ ব্যাটালিয়নের কমান্ডার এ এল তিরর্কি নেতৃত্ব দেন।
বৈঠক শেষে লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মাহাবুব রহমান বলেন আমরা এই হত্যা কার্ন্ডের কঠোর প্রতিবাদ জানিয়েছি। হত্যা কান্ডে বিষয়ে বিএসএফ দুংখ প্রকাশ করেন। আমরা নির্যাতন করে ও পাথর ছুড়ে হত্যা করা হয়েছে প্রতিবাদ করলে জবাবে বিএসএফ কমান্ডার অস্বীকার করে বলেন তারা পাথর সাথে করে নিয়ে এসে পাথর ছুড়ে বিএসএফকে আক্রমন করেন.ফলে বিএসএফ আত্বরক্ষার জন্য নন অর্থোরাইজ রাইফেল ব্যবহার করে ফলে স্পিলিন্ডার বিদ্ধ হয়ে মারা যায়।
তিনি আরো জানান আমরা তাদের কথা মানতে মানতে পারছি না।আমাদের ময়না তদন্ত প্রতিবেদনে যদি নির্যাতন করে মারা তথ্য পাওয়া যায়. তাহলে আবারও পতাকা বৈঠক করা হবে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful